মুজিবুর তুমি আছো বলে

ঢাকা, শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১১ আশ্বিন ১৪২৭

মুজিবুর তুমি আছো বলে

উৎপলকান্তি বড়ুয়া ৬:২৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২০

print
মুজিবুর তুমি আছো বলে

তুমি আছো বলে নিশি খুলে দেয়
দু’হাতে আলোর দোর,
শোনো মুজিবুর তুমি আছো বলে
জাগে মায়াময় ভোর।

শুয়ে থাকা ঘাসে আলপনা আঁকে
শিশিরের রঙ তুলি,
তুমি আছো বলে ঢেউ তুলে বয়ে
চলেছে কর্ণফুলি।

মুজিবুর তুমি আছো বলে, রোদ-
ছড়িয়ে সে দেয় ডানা,
ঢেউ নদী জল ঝরনা উতল
চঞ্চল একটানা।

মুজিবুর তুমি আছো বলে আজও
কাটে গ্রহণের কাল,
তুমি আছো বলে পুবদিকে রোজ
সূর্যিটা ওঠে লাল।

তুমি আছো বলে পুকুর ও বিলে
ফোটে শাপলার হাসি,
আমার সোনার বাংলাকে আমি
বড় বেশি ভালোবাসি।

তুমি আছো বলে হাসি-খুশি বুকে
আনন্দ ঝুর ঝুর,
মা’র সিঁথি হয়ে সামনে এগোয়
মেঠো পথ বহুদূর।

তুমি আছো বলে ফুল ফোটে রোজ
বনে বনে পড়ে সাড়া,
পদ্মা-যমুনা বইবে কি বলো
মুজিবুর তুমি ছাড়া?

সুরে সুরে জাগে কাজী নজরুল,
রবীঠাকুরের গান,
তুমি আছো বলে প্রাণে প্রাণে সুর
ভালোবাসা অম্লান।

তুমি আছো বলে বিজন দুপুরে
বটেদের ছায়া নামে,
উজানের ঘাটে ভেসে ভেসে সব
মাঝিরা এসেই থামে।

তুমি আছো বলে মুজিবুর শোনো
শুধু তুমি আছো বলে,
সাঁঝের আকাশে রীতি ও নীতির
শুকতারা রোজ জ্বলে।
মুজিবুর তুমি ঠিকই আছো বলে
মন বুকে সুখ টান,
সবুজ স্বদেশে দোয়েলের ঠোঁটে
অপরূপ সুরে গান।

তুমি আছো বলে বনে জঙ্গলে
পাতারা সজীব হাসে,
জড়িয়ে নরম ডাল-লতা থাকে
সবুজের খুবই পাশে।

বিকেলে হলুদ প্রিয় খোলা মাঠে
রোদ থাকে শুয়ে পুবে,
তুমি আছো বলে সুখের সূর্য
বিশ্বাসে যায় ডুবে।

তুমি আছো বলে গোধূলি এ বেলা
সাঁঝের ঘোমটা টানে,
মুজিবুর তুমি আছো বলে চাঁদ-
তারা হাসে সবখানে।

জোছনার আলো মায়াবী আবেগে
মুগ্ধতা দেয় ঢেলে,
তুমি আছো বলে জন-জীবনের
স্বপ্নরা পাখা মেলে।

প্রতিদিন জাগে জোছনার মায়া
এ বুকের অনুরাগে,
তুমি আছো বলে গৌরবে ফোটে
মানবতা-ফুল বাগে।

তুমি আছো বলে মাঝির গলায়
ভাটিয়ালি জারি সারি,
প্রজ্ঞার স্রোতে মহান ত্যাগের
সমুদ্রে দেই পাড়ি।

মুজিবুর তুমি আছো বলে দিন
সূর্য মাথায় নিয়ে,
দাঁড়িয়ে রোদের আলপনা আঁকে
মুহূর্তে চমকিয়ে।

মুজিবুর তুমি আছো বলে বুকে
সাহসের বীজ বোনা
অতীতের মতো অন্যায়-ভুল
কোনদিন মানবো না।

আকাশের মতো উদারতা আর
উঁচু পাহাড়ের মতো,
তুমি আছো বলে সুন্দরে হই
বার বার অবনত।

ধান জমি ক্ষেত ফসলের চাষী
বুকে বাঁধে বড় আশা,
সকল রকম নির্ভাবনার
থই থই জলে ভাসা।

মিথ্যে ও ছলে সত্য-মশাল
জলজল জ্বলে ক্রোধে,
বুকের রক্ত টগবগে নাচে
মানব-মূল্যবোধে।

তুমি আছো বলে চেতনার দ্বীপ
বিলায় আলোর শিখা,
আঁকা হয় রঙে আগামী সুখের
কপালের জয়টিকা।

ভালোবাসা প্রীতি আর সম্প্রীতি
স্নেহ-মোহময় ডোরে,
তুমি আছো বলে স্বাধীনতা, লাল-
সবুজ পতাকা ওড়ে।

উজান ভাটির বয়ে চলা ধারা
দু’হাতে শক্ত হাল,
মুজিবুর তুমি প্রেরণা এ বুকে
শাশ্বত চিরকাল।