ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪ | ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

অবিলম্বে সাংবাদিক সাব্বিরের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
🕐 ৪:২৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২৪

অবিলম্বে সাংবাদিক সাব্বিরের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি

সময়ের আলোর স্টাফ রিপোর্টার সাব্বির আহমেদের ওপর নৃশংস হামলাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলশ শাস্তির দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। অন্যথায় কঠিন কর্মসূচি দেয়ার ঘোষণা দেন তারা।

আজ রোববার দুপুরে সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সামনে সাব্বিরের ওপর হামলার প্রতিবাদ ও জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও শাস্তি নিশ্চিতের দাবিতে মানববন্ধন করে ঢাকাস্থ গাজীপুর সাংবাদিক ফোরাম। মানবন্ধনে অংশ নিয়ে সহকর্মী সাংবাদিকরা এ দাবি জানান।

সাংবাদিক নেতারা বলেন, সাংবাদিকরা কারও প্রতিপক্ষ নয়। তারা অন্যায়-অসঙ্গতি তুলে ধরেন। আর এসব তুলে ধরতে গিয়ে সারাদেশে গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর একের পর এক হামলার ঘটনা ঘটছে। অথচ কোনো হামলারই বিচার হচ্ছে না। যার কারণে এসব হামলার ঘটনা ঘটেই চলছে। অবিলম্বে সাব্বিরসহ সাংবাদিকদের ওপর হওয়া সকল হামলার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।

তারা বলেন, সন্ত্রাসীরা দলের ছত্রছায়ায় থেকে এ ধরনের কাজ করছে। দলীয় পরিচয় না থাকলে এভাবে সাংবাদিকদের উপর হামলা চালানো যেত না। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে নিউজ করায় সাব্বিরকে হত্যার উদ্দেশে তার উপর পরিকল্পিতভাবে হামলা চালানো হয়েছে। এটা পূর্ব পরিকল্পিত। ছাত্রলীগের কমপক্ষে ১৫ জন নেতাকর্মী এই হামলায় অংশ নেয়। মাত্র ১ জনকে বহিস্কার করা হয়েছে। প্রত্যেকের বিরুদ্ধে তিতুমীর কলেজ কর্তৃপক্ষ এবং আইনশৃঙ্খলাবাহীনীকে ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। অন্যথায় আরো কঠিন কর্মসূচি দেয়া হবে। সরকারের পৃস্টপোশকতায় ছাত্রলীগ দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। কলেজ প্রশাষন ও জড়িতদের বিরুদ্ধে আরো বেশি করে নিউজ করতে হবে। তাদের মুখোশ খুলে দিতে হবে।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শহিদুল ইসলাম বলেন, সন্ত্রাসীরা দলের ছত্র ছায়ায় থেকেই এ ধরনের কার্যক্রম চালায়। দলীয় পরিচয় না থাকলে সাব্বিরের ওপর হামলার ঘটনায় একজনকে কেন লোক দেখানো বহিষ্কার করা হয়েছে। সাব্বিরের ওপর হামলা করেছে ১৫–২০ জন। তাদেরকে সবাই চিনে। এদেরকে দ্রুত কলেজ থেকে বহিষ্বার করতে হবে, গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। এসময় তিনি সাগর–রুনীসহ সকল সাংবাদিক হত্যা ও নির্যাতনের বিচার দাবি করেন। সেইসঙ্গে সকল ঘটনা ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সাধারণ সম্পাদক খুরশীদ আলম বলেন, ছাত্রলীগের ভর্তি বাণিজ্য ও টেন্ডারবাজি-চাদাবাজির নিউজ করায় টেন্ডার সাব্বিবের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। সাগর রুনি বিচার হয়নি, বিচার হলে সাব্বিরের উপর হামলা হতো না। অবিলম্বে তাদের গ্রেফতার ও বিচার না করলে আরো কঠোর কর্মসূচি দিতে বাদ্য হবো।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক মহি উদ্দিন বলেন, হামলাকারীদের উদ্দেশ্য ছিলো সাব্বিরকে মেরে ফেলা। হামলাকারীরা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী। একের পর এক সাংবাদিকের উপর হামলা হচ্ছে, মেরে ফেলা হচ্ছে। কিন্তু বিচার হচ্ছে না। সেজন্যই হামলা হচ্ছে। এটা বন্ধ করতে হবে। এ জন্য সরকার ও প্রশাষনকে উদ্যোগ নিতে হবে।

তিনি বলেন, সাব্বিরের উপর হামলার ঘটানায় মামলা হলে এখনো হামলাকারীদের গ্রেফতার করা হয়নি। অন্য পেশার লোকজনের উপর সেভাবে হামলা না হলেও সাংবাদিকদের উপর একের পর এক আক্রমন করা হচ্ছে। সাংবাদিক সাগর রুনি হত্যার বিচার হয় নি। একটা বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠায় হামলা বেড়েছে। ওই ঘটনায় অন্তরালের বিষয়টিও সামনে আনতে হবে।

তিনি বলেন, হামলায় জড়িত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। না হলে ঘোষণা দিন বিচার হবে না। হামলার পেছনে তিতুমীর কলেজ এর প্রশাসন জড়িত বলেও দাবী করেন তিনি।

বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. কামরুজ্জামান আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে হামলাকরীদের গ্রেফতার করে দৃস্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

গাজীপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আতাউর রহমান বলেন, তিতুমীর কলেজের ছাত্রলীগের যেইসব নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সাব্বিরের উপর নৃশংস হামালার কারনে মামলা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ও কলেজ কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নিতে হবে।
সভাপতির বক্তব্যে জিএম ফয়সাল আলম বলেন, হামলার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ধরে ধরে রিপোর্ট করতে হবে। তারা চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্মে জড়িত বলে তথ্য পাওয়া গেছে। আর সাব্বিরের ওপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তার না করলে কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

ফোরামের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হকের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বাছির জামাল, ডিইউজের সহসভাপতি রফিক মোহাম্মদ, ডিআরইউ’র দপ্তর সম্পাদক রফিক রাফি, নগর উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল খান, রিপোর্টার্স এগেইনস্ট করাপশনের (র‍্যাক) সাবেক সভাপতি ফয়েজ আহমেদ, ডিআরইউ’র সাবেক সহসভাপতি দীপু সারোয়ার, মাহমুদুল হাসান, ঢাকাস্থ গাজীপুর সাংবাদিক ফোরামের দপ্তর সম্পাদক এস এম নূর মোহাম্মদ, ডিআরইউ’র সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ সাইফুল, নগর উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরামের সহ সভাপতি রাশেদ আহমেদ, তিতুমীর কলেজ সাংবাদিক সমিতির সভাপতি তাওসিফ মাইমুন, দৈনিক সময়ের আলোর সিনিয়র রিপোর্টার সমিরণ রায় প্রমুখ।

 
Electronic Paper