ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪ | ৫ আষাঢ় ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

নাটোরে পরকীয়ার জেরে যুবককে গুলি করে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর
🕐 ৪:৩৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ২২, ২০২৩

নাটোরে পরকীয়ার জেরে যুবককে গুলি করে হত্যা

নাটোরে ফরহাদ খন্দকার (৩২) নামে এক কুলি শ্রমিকের গুলিবিদ্ধ রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে সদর উপজেলার হয়বতপুর এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

 

নিহত ফরহাদ খন্দকার একই এলাকার মসলুর উদ্দিনের ছেলে।

খবর পেয়ে সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমিন নেলী, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছিম আহম্মেদসহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এলাকাবাসী ও নিহতের স্বজনরা জানায়, প্রতিদিনের মত মঙ্গলবার সকালে ফরহাদ কাজের জন্য বাড়ী থেকে বের হয়। এরপর রাত ১২টা বেজে গেলেও ফরহাদ বাড়ীতে ফিরে না আসায় পরিবারের সদস্যরা তাকে বিভিন্ন স্থানে খুঁজতে শুরু করে। পরে ফরহাদের স্ত্রী লুৎফুন্নাহার তাকে বাড়ীর পাশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে ফরহাদের রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। এ সময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে পুলিশকে খবর দেয়।

এলাকাবাসী আরও জানায়, প্রতিবেশী ফরহাদ শিকদারের স্ত্রী বৃষ্টি খাতুনের সাথে ফরহাদ খন্দকারের পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। কিছুদিন আগে ফরহাদ খন্দকার বৃষ্টি খাতুনকে নিয়ে পালিয়ে বগুড়াতে চলে গিয়েছিল। পরে প্রতিবেশীরা ফরহাদকে বুঝিয়ে বৃষ্টি খাতুনকে ফরহাদ শিকদারের কাছে ফিরিয়ে দেয়। কিন্তু এর পরেও ফরহাদ খন্দকার বৃষ্টির সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ রাখত। প্রতিবেশীরা ফরহাদকে নিষেধ করা সত্বেও সে তাতে কর্ণপাত করেনি। তাদের ধারণা সেই ঘটনার জের ধরে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

লক্ষীপুর খোলাবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান কালু জানান, হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবীতে বুধবার সকালে নাটোর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে স্থানীয়রা। পরে পুলিশের আশ্বাসে তারা অবরোধ তুলে নেয়। পূর্ব ঘটনার জের ধরে হত্যা করে লক্ষীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ফেলে রেখে যায় বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এ হত্যাকান্ডের সাথে যারাই জড়িত থাকুক না কেন তদন্ত করে বের করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান তিনি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছিম আহম্মেদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার জন্য অভিযান চলছে।

 
Electronic Paper