ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪ | ৬ বৈশাখ ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ও ঢাবির আংশিক নতুন কমিটি, ‘ত্যাগীদের’ মূল্যায়নে ‘স্বস্তি’

মাহমুদুল হাসান
🕐 ৬:১৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ০২, ২০২৪

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ও ঢাবির আংশিক নতুন কমিটি, ‘ত্যাগীদের’ মূল্যায়নে ‘স্বস্তি’

# শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ কমিটির দাবি
# নয়াপল্টনে নেতাকর্মীদের উচ্ছাস

নানা জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। বর্তমান কমিটি ভেঙে নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি (আংশিক) ঘোষণা করেছে বিএনপি। গতকাল শুক্রবার বিকেলে রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে সভাপতি ও নাছির উদ্দীন নাছিরকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭ সদস্যের কেন্দ্রীয় আংশিক কমিটি অনুমোদন দেয় বিএনপি। একইসঙ্গে গণেশ চন্দ্র রায় সাহস ও নাহিদুজ্জামান শিপনকে দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাত্রদলেরও নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। বিএনপির প্যাডে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

এদিকে ছাত্রদলের নতুন কেন্দ্রীয় কমিটিতে ‘ত্যাগী’ ও ‘যোগ্য’দের সমন্বয়ে কমিটি দেওয়া এবং মাঠের নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করায় সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মাঝে স্বস্তি দেখা গেছে। অনেকেই বলছেন- বিগত সময়ের বিবেচনায় অপেক্ষাকৃত ভালো কমিটি হয়েছে। অবশ্য কেন্দ্রীয় ও ঢাবি কমিটির শীর্ষ পদপ্রত্যাশী কয়েকজন নেতা তাদেরকে অবমূল্যায়নেরও অভিযোগ তুলেছেন। তবে পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মীদের দাবি, অতীতের তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম এগিয়ে নিতে দ্রুত সময়ের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা উচিৎ। তা না হলে আবারও ছাত্রদলের কর্মকান্ড নিয়ে প্রশ্ন উঠবে। কমিটি গঠনে দীর্ঘসূত্রিতার কারণে পদপ্রত্যাশীদের মাঝে সংগঠনের প্রতি অনীহা তৈরি হয়। যার প্রভাব পড়ে আন্দোলনের কর্মসূচিতে।

এমতাবস্থায় সময় ক্ষেপণ না করে যত দ্রুত সম্ভব পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার দাবি তাদের। এছাড়া গতকাল বিকেলে নতুন কমিটি ঘোষণার পরপরই রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রদলের অসংখ্য নেতাকর্মী জড়ো হন। তারা নতুন সভাপতি রাকিব-নাছির কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে উচ্ছাস প্রকাশ করেন। সেইসঙ্গে সন্ধ্যার আগে নতুন নেতারা দলীয় কার্যালয়ে আসলে তাদেরকে হাততালি ও ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। সন্ধ্যার পরে সহস্রাধিক নেতাকর্মী নিয়ে একটি আনন্দ মিছিল বের করা হয়।

বিএনপির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদ ইকবাল খান ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের নেতৃত্বাধীন ছাত্রদলের কমিটি বিলুপ্ত করে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের ৭ সদস্যের নতুন আংশিক কমিটি অনুমোদন করা হয়েছে। নবগঠিত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- আবু আফসান মোহাম্মদ ইয়াহিয়া সিনিয়র সহসভাপতি, শ্যামল মালুম সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, আমান উল্লাহ আমান সাংগঠনিক সম্পাদক, মোহা. জাহাঙ্গীর আলম দফতর সম্পাদক (সহ-সভাপতি পদমর্যাদা) এবং শরীফ প্রধান শুভ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। একইসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটিও ভেঙে ৭ সদস্যের আংশিক কমিটি করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- মাসুম বিল্লাহ সিনিয়র সহসভাপতি, আনিসুর রহমান খন্দকার অনিক সহসভাপতি, নাসির উদ্দীন শাওন সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, শামীম আখতার শুভ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং নুর আলম ভুঁইয়া ইমন সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে।

