ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ | ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

জবির দুই গেটে ছাত্রদলের তালা

অনুপম মল্লিক আদিত্য, জবি
🕐 ২:০২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০২, ২০২৩

জবির দুই গেটে ছাত্রদলের তালা

বিএনপির ডাকা তিনদিনের সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচির তৃতীয় দিনে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) প্রবেশদ্বারের দুটি ফটকে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে শাখা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) ভোরে পাটুয়াটুলি রাস্তা সংলগ্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪র্থ ফটক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ২য় ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় নেতাকর্মীরা।

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তালা ঝুলিয়ে দেওয়ার পর ফটক দুইটি দীর্ঘক্ষণ তালাবদ্ধ অবস্থায় ছিল। পরে সকাল ৮টার দিকে ফটকের তালা ভেঙে যাতায়াত ব্যবস্থার সুযোগ তৈরি করে দেন শিক্ষার্থী ও ফটক সংশ্লিষ্ট থাকা নিরাপত্তারক্ষীরা। এরপর দ্বিতীয় ফটক দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস ভিতরে প্রবেশ করে।

তালা দেওয়ার কথা স্বীকার করে জবি শাখা ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান আসলাম বলেন, এক দফা দাবি আদায় এবং বিএনপির শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশে পুলিশলীগ ও আওয়ামী লীগের বর্বর হামলা ও গণ গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে আমরা অবরোধ পালন করছি। অবরোধের তৃতীয় দিনে আমরা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গেটে তালা ঝুলিয়েছি ও জনগনের স্বার্থ রক্ষার অবরোধ সফল করার লিখিত ব্যানার লাগিয়ে দিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ফ্যাসিস্ট সরকারের আজ্ঞাবহ প্রশাসন জনগনের স্বার্থ রক্ষার অবরোধকে সমর্থন জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখবেন। আর যদি বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ না রাখেন সামনের যে কোনো সহিংসতা এবং অপ্রীতিকর ঘটনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দায়ী থাকবেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল বলতে চায়, আমাদের এক দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত যতই হামলা মামলা গ্রেপ্তার করুক আমরা রাজপথে ছিলাম, আছি, ইনশাআল্লাহ জনগণের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত রাজপথেই থাকব।

সাধারণ সম্পাদক সুজন মোল্লা বলেন, সরকার যত বেশি বাধা ও হামলা-মামলা দেবে, সরকারের ও তাদের সাঙ্গপাঙ্গদের পতন তত ভয়ংকর হবে। যখন কোনো দেশে ফ্যাসিস্ট সরকার চেপে বসে, তখন সেই সরকার প্রতিটি সেক্টরে দুর্নীতির আখড়া তৈরি করে। বর্তমানে কিছু স্বার্থান্বেষী কর্মকর্তা, এত দুর্নীতি করছে, ভবিষ্যতে তাদের বিচার হবে ভয়ে জনগণের সেবক না হয়ে ফ্যাসিস্টি সরকারের দালালি করছে। এভাবে পুলিশ দিয়ে, গুন্ডা বাহিনি দিয়ে আন্দোলন থামানো যাবে না। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল এই সরকার পতনে যে দুর্বার আন্দোলন গড়ে উঠেছে তার সামনে থেকে ভূমিকা রাখছে এবং রাখবে।

এ বিষয়ে কথা বলতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টরদের বারবার কলা দেওয়া হলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।

 

 
Electronic Paper