প্লাস্টিক সার্জারির সময় অভিনেত্রীর মৃত্যু, কারণ জানালেন চিকিৎসক

ঢাকা, সোমবার, ২৭ জুন ২০২২ | ১২ আষাঢ় ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

প্লাস্টিক সার্জারির সময় অভিনেত্রীর মৃত্যু, কারণ জানালেন চিকিৎসক

বিনোদন ডেস্ক
🕐 ৫:০২ অপরাহ্ণ, মে ২১, ২০২২

প্লাস্টিক সার্জারির সময় অভিনেত্রীর মৃত্যু, কারণ জানালেন চিকিৎসক

সম্প্রতি শরীরের বাড়তি মেদ ঝরাতে প্লাস্টিক সার্জারির সময় মৃত্যু হয় কন্নড় অভিনেত্রী চেতনা রাজের। সোমবার (১৬ মে) বেঙ্গালুরুর এক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় তাকে। অনেক চেষ্টার পরও বাঁচানো যায়নি অভিনেত্রীকে। অস্ত্রোপচারের পর তার ফুসফুসে নানা সমস্যা দেখা দেয়। ফুসফুসে পানি জমতে শুরু করে। আর শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন চেতনা রাজ।

শোবিজ কিংবা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে প্লাস্টিক সার্জারির মাধ্যমে নিজেকে বদলে ফেলার চেষ্টা এবারই প্রথম নয়। এর আগে বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, শিল্পা শেঠি, শ্রুতি হাসান, আনুশকা শর্মাসহ অনেকেই শরীরের বিভিন্ন অংশে প্লাস্টিক সার্জারি করিয়েছেন। সূত্রের খবর অনুযায়ী, বলিউড ছাড়াও টালিউডেও অনেকে প্লাস্টিক সার্জারির মাধ্যমে নিজেকে বদলে ফেলেছেন।

এদিকে কন্নড় অভিনেত্রী চেতনার বিষয়টি আলাদা। তিনি মুখের কোনো অংশ বদলে ফেলতে বা আরও তীক্ষ্ম করার জন্য প্লাস্টিক সার্জারি করাননি। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে মেদ ঝরিয়ে শারীরিক গঠনকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে চেয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। আর চিকিৎসার পরিভাষায় এই জাতীয় অস্ত্রোপচারকে ‘লাইপোসাকশন’ বলা হয়।

শারীরিক গঠনকে আকর্ষণীয় করে তুলতে রোগা হতে চেয়ে অস্ত্রোপচার করানো কতটা নিরাপদ? আর কেউ যদি অস্ত্রোপচার করতে আগ্রহীও থাকেন তাহলে কী কী সাবধানতা মেনে চলা উচিত?

এ বিষয়ে ভারতের চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ বিক্রম রাঠৌর জানিয়েছেন, কেবল লাইপোসাকশন বা প্লাস্টিক সার্জারি বলে নয়। যেকোনো অস্ত্রোপচারের ক্ষেত্রে আগে থেকে ভালো করে শারীরিক পরিস্থিতি পরীক্ষা করানো উচিত। রক্ত পরীক্ষা, ইসিজি করিয়ে পরীক্ষার রিপোর্ট চিকিৎসককে দেখানো উচিত। এরপর চিকিৎসক যদি ইতিবাচক হিসেবে মনে করেন তাহলে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে শারীরিক গঠন পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেয়া যেতে পারে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, কারো যদি ধূমপানের অভ্যাস থাকে তাহলে অস্ত্রোপচার বন্ধ করতে হবে। অস্ত্রোপচারের আগে ও পরেও। আবার খুব বেশি স্থূলকায় হলে কোলেস্টেরল, ডায়াবেটিস আছে কিনা তা জেনে নেয়া প্রয়োজন। তবে সব সময়ের জন্য এই চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দিয়েছেন, লাইপোসাকশন, বোটক্স, প্লাস্টিক সার্জারি রোগা হওয়ার উপায় নয়। খাওয়া কমিয়ে, জিমে গিয়ে শরীরচর্চার মাধ্যমেও শারীরিক গঠন পরিবর্তন করা যায়। যদিও এক্ষেত্রে ওজন কমানোর জন্য দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হয়। তবে এতে অন্য কোনো সমস্যা হওয়ার ঝুঁকি থাকে না।

এছাড়া ভারতের চর্মরোগ চিকিৎসক শুভ্র ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, ডায়াবেটিস, থাইরয়েড, হৃদরোগ, হরমোনজনিত কোনো সমস্যা থাকলে এই জাতীয় অস্ত্রোপচার করানো উচিত নয়। তবে কেউ যদি করাতেই চান তাহলে আগে থেকে চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করে নেয়া জরুরি এবং অস্ত্রোপচারের আগে-পরে দুই ক্ষেত্রেই চিকিৎসকের পরামর্শ মতো কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে।

এদিকে অভিনেত্রী চেতনা রাজ অস্ত্রোপচারের আগে কতটা সতর্কতা বা প্রস্তুতি নিয়েছেন তা জানা যায়নি। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় প্লাস্টিক সার্জারির লক্ষ্য সেভাবে পূরণ হলো না। ঠিক যেভাবে শারীরিক গঠন চাওয়া হয়েছিল হয়তো সেভাবে হলো না। পাশাপাশি বিভিন্ন শারীরিক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা দেয়। এতে প্লাস্টিক সার্জারি করার আগে বিশেষজ্ঞ কোনো চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তারপরই সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত।

 
Electronic Paper