ঢাকা, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪ | ৮ আষাঢ় ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

ইভিএম ভুয়া লিখে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলেন পরাজিত প্রার্থী

ভাঙ্গুড়া (পাবনা ) প্রতিনিধি
🕐 ১২:৫৮ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০২৪

ইভিএম ভুয়া লিখে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলেন পরাজিত প্রার্থী

৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ভোটে হেরে গিয়ে ইভিএম ভুয়া লিখে যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে (ঘোড়া প্রতীক) চেয়ারম্যান প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম মেছবাহুর রহমান রোজ। তিনি জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি। নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার দিন রাত পৌনে ৯ টায় 'রোজ মেছবাহুর রহমান' নামে ফেসবুক আইডিতে তিনি একটি স্ট্যাটাস দেন।

সেখানে তিনি লেখেন, "৬ষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনে ২য় ধাপে পরাজিত হওয়ার অভিজ্ঞতা থেকে আগামী ৩য় ও ৪র্থ ধাপের প্রার্থীদের প্রতি অনুরোধ, ইভিএম (ভুয়া) সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তা, পদ্ধতি ও ক্ষমতাশালীদের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখতে অনুরোধ করছি।"

তার ফেসবুক থেকে এই স্ট্যাটাস দেয়ার পরপরই রাজনৈতিক অঙ্গনসহ নানা শ্রেণি ও মহলে দেখা দেয় মিশ্র প্রতিক্রিয়া। উঠে সমালোচনার ঝড়। আওয়ামীলীগ তথা সরকারি দলের একজন সক্রিয় পদধারী নেতা হিসেবে সরকারের এমন উদ্যোগে বিরোধিতা করায় দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা এম মেছবাহুর রহমান রোজ বলেন, চারটি কেন্দ্রে গিয়ে দেখেছি নির্বাচনের সাথে যুক্তরা সরাসরি ভোটারকে গোপন কক্ষে নিয়ে গিয়ে ভোট নিয়ে নিচ্ছেন। ইভিএম পদ্ধতিটা ভুয়া বলেই মনে হয়েছে। তাই পরবর্তী নির্বাচনগুলোতে প্রার্থীদের সতর্ক হতেই পোস্ট করেছি।

সরকারি দলের একজন পদধারী নেতা হয়ে সরকারের নেয়া আধুনিক ও যুগোপযোগী কার্যক্রমের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার বিষয়ে বলেন, দীর্ঘদিন বিদেশে থেকেছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত। আওয়ামীলীগ চুরি করবে, অন্যায় করবে এটা মেনে নিতে পারবো না।

কোথায়ও কোন অভিযোগ করেছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জানি কোন অভিযোগে প্রতিকার মিলবেনা জেনেই কোথায়ও কোন অভিযোগ করিনি।

এ বিষয়ে জানতে ভাঙ্গুড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিজয়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম হাসনাইন রাসেল বলেন, ইভিএম পদ্ধতিটা স্বচ্ছ প্রক্রিয়া। এখানে কারচুপি, অনিয়ম করার সুযোগ নেই। দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে জনবিচ্ছিন্ন মানুষ হয়ে প্রতিটা নির্বাচনে প্রার্থী হওয়াটা তার নেশায় পরিণত হয়েছে। ক্ষমতাসীন দলের দলীয় নেতা হয়ে সরকার তথা দলের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া বা কটুক্তি করাটা খুবই দু:খজনক ব্যাপার।

রিটার্নিং অফিসার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শরিফ আহমেদ বলেন, আমরা কোন অভিযোগ পায়নি। কেউ অভিযোগ দিলে খতিয়ে দেখে কমিশনের বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, ভাঙ্গুড়া উপজেলায় ৪৫টি ভোট কেন্দ্রের ফলাফলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম হাসনাইন রাসেল (মোটরসাইকেল প্রতীকে) ৩১ হাজার ৫৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এম মেছবাহুর রহমান রোজ (ঘোড়া প্রতীক) পেয়েছেন ২ হাজার ৬৭৯ ভোট। অপর প্রার্থী মো. বাকিবিল্লাহ (আনারস প্রতীক) পেয়েছেন ৫৪১ ভোট। এ উপজেলায় ভোট পড়েছে ৩৩.৭৯ শতাংশ।

 
Electronic Paper