ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪ | ২ শ্রাবণ ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

জিতেও অস্বস্তিতে স্পেন

অনলাইন ডেস্ক
🕐 ১:২৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৬, ২০২৪

জিতেও অস্বস্তিতে স্পেন

তরুণ আর অভিজ্ঞদের মিশেলে গড়া স্পেন দল দুর্দান্ত সময় পার করছে। ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ শুরুর আগে থেকেই দে লা ফুয়েন্তের দলটি ছিল শক্ত ফেবারিটদের একটি। এবার আরেক ফেবারিট ও আয়োজক জার্মানিকে বিদায় করে সে কথা স্পেন আরেকবার প্রমাণ করেছে। ২-১ গোলের জয়ে তারা উঠেছে ইউরোর সেমিফাইনালে। তবে তাতেও স্বস্তির সুযোগ নেই, কারণ কার্ড ও ইনজুরিজনিত কারণে স্প্যানিশরা সেমিতে ন্যূনতম তিন তারকাকে পাচ্ছে না।

গতকাল ইউরোর কোয়ার্টারে স্পেন-জার্মানি মুখোমুখি হলেও, ম্যাচটি ছিল ফাইনালের আগে আরেক ফাইনাল। শক্তিমত্তা ও ফর্মের বিচারে দুই দলই ছিল শক্তিশালী। তবে স্বাগতিক কোনো দলকে নকআউট ম্যাচে না হারানোর তিক্ত এক রেকর্ড নিয়ে জার্মানির স্টুটগার্ডে হাজির হয়েছিল স্পেন। আর জার্মানি এসেছিল ঘরের মাঠের পূর্ণ সমর্থন নিয়ে। বারেবারে বদলালো সেই ম্যাচের রং। ৫০ মিনিটের গোলে এগিয়ে যায় স্পেন। এরপর শেষ সময়ের গোলে জার্মানি ফেরে সমতায়।

কিন্তু ফ্লোরিয়ান ভির্টজের দুর্দান্ত সেই গোলটা ম্লান হয়ে গেল অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে এসে। ঘড়ির কাঁটায় সময় যখন ১১৯ মিনিট, তখনই আবার স্কোরশিটে পরিবর্তন। সেই দানি ওলমোর অবদান মিশে থাকল এবারেও। দুর্দান্ত এক ক্রস। আর তাতে মাথা ছুঁয়ে গোল পেলেন মিকেল মোরেনো। স্পেনের ক্যারিয়ারে মাত্র দ্বিতীয় গোল। তাতেই দলকে নিয়ে গেলেন ইউরোর সেমিফাইনালে। ২-১ গোলের জয়ে আরও একবার জার্মানির হৃদয় ভাঙল স্প্যানিশরা।

কিন্তু ম্যাচটিতে মাত্র অষ্টম মিনিটেই অনাকাঙ্ক্ষিত এক ফাউলে মাঠ ছাড়েন পেদ্রি। টনি ক্রুসের করা সেই মারাত্মক ট্যাকল তাকে এবারের ইউরো থেকে ছিটকে দিয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বাঁ পায়ের চোট থেকে সেরে উঠতেও সময় লাগতে পারে এই বার্সেলোনা মিডফিল্ডারের। সবমিলিয়ে সেমিতে স্পেন তাকে না পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি! যদিও ম্যাচ শেষে স্পেনের জয়ে দুটি গোলে অবদান রাখা দানি অলমোর আশা– সেমির আগেই সেরে উঠবেন পেদ্রি।

স্পেন-জার্মানির ম্যাচটিকে এক অর্থে শারিরীক লড়াইও বলা যেতে পারে। দুই দল মিলিয়ে ফাউল হয়েছে ৩৯টি, ১২০ মিনিটের খেলায় ১৬ হলুদ কার্ডের সঙ্গে লাল কার্ডও দেখা গেছে একটি। উয়েফার নতুন নিয়ম অনুযায়ী ইউরোর সেমিফাইনালের আগে কেউ দুই ম্যাচে হলুদ কার্ড দেখলে, তিনি সেমিফাইনাল খেলায় নিষেধাজ্ঞা পাবেন। আর তাতেই কপাল পুড়েছে স্পেনের। এই কারণে তারা সেমিতে দানি কারভাহাল ও রবিন লা নরম্যান্ডকে পাচ্ছে না আসন্ন সেমিতে। কারভাহালের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর জার্মানির তরুণ উইঙ্গার জামাল মুসিয়ালাকে শেষ মিনিটে বড় ফাউল করেন, ফলে তাকে মাঠ ছাড়তে হয় লাল কার্ড দেখে।

কেবল তাই নয়, স্পেনের অধিনায়ক আলভারো মোরাতারও সেমিতে খেলা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। মেরিনোর সঙ্গে গোলের পর মাত্রাতিরিক্ত উদযাপনের সময় তাকে হলুদ কার্ড দেখানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। রেফারি অ্যান্থনি টেলর তাকে কার্ড দেখিয়েছিলেন কি না সেটি এখনও নিশ্চিত করেনি উয়েফা। যদিও সম্প্রচারকারী চ্যানেলে মোরাতাকে হলুদ কার্ড দেখানো হয়েছে উল্লেখ করেছিল।

উল্লেখ্য, টাইব্রেকারে পর্তুগালকে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে ফ্রান্স। তাদের সঙ্গেই সেমিতে মোকাবিলা করতে হবে স্পেনের। বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী আগামী ১০ জুলাই রাত ১টায় দু’দল ইউরোর ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে নামবে।

 
Electronic Paper