জানা গেছে, ছাত্রদলের নতুন কমিটির নেতারা সবাই ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী। কেউ কেউ এখনও মাস্টার্সে (বিশেষ) অধ্যয়নরত। এরমধ্যে সভাপতি রাকিব ও সিনিয়র সহসভাপতি আফসান ২০০৬-২০০৭, সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন নাছির ২০০৭-০৮, সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ আমান ও যুগ্ম সম্পাদক শরীফ ২০০৯-১০ সেশনের শিক্ষার্থী। রাকিব এর আগে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক আহ্বায়ক ও ফজলুল হক মুসলিম হলের সভাপতি ছিলেন। নাছির ছাত্রদলের গত কমিটির সহ সভাপতি, ঢাবি ছাত্রদলের সাবেক ১ নং যুগ্ম আহ্বায়ক ও সাবেক সহসাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। কেন্দ্র ও ঢাবি শাখার এসব নেতাকর্মীর সবাই রাজপথের চলমান আন্দোলন সক্রিয় ছিলেন। প্রায় সবার নামেই বেশকিছু মামলা রয়েছে এবং অনেকেই একাধিকবার কারাবরণও করেছেন।

এক তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ছাত্রদল সভাপতি রাকিবুল ইসলাম রাকিব খোলা কাগজকে বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শ নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান নির্দেশে মানুষের ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে মাঠে আছি। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত মাঠে থাকবো। সাংগঠনিক কার্যক্রমের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের কাছে আরও জনপ্রিয় করে তুলতে কাজ করবো। তারেক রহমান যে আস্থা ও বিশ্বাস রেখে দায়িত্ব দিয়েছেন তা আমি পালনে অঙ্গীকারাবদ্ধ।

তিনি বলেন, ছাত্রদল প্রতিষ্ঠার পর থেকেই শিক্ষাঙ্গণে প্রতিটি শিক্ষার্থীর হয়ে কাজ করেছে। এই কমিটিও সেভাবেই কাজ করবে এবং শিক্ষাঙ্গনে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখা ও শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে কাজ করবে ইনশাআল্লাহ।

সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন নাছির বলেন, বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের আদর্শকে ধারণ করে আমাদের সাংগঠনিক অভিভাবক তারেক রহমানের নেতৃত্বে দেশের চলমান এবং চরম ক্রান্তিকালে হারানো গণতন্ত্র ও জনগণের ভোটাধিকার পুনরুদ্ধার এবং বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তির লক্ষ্যে একদফার আন্দোলনে সক্রিয় ভুমিকা রাখতে চাই। ছাত্রদলের সাংগঠনিক কর্মকান্ড বিস্তৃতির মাধ্যমে সংগঠনকে আরও সম্প্রসারিত করা হবে। তার প্রতি আস্থা রাখা এবং বিগত আন্দোলনে তার কর্ম মূল্যায়ণ করায় তারেক রহমানকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

জানা গেছে, ২০২২ সালের ১৭ এপ্রিল কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণকে সভাপতি ও সাইফ মাহমুদ জুয়েলকে সাধারণ সম্পাদক করে প্রথমে সুপার ফাইভ এবং একই বছরের ১১ সেপ্টেম্বরে ৩০২ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়। ২০২৩ সালের ৮ আগস্ট শ্রাবণকে সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে রাশেদ ইকবাল খানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়। তবে ছাত্রদলের কমিটি গঠন নিয়ে নানা অনিয়ম একাধিকবার খবরের শিরোনাম হয়েছে। বিএনপির একদফার আন্দোলনে ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও অন্যান্যরা মাঝে মধ্যে মিছিল করলেও দেখা মেলেনি সাধারণ সম্পাদক জুয়েলের। যা তৃণমূল নেতাকর্মীদেরকে হতবাক করেছে।

 
Electronic Paper