ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪ | ৬ বৈশাখ ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

নবীনগরে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ

অনলাইন ডেস্ক
🕐 ৫:১৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ০৩, ২০২৪

নবীনগরে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ করেছে স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ। এতে প্রায় ১ হাজার অসহায়, দরিদ্র ও চিকিৎসা বঞ্চিত মানুষকে চিকিৎসা সেবা ও প্রয়োজনীয় ঔষধ দেয়া হয়েছে।

 

শনিবার, ২ মার্চ নবীনগর উপজেলার মালাই গ্রামে তৌফিকুল ইসলামের জ্যেষ্ঠ পুত্র ও স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ'র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আকরামুজ্জামান শুভ'র ষষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে এই কার্যক্রমের আয়োজন করা হয়। স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ ও শুভ'র পরিবার ফ্রি ক্যাম্পটির আয়োজন করেছেন।

ক্যাম্পে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ নিতে আসপাশের ১৫টি গ্রাম থেকে ভিড় করেন স্থানীয় মানুষ। সবাইকে চিকিৎসা দিতে ঢাকা ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা ১৩ জন চিকিৎসক নিয়োজিত ছিলেন।

ক্যাম্পে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম দেখতে আসা ও সেবা নিতে আসা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি রনজিৎ রায় বলেন, 'মানুষের সেবায় সবসময় শুভ'র প্রতিষ্ঠা করা এই সংগঠন কাজ করছে। তার এ সংগঠন দীর্ঘদিন ধরে এই চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে'। স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ'র যে কোন কাজে সবসময় পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

প্রতিবছর যেন এই কার্যক্রম চালু থাকে সেই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি। শুধুমাত্র ঢাকা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া নয়, পুরো দেশজুড়ে এর পরিধি ছড়িয়ে দেয়ার আহবান জানান তিনি। এমন মহতী উদ্যোগের পাশে সবসময় থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন রনজিৎ রায়।

স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ'র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মৃত আকরামুজ্জামান শুভ'র পিতা তৌফিকুল ইসলাম বলেন, আমার ছেলে সবার জন্য কিছু করতে চেয়েছে, কতটুকু করে যেতে পেরেছি জানি না। আমি সর্বাত্মক চেষ্টা করবো মেডিক্যাল ক্যাম্প বাদেও সে যেভাবে শিক্ষা ও চিকিৎসা বঞ্চিত অসহায়-হতদরিদ্র মানুষের পাশে দাড়াতে চেয়েছিলো তা করার। সকলকে পাশে পেলে ইনশাআল্লাহ আমার ছেলের ইচ্ছা কিছুটা পূরণ করতে পারবো।

স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ'র সভাপতি আরিফুল ইসলাম শাহাবের উপস্থিতিতে চিকিৎসা সেবা আয়োজনে সহযোগিতায় ছিলেন ১০জন স্বেচ্ছাসেবক।

এছাড়া আশরাফুজ্জামান সেতু'র সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন মেহেদী হাসান, শরিফুল ইসলাম ফারুকি, মাহমুদুল হাসান আশিক, যোবায়ের রহমান, তমাল ফরাজি ও মোদাসসের রহমান প্রমুখ।

 
Electronic Paper