বাদুড়

ঢাকা, শনিবার, ৬ জুন ২০২০ | ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

বাদুড়

অর্ক রায় সেতু ৭:১৩ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০২০

print
বাদুড়

ঘরের সঙ্গে ঠেক দিয়ে দাঁড়িয়ে আছে বাড়ির সবচেয়ে বড় দুটো কাঁঠাল গাছ। কিন্তু তা থেকে পুরোটা গ্রাম এখন কাঁঠাল গাছে ভর্তি হয়েছে। এরকমই কয়েকশ’গ্রামের ভেতরে ভেতরে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে উপাদেয় সব ফলের গাছ। সেখানে চলছে বাদুড়ের রাজত্ব।

অবশ্য বাদুড়ের কাছে চমৎকার সব খাবারের মধ্যে অত্যন্ত প্রিয় খাবার হচ্ছে কাঁঠাল। তাদের চোখ থেকে বিপর্যয় কাটাতে অনেকেই কাঁঠালের গায়ে প্লাস্টিক আর পাট মুড়িয়ে সুরক্ষার কোনো কমতি রাখেননি।

মানুষের সৃষ্টিগুলোর মাঝে নাছোড়বান্দা বাদুড় একটুকরো ফাঁক পরিবর্তন পেলে ছোট ছোট পুরো দল এসে খেয়ে নেয়।

কখনো তাদের মধ্যে তুমুল কা- হয়ে যায় ভাগবাটোয়ারার দ্বন্দ্ব নিয়ে। বাদুড়রা ফল খেয়ে বেঁচে থাকে। বাংলাদেশে স্তন্যপায়ী প্রাণীদের এক-চতুর্থাংশ বাদুড় রয়েছে। সূর্য ডোবার সঙ্গে সঙ্গে তারা খাবারের খোঁজে বেরিয়ে পড়ে। তখন শব্দেন্দ্রিয় ব্যবহার করে একে অন্যকে গাইড করে পুরো দল। অনেক দূরে খাবারের খোঁজে পৌঁছে যায়।

পৃথিবীতে ১১০০ প্রজাতির বাদুড়ের মধ্যে তারা প্রত্যেকেই একই নিয়ম বেছে নেয়। দিনের আলো মোটেও বাদুড়ের জন্য উপযুক্ত নয়। রাতে তারা স্বাধীন ভাবে উড়ে বেড়ায়। কারণ তারা নিশাচর প্রাণী। তাদের সবচেয়ে বড় বাদুড়টির পাখার দৈর্ঘ্য আট ফুট লম্বা। আছে চার ফুট লম্বা পাখা। ইন্ডিয়ায় এই বাদুড়ের বিচরণ অনেক বেশি দেখা যায়। নামকরণ করা হয় Indian flying fox। বাদুড়ের বৈজ্ঞানিক নাম Pteropus giganteus। বাংলাদেশে প্রায় ১১৩ প্রজাতির বাদুড় রয়েছে।