ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪ | ২ শ্রাবণ ১৪৩১

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন

প্রতীক বরাদ্দ নিতে এসে হামলার শিকার হলেন মেয়র প্রার্থী

রূপগঞ্জ( নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
🕐 ২:৫৪ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০২৪

প্রতীক বরাদ্দ নিতে এসে হামলার শিকার হলেন মেয়র প্রার্থী

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভায় সোমবার (১০জুন) নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ নিতে এসে উপজেলা অডিটোরিয়ামেই অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন মেয়র প্রার্থী আবুল বাশার বাদশা। এসময় নির্বাচনের আরেক মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলামের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসময় দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷

 

মেয়র রফিক অভিযোগ করে বলেন, সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে প্রতীক বরাদ্দের সময় আবুল বাশার বাদশা মদ্যপ অবস্থায় তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন এবং তার সমর্থকরা হামলা করে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার প্রতীক বরাদ্দের জন্য রফিকুল ইসলাম তাঁর প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীদের নিয়ে অডিটোরিয়ামের নির্ধারিত আসনে বসেন। কিছুটা দেরি করে সেখানে আসেন বাদশা। তিনি অডিটোরিয়ামে এসেই মাতলামি শুরু করেন। রফিককে গালাগাল শুরু করেন। জানতে চান রফিক কেন সামনের চেয়ারে বসেছেন। এসময় বাদশা রফিককে তুই তোকারি করে পেছনের চেয়ারে গিয়ে বসতে বলেন।

এসময় রফিক বাদশার আচরণের প্রতিবাদ করে বলেন,‘কাকা উত্তেজিত হইয়েন না৷ লোকে খারাপ বলবে। একজন মেয়র প্রার্থীর এমন আচরণ মানায় না। আপনি বসেন।' এতে বাদশা আরো উত্তেজিত হয়ে রফিকের গায়ে হাত তোলেন। এসময় অডিটোরিয়ামে থাকা রফিকের সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে উঠে। বাদশার সমর্থকরা তখন রফিকের সমর্থকদের উপর চড়াও হলে হাতাহাতি শুরু হয়। এসময় সেখানে থাকা পুলিশ সদস্যরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এ বিষয়ে দেওয়ান আবুল বাশার বাদশার বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'যা হওয়ার তা হইসে। এটা নিয়া আমি কথা বলবো না।'

জানতে চাইলে নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তাজাল্লি ইসলাম বলেন,'দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে কিছুটা উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল।পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।'

এদিকে ঘটনার পর তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ করেছেন কাঞ্চনের ভোটাররা। বিক্ষোভের সময় কয়েকজন ভোটার বলেন,'রফিকুল ইসলাম গত পাঁচ বছরের পরিক্ষিত মেয়র। তিনি কারো সঙ্গে খারাপ আচরণ করার লোক না৷ বাদশা মদ খেয়ে লাঠি হাতে তার বাড়ির সামনে মাতলামি করে বলে আমরা জানতাম। কিন্তু সে যে উপজেলা পরিষদে গিয়েও মাতলামি করবে তা আমাদের ধারণায় ছিল না।

 
Electronic Paper