ঢাকা, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪ | ৮ আষাঢ় ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

রাজশাহীতে ভোট কেন্দ্রে সংঘর্ষে আহত ৭

শ.ম সাজু ও হাবিবুর রহমান, রাজশাহী
🕐 ১২:৪৫ অপরাহ্ণ, মে ২১, ২০২৪

রাজশাহীতে ভোট কেন্দ্রে সংঘর্ষে আহত ৭

রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার একটি কেন্দ্রে ভোট দেয়াকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ৭ জন আহত হয়েছে। এছাড়াও ভোটারদের বাধা ও হুমকি-ধামকি দেয়ার অভিযোগে একজনকে আটক করেছে র‍্যাব।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার সকালে ভোট গ্রহণ শুরুর আগে নওপাড়া ইউনিয়নের গোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে চেয়ারম্যান প্রার্থী দুর্গাপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুজ্জামান শরিফ এবং আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মজিদ সরদারের সমর্থকদের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি হয়। পরে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে ৭জন আহত হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতরা হলেন, গোপালপুর গ্রামের আজের, আজাদ, শহিদুল, শুকচান, মিঠু, আব্দুর রাজ্জাক ও সান্টু। আহতদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে নান্দিগ্রাম দারুস সালাম আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রে ভোটারদের ভয়ভীতি ও হুমকি ধামকি দেয়ার অভিযোগে একজনকে আটক করে র‍্যাব। আটক আতাহার আলী (৪২) নান্দিগ্রামের নবীর উদ্দিনের ছেলে।

দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা স্বীকৃতি প্রামাণিক জানান, সকাল থেকেই সবগুলো কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ চলছে। গোপালপুর কেন্দ্রের বাইরে বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। এতে নির্বাচনে কোন প্রভাব পড়েনি। তিনি আরও বলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, র‍্যাব, পুলিশ ও বিজিবি সহ যথেষ্ট পরিমাণ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নির্বাচনী মাঠে কাজ করছে। আশা করি কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হবে।

দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ইসলাম জানান, গোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের সামনে ভোট শুরুর আগে দুই উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর কয়েকজন সমর্থক ভোটারদের ভোটার স্লিপ দেয়ার জন্য পাশাপাশি বসেছিল। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক থেকে উত্তেজনা দেখা দেয়। তবে এটি একটি বিচ্ছন্ন ঘটনা। সাথে সাথেই পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেছে। পরে র‌্যাবের টহল দলও ঘটনাস্থল ঘুরে এসেছে। বিচ্ছিন্ন এই ঘটনায় ভোটকেন্দ্রের ভেতর কোন প্রভাব পড়েনি বলে দাবি করেন তিনি।

দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিন পদে ৭জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চেয়ারম্যান পদে উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মজিদ সরদার (ঘোড়া প্রতীক) ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক শরীফুজ্জামান শরিফ (মোটরসাইকেল প্রতীক) নিযে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে আব্দুল কাদের মন্ডল (টিউবওয়েল প্রতীক), শামীম ফিরোজ (তালা প্রতীক) ও মোসাব্বের সরকার জিন্নাহ (টিয়া পাখি প্রতীক) নিয়ে লড়ছেন। আর সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বানেছা বেগম (ফুটবল প্রতীক) ও কোহিনুর বেগম (কলস প্রতীক) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

দুর্গাপুর উপজেলায় মোট ভোটকেন্দ্র ৬৭টি। ভোটার রয়েছেন এক লাখ ৫৯ হাজার ৯৩৩ জন। এরমধ্যে তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছে একজন।

 
Electronic Paper