ঢাকা, বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১৯ মাঘ ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

বিগত ভুল সংশোধনের জন্যই প্রধানমন্ত্রী হয়েছি: ঋষি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
🕐 ৭:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০২২

বিগত ভুল সংশোধনের জন্যই প্রধানমন্ত্রী হয়েছি: ঋষি

যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর সাবেক সরকারের সমালোচনা করে ঋষি সুনাক বলেছেন, বিগত সরকার কিছু ভুল করেছিল এবং সেসব ভুলের জেরেই দেশ বর্তমানে এক গভীর অর্থনৈতিক সংকটের সামনে উপস্থিত হয়েছে। মঙ্গলবার লন্ডনে রাজ পরিবারের কার্যালয় বাকিংহাম প্যালেসে যুক্তরাজ্যের রাজা তৃতীয় চার্লসের সঙ্গে দেখা করেন ঋষি।

সংক্ষিপ্ত বৈঠকের পর রাজা চার্লস তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেন। পাশাপাশি তাকে নতুন মন্ত্রিসভা গঠনেরও আমন্ত্রণ জানান।

তারপর যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে জাতির উদ্দেশে সংক্ষিপ্ত ভাষণ দেন ঋষি। ভাষণের শুরুতেই সাবেক প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসের প্রতি সম্মান জানান তিনি। বলেন, ‘আমি কী কারণে এবং কোন পরিস্থিতিতে আপনাদের নতুন প্রধানমন্ত্রী হয়েছি, তা আপনারা সবাই জানেন।’

‘এই মুহূর্তে আমাদের দেশ এক গভীর অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া এখনও করোনা মহামারির জের আমাদের টেনে নিতে হচ্ছে।’

নিজের পূর্বসূরী প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস নেতৃত্বাধীন সরকারের খানিকটা সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আমরা কিছু ভুল করেছিলাম। এসব ভুল যে ইচ্ছাকৃত ছিল— এমন নয় এবং কাজ করতে গেলে ভুল হওয়া অস্বাভাবিকও নয়। কিন্তু তারপরও আমরা বলব, কিছু ভুল আমাদের ছিল।’

বিগত সরকারের ভুল শোধরাতে দ্রুত কাজ শুরু করা প্রয়োজন উল্লেখ করে সুনাক আরও বলেন, ‘আমাদের খুব দ্রুত কাজে নেমে পড়তে হবে। কারণ যতই বিলম্ব হবে— সংকটের তীব্রতা আরও বাড়বে। এবং আমি আপনাদের প্রধানমন্ত্রী হয়েছি বিগত আমলের সেসব ভুল সংশোধনের জন্যেই।’

নিজের আরেক পূর্বসূরী বরিস জনসনকেও সম্মানের সঙ্গে স্মরণ করেন ঋষি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি সবসময়ই বরিস জনসনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার অর্জন অনন্য এবং বরাবরই তিনি উষ্ণ হৃদয়ের বন্ধুত্বপূর্ণ মানুষ; এবং আমি যদ্দুর জানি, ২০১৯ সালে ব্রিটেনের জনগণ যে আশা নিয়ে আমাদের দল কনজারভেটিভ পার্টিকে ক্ষমতায় বসিয়েছিল, তা যে কোনো একক ব্যক্তির ওপর আশা নয়— এ সম্পর্কেও তিনি অবগত।’

নিজের মেয়াদে জনসনের সহযোগিতা কামনা করে তিনি বলেন, ‘দেশের এখন যে পরিস্থিতি, তাতে আমাদের নিজেদের মধ্যকার যাবতীয় মতপার্থক্য ভুলে এক হওয়ার সময় এসেছে। কারণ, ব্রিটেনের জনগণের কাছে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং আমার দিক থেকে এ বিষয়ে সবসময়েই পূর্ণ আগ্রহ থাকবে।’

লকডাউন উপেক্ষা করে মদের পার্টি ও অন্যান্য ইস্যুতে নিজ দল কনজারভেটিভ পার্টি ও বিরোধী দল লেবার পার্টির এমপিদের ব্যাপক চাপের মুখে পড়ে গত জুলাই মাসে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন বরিস জনসন। কনজারভেটিভ পার্টির যেসব নেতা সেসময় বরিসের সবচেয়ে কট্টর সমালোচক ছিলেন, জনসনের নেতৃত্বাধীন সরকারের অর্থমন্ত্রী সুনাক তাদের মধ্যে অন্যতম। সে সময় বরিস জনসন ও সুনাকের মধ্যকার দ্বন্দ্ব দেশটির রাজনৈতিক অঙ্গণের অন্যতম আলোচিত বিষয় ছিল।

দেশ গভীর অর্থনৈতিক সংকটে রয়েছে স্বীকার করলেও এই সংকট যে উত্তরণ সম্ভব— সেই আত্মবিশ্বাসও প্রকাশ করেছেন সুনাক। এ সম্পর্কে ভাষণে তিনি বলেন, ‘আমি জানি, এখনকার পরিস্থিতি কতটা কঠিন; এবং আমি এটাও বুঝতে পারছি যে, এই মুহূর্তে জনগণের আস্থা অর্জনই হবে আমার ও আমার নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রথম কাজ।’

আমি এই প্রতিশ্রুতে আপনাদের সবাইকে দিচ্ছি, আমি কথার মাধ্যমে নয়, কাজের মাধ্যমে আমাদের দেশকে ঐক্যবদ্ধ করব। আমার প্রতিটি দিন আপনাদের সেবায় নিয়োজিত থাকবে। আমার নেতৃাধীন সরকারের প্রতিটি পর্যায়ে সমন্বয়, পেশাদারিত্ব ও জবাবদিহিতা থাকবে।’

‘বিশ্বাস অর্জন করে নিতে হয় এবং আমি আপনাদের বিশ্বাস অর্জন করব।’

সূত্র : বিবিসি

 
Electronic Paper