ঢাকা, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪ | ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক

আমরা করেছি মুক্তিযুদ্ধ, তোমাদের যুদ্ধ সত্যিকারের মানুষ হওয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক
🕐 ১:৩৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৩, ২০২৩

আমরা করেছি মুক্তিযুদ্ধ, তোমাদের যুদ্ধ সত্যিকারের মানুষ হওয়ার

‘আমরা করেছি মুক্তিযুদ্ধ, তোমাদের যুদ্ধ সত্যিকারের মানুষ হওয়ার।’ মিরপুর সাইন্স কলেজের নবীনবরণ ও কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ও মুক্তিযোদ্ধা ডা. সিরাজুল ইসলাম শিশির এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছিলাম তোমাদের জন্য। বৈষম্য ও শোষণের বিরুদ্ধে আমরা যুদ্ধ করার জন্য পাকিস্তান থেকে সবকিছু ছেড়ে চলে এসেছিলাম বাংলাদেশে। আর তোমাদের যুদ্ধ হচ্ছে সত্যিকারের মানুষ হওয়ার যুদ্ধ, দেশকে গড়ে তোলার জন্য যুদ্ধ।

তিনি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির কথা উল্লেখ করে বলেন বাংলাদেশ আজ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। আগামীতে এই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির হাত ধরে আমরা এগিয়ে যাবো স্মার্ট বাংলাদেশের দিকে।

মিরপুর সাইন্স কলেজের নবীন বরণ ও কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শনিবার পল্লবী ২ নং ওয়ার্ড কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ, ২০২৩ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫.০০ (এ+) ৫১ জন শিক্ষার্থীকে ক্রেষ্ট, ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের ১ম বর্ষ ফাইনাল পরীক্ষায় সম্মিলিত মেধা তালিকায় স্থান প্রাপ্ত ১৫ জনকে ক্রেস্ট ও ৩ জনকে ১ লাখ ৫ হাজার টাকার শিক্ষাবৃত্তি এবং ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে (১ম ব্যাচ) থেকে ভর্তি পরীক্ষায় ২৫ জন যারা বুয়েট, মেডিকেল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ পেয়েছে তাদের ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

মিরপুর সাইন্স কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন রিপনের সভাপতিত্বে এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজের উপদেষ্টা এবং অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম। আরো উপস্থিত চিলেন কলেজের উপদেষ্টা আলহাজ্ব মো. খলিলুর রহমান, কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক, কলেজের সভাপতি আলহাজ্ব বাবলু সরকার প্রমুখ।

অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম প্রথমেই যারা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার লাভ করেছে তাদের অভিনন্দন জানান। তিনি শির্ক্ষার্থীদের শুধু জিপিএ ৫.০০ বা ভালো ফলাফল করার মধ্যেই সীমাবদ্ধ না থাকার পরামর্শ দেন।

সভাপতির বক্তব্যে কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন রিপন বলেন, আজকের এই অনুষ্ঠানে জ্ঞানীগুণী ব্যক্তিদের আগমন এই নবীনবরণ অনুষ্ঠানকে সার্থক ও সফল করে তুলেছে। অনেক ব্যস্ততার মধ্যে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে আসার জন্য তিনি অতিথিবৃন্দকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান।

 
Electronic Paper