ঢাকা, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪ | ১ বৈশাখ ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

ইন্টেরিয়র

ঘর সাজুক বাহারি কুশনে

অনলাইন ডেস্ক
🕐 ১২:৫৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৩

ঘর সাজুক বাহারি কুশনে

ইদানীংকালে এসে আরাম উপকরণের পরিচয় ছাপিয়ে কুশন হয়ে উঠেছে ঘর সাজানোর অন্যতম উপাদান। ঢাকার অভিজাত শপিং সেন্টার থেকে শুরু করে ছোটখাটো মার্কেটগুলোতেও এখন কুশন বিক্রি হয়। কুশনে ঘর সাজানোর সময় বেশকিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। কুশন একই মাপের না কিনে বিভিন্ন মাপের কিনুন।

 

কুশন কভার কেনার সময় আপনার ঘরের দেয়াল, পর্দা এসবের রঙের সঙ্গে মানানসই কুশন কভার কিনুন। বিছানায় ব্যবহারের জন্য অপেক্ষাকৃত ছোট কুশন কিনুন। আর সোফা কিংবা ডিভানের জন্য কিনুন বড় কুশন।

চাইলে বড় কুশন দিয়ে বসার আয়োজন করতে পারেন। কিন্তু সেক্ষেত্রে একটা শতরঞ্জীর উপরে কুশন বিছিয়ে দিন। কুশন তৈরির কাপড়টাও ভালো হওয়া চাই। এতে কুশন অনেক দিন পর্যন্ত ভালো থাকবে। বাজারে নানা ধরনের কুশন পাওয়া যায়।

তুলার তৈরি কুশন একটু ভারী হওয়াতে এ ধরনের কুশন ফ্লোর বা ডিভানের জন্য আদর্শ। আর সোফা কিংবা বিছানা সাজাতে সিনথেটিক তুলার কুশন ব্যবহার করুন। বাচ্চাদের রুম সাজাতে নানা আকৃতির কুশন ব্যবহার করুন।

এক্ষেত্রে পুতুল আকৃতির কুশন হতে পারে সেরা পছন্দ। গাড়ির ভিতরে অনেকেই এখন আরাম করতে ও সাজগোজের জন্য গাড়ি ব্যবহার করে থাকেন। এসব ক্ষেত্রে সিল্ক অথবা ভারী কাজ করা কুশন ব্যবহার করুন।

কুশন কেনার জন্য যেতে পারেন বিভিন্ন বালিশ আর সোফার ফোম বিক্রি দোকানগুলোতে। এ ছাড়া ইদানীং ফ্যাশন হাউসগুলো কুশন কভারের সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন আকৃতির কুশন বিক্রি করে থাকে। কুশনের পাশাপাশি এখানে পাবেন রকমারি কুশন কভারও।

এ ছাড়া সস্তায় কুশন কিনে কভার আলাদা কিনে নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো জায়গা ঢাকার নিউমার্কেটের নিচতলার কুশনের বাজার। খুব কম দামে এখানে সিনথেটিক তুলার কুশন পাবেন। এখানে চাইলে আপনি কিছু দোকানে ইচ্ছামতো মাপের কুশন অর্ডারও করতে পারবেন।

লেখা : মোহাম্মদ সুজন

 
Electronic Paper