পুঁচকে পুঁটির বিপদ

ঢাকা, বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০ | ১৩ কার্তিক ১৪২৭

পুঁচকে পুঁটির বিপদ

শামীম খান যুবরাজ ৭:০৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

print
পুঁচকে পুঁটির বিপদ

পুঁচকে পুঁটিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পুরো পুকুরে খোঁজাখুঁজি হয়েছে। কিন্তু পুঁচকে কোথাও নেই। বন্ধুদের সঙ্গেও নেই। পুঁচকের মা কেঁদে-কেটে অস্থির।
এমন সময় খবর পেল, কেউ নাকি তার আওয়াজ শুনেছে। কে শুনল আওয়াজ, কোথায় শুনল? উত্তর নেই কারও কাছে।

উত্তর নিয়ে এল বুড়ো কৈ মাছ। আওয়াজ শুনেছে তেলাপিয়া। দলবল নিয়ে পানির ওপর ভাসতে গিয়ে পুঁচকে পুঁটির চিৎকার শুনেছে সে। আর আওয়াজটা এসেছে ঠিক পাটিপাতার ঝোপের কাছ থেকে।

সবাই পাটিপাতার ঝোপের নিচে জড়ো হলো। মা একটানা ডেকেই চলল, পুঁচকে, ও পুঁচকে...

এর পরপরই পুঁচকের জবাব এল, আমি পানির ওপরে মা।

তুই ওখানে কী করছিস? জলদি পানিতে নেমে আয় বাবা। পুঁচকের মায়ের আকুতি।

পুঁচকে কাতর কণ্ঠে বলল, আমি পাটিপাতা গাছের একটি পাতার সঙ্গে আটকে আছি। আমার শরীরে কাদামাখা। লাফ দিতে পারছি না। আমাকে বাঁচাও মা।

পুঁচকের বিপদে হাউমাউ করে কাঁদতে লাগল মা।

বুড়ো কৈ এসে ধমক লাগাল মাকে, বিপদে ভেঙে পড়লে বিপদ থেকে উদ্ধার হওয়া যায় না। এখনি মনকে শক্ত করে বুদ্ধি বের করতে হবে।

বুদ্ধি নিয়ে বুড়ো মাগুর এল, বাঘা শোল আমাদের পুকুরের সবচেয়ে বাহাদুর মাছ। তাকে দিয়ে চেষ্টা করা যেতে পারে। সে যদি লাফ দিয়ে পুঁচকেটাকে নামিয়ে আনতে পারে, তাহলে বিপদ উদ্ধার হয়।

জড়ো হওয়া সব পুঁটি সমর্থন জানাল বুড়ো মাগুরের কথার।

বাঘা শোল এল। একবার লাফ দিয়ে পানির উপরে উঠে পুঁচকের অবস্থান বোঝার চেষ্টা করল সে। পরের লাফে পুঁচকেকে নিয়ে পুকুরে নামল বাঘা শোল। পুকুরে নেমে দম নিলো পুঁচকে। মা স্বস্তি পেল। পুঁচকেকে জড়িয়ে ধরে আদর করল। পুঁচকেকে ফিরে পাওয়ার আনন্দে পুঁটিরা পুঁটিনৃত্যের সঙ্গে বাঘা শোলকে ধন্যবাদ জানাল।

হইচই শেষ হলে সবার উৎসাহী চোখ পুঁচকের দিকে, ওখানে কীভাবে গেলে তুমি? তাছাড়া শরীরে কাদা মাখলে কী করে? আরও অনেক প্রশ্ন।

প্রশ্ন শেষ হলে বলতে শুরু করল পুঁচকে।

আমি বন্ধুদের সঙ্গে খেলছিলাম। খেলা শেষে মায়ের কাছে ফিরে যাব। এমন সময় জালে আটকা পড়লাম। জাল টেনে ডাঙায় তুলে আনলে আমি লেজ নাড়তে লাগলাম। জালের ভেতর থেকে আমাকে অতি যতেœ টেনে বের করে আনা হলো। আমি তো কাদা মেখে ভূত। পুকুরের মালিক আমাকে ছোট দেখে পুকুরে ফেলে দেওয়ার জন্য ছুঁড়ে মারল।

কিন্তু আমার দুর্ভাগ্য। আমি পুকুরপাড়ের পাটিপাতা গাছের একটি পাতায় আটকে গেলাম। শরীরের কাদা আমাকে আঁকড়ে রাখল পাতার সঙ্গে। লাফাতে পারলাম না। চিৎকার করে মাকে ডেকেছি। সব বন্ধুকে ডেকেছি।

পুঁচকের কথা শেষ হলে বুড়ো মাগুর বলল, তারপর তেলাপিয়া তোমার আওয়াজ শুনে সবাইকে খবর দিলে বাঘা শোল তোমাকে উদ্ধার করে। পুঁচকের মা বাঘা শোলের বীরত্বের প্রশংসা করল।

বাঘা শোলকে সঙ্গে নিয়ে আবারো হইচই শুরু করে দিল পুকুরের সমস্ত পুঁটি।