ঢাকা, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪ | ৮ আষাঢ় ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

বুয়েট শিক্ষার্থীর পাশে বিএসএমআরইউ'র উপাচার্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
🕐 ৩:১৫ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০২৪

বুয়েট শিক্ষার্থীর পাশে বিএসএমআরইউ'র উপাচার্য

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ভর্তির সুযোগ পেয়েও আর্থিক সংকটের অনিশ্চয়তায় পড়া এক মেধাবী শিক্ষার্থীর পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমআরইউ) উপাচার্য রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা, ওএসপি, এনপিপি, আরসিডিএস, এএফডব্লিউসি, পিএসসি।

 

বুয়েটের চলতি ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে ১০৪১ তম হয়ে ভর্তির সুযোগ পাওয়া ওই শিক্ষার্থীর নাম মোঃ মিরাজ। তার বাড়ি লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ফকিরপাড়া গ্রামে।

সম্প্রতি রুয়েট, চুয়েটসহ বুয়েটে পড়ার সুযোগ পান মিরাজ। কিন্তু অর্থনৈতিক সংকটে তার পড়াশোনা চালিয়ে যেতে দেখা দেয় অনিশ্চয়তা। এ খবর জানতে পারেন আলোকিত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের (এবিএফ) নির্বাহী পরিচালক ও লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক কম্পিউটার প্রকৌশলী ইফতেখার হোসেন মাসুদ। সঙ্গে সঙ্গে তিনি মিরাজের পাশে দাঁড়াতে সামর্থ্যবানদের এগিযে আসার আহ্বান জানালে মিরাজের পড়াশোনার খরচের দায়িত্ব নেন মোহাম্মদ মুসা।

এবিএফের মাধ্যমে মেধাবী শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াতে পেরে রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা বলেন, মিরাজের মতো মেধাবী শিক্ষার্থীদের স্বপ্ন পূরণে যেন দরিদ্রতা বাধা হয়ে না আসতে পারে সেজন্য তাদের পাশে দাঁড়াতে সমাজের সামর্থ্যবান নাগরিকদের এগিয়ে আসতে হবে।

এদিকে বিএসএমআরইউ'র উপাচার্যের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ইফতেখার হোসেন বলেন, মেধাবী শিক্ষার্থীদের কঠিন দুঃসময়ে সব সামর্থ্যবানদের এগিয়ে আসা উচিত। কারণ এই মেধাবীরাই আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবে।

এর আগেও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হওয়া একই উপজেলার এক মেধাবী শিক্ষার্থীর পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার আর্থিক দায়িত্ব নেন বিএসএমআরইউ উপাচার্য।

উল্লেখ্য, আলোকিত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এরইমধ্যে শতাধিক শিক্ষার্থীকে বৃত্তি নিয়ে উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠাতে সহায়তা করেছে। এছাড়া দেশে ৫০০ এর অধিক অসহায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি নিয়ে পড়ালেখার ব্যবস্থা করেছে সংগঠনটি।

 
Electronic Paper