ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ | ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

আমার বিনীত অনুরোধ

সন্তানদের লেখাপড়ার খোঁজ-খবর নিন

সুপ্রিয় কুমার চক্রবর্তী
🕐 ৪:১৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৩

সন্তানদের লেখাপড়ার খোঁজ-খবর নিন

উচ্চ শিক্ষার্থে বিদেশ মানেই আমেরিকা, কানাডা, ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, সুইডেন, নেদারল্যান্ডস ও বড়জোর জাপান! ৯৯% মেধাবী আর্থিক সচ্ছল ছাত্র-ছাত্রীদের পছন্দের দেশ উপরের এই কয়টাই! আমাদের সম্মানিত অভিভাবকদের পছন্দের শীর্ষে এই কটি দেশই! এটা অস্বীকার করবার কোনো উপায় নাই! অনেক স্বপ্ন আশা নিয়ে যে সকল অভিভাবকরা তাদের প্রিয় সন্তানদের ঐসব ফ্রিডম কান্ট্রিতে পাঠান, আপনাদের জন্য আমাদের কিছু বিনীত অনুরোধ ....আশা করি মাথায় রাখবেন।

 

 

১. সন্তানদেরকে পাঠিয়েই দ্বায়িত্ব শেষ করবেন না। প্রতিদিন তার সাথে দুইবেলা হোয়াটস্যাপ কিংবা মেসেঞ্জারে কথা বলুন। তার অবস্থান যাচাই করুন। এটা বিশ্বাস অবিশ্বাসের প্রশ্ন না! এটা ইমোশন ও ভালবাসার বিষয়!

২. সন্তানদের কথায় কথায় টাকা পাঠাবেন না । টাকা পাঠানোর আগে জিজ্ঞেস করুনÑকি পারপাসে এই টাকা খরচ হবে?

৩. সন্তানদের বিদেশের মাটিতে বিলাসী জীবন-যাপনে অভ্যস্ত হতে বারণ করুন। নিজের ইনকামে ও পরিশ্রমের অর্থে সার্বিক ভোগ-বিলাস করতে ইন্সপায়ার্ড করুন।

৪. তাদেরকে প্রয়োজন ছাড়া গাড়ি কিনে দিতে একবাক্যে ‘না’ বলুন। বিদেশের ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম আমাদের দেশের মতো নয়। ঐখানে দশটা পনেরো মিনিটে কোনো ক্লাস থাকলে ঠিক দশটা দশেই সেখানে পৌঁছে যাওয়া সম্ভব। সন্তানদের সকল আবদার হাসি মুখে ফুটিয়ে পরে বেজার মুখ নিয়ে বসে থাকবেন না।

৫. সন্তানদের লেখাপড়ার খোঁজ-খবর নিন। তাদের প্রত্যেক সেমিস্টারের ট্রান্সক্রিপ্ট পাঠাতে কড়া নির্দেশ দিয়ে রাখুন। আপনি কোথায় ইনভেস্ট করছেন, সেটা জানবেন না? এটা আপনার অধিকার।

৬. পরীক্ষায় বা কোনো এসাইনমেন্ট-এ কাঙ্খিত নম্বর না পেলে কৈফিয়ত তলব করুন। আপনি যে কষ্ট করে অর্থ রোজগার করে টাকা পাঠাচ্ছেন, সেটা স্মরণ করিয়ে দিন। সে ভালো কিছু করতে পারলে সারাজীবন সে সুখে থাকবে, আনন্দে থাকবে ।এটা বুঝিয়ে বলুন।

৭. সন্তানকে পাঠিয়ে একবার সময় করে আপনি হঠাৎ তার স্বপ্নের দেশে গিয়ে একেবারে রুমে ঢুকে সারপ্রাইজ দিন।

৮. ফ্রি কান্ট্রিতে কোনটা গ্রহণ করতে হবে, কোনটা বর্জন করতে হবে , সেই বিষয়ে তাকে খোলামেলা কথা বলে ফেলুন। লজ্জার কিছু নেই। ডিস্কো, বার , ড্রিঙ্কস , বার-বি-কিউ পার্টি , অযথা লং ড্রাইভ এগুলি ভালো না মন্দ , সেই বিষয়ে সুন্দর করে বুঝিয়ে কথা বলুন।

৯. ধর্মীয় অনুশাসনে চলতে অনুরোধ করুন। সময় পেলে মন্দিরে, মসজিদে, গির্জায় গিয়ে প্রার্থনা করতে বলুন। এতো সুন্দর একটা জীবন উপহার দেওয়ার জন্যে সৃষ্টিকর্তাকে কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্যে এর চেয়ে বেস্ট প্লেস আর কিছু হয় না!

১০. ছেলে-মেয়ের সাথে সময় করে নানা বিষয় নিয়ে পারিবারিক আলাপ-আলোচনা করুন। ওকে বুঝান, এই পরিবারে তার উপস্থিতি কত ইম্পরট্যান্ট! তার জন্যে সবাই কেমন ফিল করেন, কি প্রত্যাশা তাকে নিয়ে --- সেগুলো মন খুলে শেয়ার করুন।

এই দশটি টিপস অবশ্যই অবশ্যই সন্তানদের সঙ্গে পরিপূর্ণভাবে মেনে চলবেন। ঐসব দেশে যেসব বাবা-মায়েরা তাদের প্রিয় সন্তানদের পাঠান, তাদের সন্তানদের কাছে নিশ্চয় আপনি ভবিষ্যতে তার কাঁধে বোঝা হয়ে থাকবেন , আপনার বৃদ্ধ বয়সে খাবার দাবার, ভরণ-পোষণের দ্বায়িত্ব নিতে হবে- বিষয়টা কিন্তু  এমন নয়!

আপনাদের দরকার একটু কেয়ারিং , নার্সিং , বন্ডিং ও সেটার রিফ্লেকশন! আর যেন কোনো আরিয়ান আলম দীপ্ত, শাহরিয়ার খান, এঞ্জেলা বাড়েই আমাদের মাঝ থেকে অকালেই হারিয়ে না যায়.....এটাই আমাদের প্রত্যাশা। তিন তিনটি তাজা প্রাণ ফান করে নিজের খেয়ালখুশীমত গাড়ি ড্রাইভ করে অকালে বিদায় দেওয়ার জন্য নিবিড় কুমারের কঠিন শাস্তি দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশ ও কানাডা!

 

 
Electronic Paper