এক যুগ পর দিনাজপুর বিএনপির কাউন্সিল

ঢাকা, রবিবার, ২৯ মে ২০২২ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

সভাপতি-সম্পাদকসহ ৭ পদে ১৬ প্রার্থী

এক যুগ পর দিনাজপুর বিএনপির কাউন্সিল

গোলাম নবী দুলাল, দিনাজপুর
🕐 ১:৪০ অপরাহ্ণ, মে ১৪, ২০২২

এক যুগ পর দিনাজপুর বিএনপির কাউন্সিল

অবশেষে সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে দীর্ঘ এক যুগ পর দিনাজপুর জেলা বিএনপির কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ শনিবার। কাউন্সিলকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য। এ কাউন্সিলে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ ৭টি পদের বিপরীতে একজন মহিলা প্রার্থীসহ ১৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এতে জেলার ২০টি সাংগঠনিক ইউনটের ১ হাজার ৯১৯ জন ভোটার (কাউন্সিলর) ভোট প্রদান করবেন। ইতোমধ্যে সম্মেলন ও কাউন্সিলের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

দলীয় কার্যালয়ে শেষমুহূর্তে বিএনপির কাউন্সিল নিয়ে প্রার্থীদের চলছে লবিং, মিটিং ও সিটিং। নেতাকর্মীদের মাঝে ফিরে এসেছে উচ্ছ্বাস। দলীয় কার্যালয় এখন সরগরম। কাউন্সিলে থাকছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন এবং বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রংপুর বিভাগের দায়িত্বে আসাদুল হক হাবিব দুলু। সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বী ৪ জন প্রার্থী হলেন দিনাজপুর-৪ আসনের সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল হালিম, জেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি হাফিজুর রহমান সরকার, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোফাজ্জল হোসেন দুলাল ও বোচাগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ সাদিক রিয়াজ চৌধুরী পিনাক।

সিনিয়র সহ-সভাপতি দুইজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জেলা বিএনপির বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক খালেকুজ্জামান বাবু ও জেলা বিএনপির বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মোকাররম হোসেন।

সাধারণ সম্পাদক পদে দুইজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জমান জুয়েল ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক বখতিয়ার আহমেদ কচি।

যুগ্ম সম্পাদক পদে ৩ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক মোস্তফা কামাল মিলন, বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহিন খান ও সদর উপজেলা বিএনপির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মুরাদ আহম্মেদ।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিএনপির বর্তমান আহবায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম, সদর উপজেলা বিএনপির বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুর রহমান বাদশা ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত মুকুল চৌধুরীর সহধর্মিণী হাসনা হেনা চৌধুরী হিরা ও জেলা যুবদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সোহেল নিশাত।

কাউন্সিলরদের সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, জেলা বিএনপির এমন নেতৃত্ব আমরা নির্বাচন করব, যে নেতা সব সময়ে বিএনপির অন্যান্য সংগঠনকে নিজের সন্তানের মতো ভালোবাসবে। আপদে বিপদে পাশে দাঁড়াবে। কেন্দ্রীয় বিএনপির কর্মসূচিতে সফলভাবে অংশগ্রহণ করে নেতৃত্ব প্রদান করবে। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জাতীয় দাবি আদায় করার জন্য আন্দোলনের নেতৃত্ব প্রদান করবে এমন নেতা নির্বাচন করব।

জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও জেলা বিএনপির কাউন্সিল সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব অ্যাড. আনিসুর রহমান চৌধুরী জানান, কাউন্সিলের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন। বিভিন্ন প্রতিকূলতার মধ্যে জেলা কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। কেন্দ্রীয় নেতারাও আসছেন।

আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক হাসানুজ্জামান উজ্জ্বল জানিয়েছেন কাউন্সিল নিয়ে প্রার্থীদের মধ্যে চলছে শেষমুহূর্তে আবেদন নিবেদন। সম্মেলনে যেন কোনো সমস্যা বা প্রতিবন্ধকতা না হয়, এজন্য সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
কাউন্সিল পরিচালনার জন্য ৫ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. আশফাক আহমেদ জানিয়েছেন দলীয় কার্যালয়ে দুপুর ১২টা-৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে। জেলা কাউন্সিলে মোট ভোটার ১ হাজার ৯১৯ জন।

প্রসঙ্গত, জেলা বিএনপির সবশেষ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১০ সালের ২৬ জানুয়ারি। পরে ২০১৬ সালের আগস্ট মাসে ওই কমিটি ভেঙে দিয়ে ১৩১ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটি দিয়েই এতদিন জেলা বিএনপির কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

 
Electronic Paper