ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০২৪ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

পোশাকশিল্পে বোনাস পায়নি অর্ধেকের বেশি শ্রমিক

অনলাইন ডেস্ক
🕐 ৩:৩১ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২৩

পোশাকশিল্পে বোনাস পায়নি অর্ধেকের বেশি শ্রমিক

আগামী বৃহস্পতিবার পবিত্র ঈদুল আজহা। তবে গতকাল শনিবার পর্যন্ত অর্ধেকের বেশি তৈরি পোশাকশিল্পের কারখানা শ্রমিকদের ঈদ বোনাস দেয়নি। আর চলতি মাসের অর্ধেক বেতন পরিশোধ করেছে মাত্র আড়াই শতাংশ কারখানা। তৈরি পোশাকের বাইরে অন্যান্য শিল্পকারখানায় বেতন-বোনাস দেওয়ার হার আরও কম।

 

শিল্প পুলিশের হালনাগাদ পরিসংখ্যানে এমন চিত্রই উঠে এসেছে। এতে দেখা যায়, পোশাকসহ অন্যান্য শিল্প খাতের বহু কারখানার গত মে মাসের বেতনও এখন পর্যন্ত বকেয়া রয়েছে। মোট ৩৩৭টি কারখানা এখনো গত মাসের বেতন দেয়নি। এর মধ্যে তৈরি পোশাক ও বস্ত্র কারখানা ১২৮টি।

আশুলিয়া, গাজীপুর, চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ, ময়মনসিংহ, খুলনা, কুমিল্লা ও সিলেটের ৯ হাজার ৯১৫টি শিল্পকারখানা তদারকি করে শিল্প পুলিশ। এসব কারখানার মধ্যে এখন পর্যন্ত ৬৩ দশমিক ৮২ শতাংশ বা ৬ হাজার ৯০টি কারখানা ঈদ বোনাস দেয়নি, ৯ হাজার ৫১৫ কারখানা চলতি মাসের অর্ধেক বেতন দেয়নি। তার মানে, মাত্র ৩ দশমিক ২৩ শতাংশ বা ৩২০টি বেতন পরিশোধ করেছে।

এই আট এলাকায় তৈরি পোশাক ও বস্ত্র কারখানা আছে অন্তত ২ হাজার ৬৬৬টি। তার মধ্যে গতকাল পর্যন্ত ১ হাজার ২৩৯টি কারখানা বোনাস পরিশোধ করেছে। এ ছাড়া ৬৬ কারখানা চলতি মাসের অর্ধেক বেতন দিয়েছে।

বেতন-ভাতা পরিশোধের হার এখনো কম কেন, জানতে চাইলে তৈরি পোশাকশিল্পের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সহসভাপতি শহীদউল্লাহ আজিম বলেন, ‘কারখানাগুলো শ্রমিকদের বেতন-ভাতা দিতে শুরু করেছে। ২-৩ দিনের মধ্যেই অধিকাংশ কারখানা বেতন-ভাতা পরিশোধ করে ছুটি দিয়ে দেবে। আমরা অন্যান্য সময়ের মতো এবারও তদারকি করছি।’ তিনি আরও বলেন, ৩-৪টি কারখানার বেতন-বাতা পরিশোধ নিয়ে কিছুটা ঝুঁকি আছে। সেগুলো সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।

জানতে চাইলে শ্রমিকনেতা সিরাজুল ইসলাম বলেন, বোনাস দেওয়া শুরু হয়েছে। কমপ্লায়েন্ট কারখানাগুলো মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ বোনাস দিচ্ছে। আর সাবকন্ট্রাকটিং কারখানা দিচ্ছে মূল বেতনের অর্ধেকের কাছাকাছি। এবার ক্রয়াদেশ কম থাকায় অনেক কারখানায় বেতন-ভাতা নিয়ে সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা আছে। কয়েকটি কারখানা ঈদের আগে কিছু শ্রমিক ছাঁটাইও করেছে।

চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে শ্রম ভবনে জাতীয় ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদের (টিসিসি) ৭৫তম এবং আরএমজি টিসিসির ১৫তম সভা শেষে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান ঘোষণা দেন, পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটির আগেই শ্রমিকদের ঈদ বোনাস দিতে হবে। আর চলতি জুন মাসের অর্ধেক বা ১৫ দিনের বেতনও পরিশোধ করতে হবে। কোনো মালিকের সক্ষমতা থাকলে পূর্ণ মাসের বেতন দিতে পারবেন।

 
Electronic Paper