হাও টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন

ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ | ১ কার্তিক ১৪২৬

তোমাদের সিনেমা

হাও টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন

ইমতিয়াজ মাহমুদ ১২:১২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৫, ২০১৯

print
হাও টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন

ড্রাগন! চেনো নাকি তোমরা? দেখেছ? টিভির পর্দায় আর কার্টুনে তো কখনো না কখনো ড্রাগন দেখেই থাকবে। তবে অনেকেই বলে থাকে, বাস্তবে ড্রাগন নামে কোনো প্রাণী নেই। এটি একটি কাল্পনিক প্রাণী। তবে কাল্পনিক হোক আর বাস্তবই হোক ড্রাগন পোষা নিয়েই আজকের গল্প।

গ্রামটির নাম বার্ক, সমুদ্রের মাঝে একটি ছোট দ্বীপে তার অবস্থান। সে গ্রামের মানুষের সবচেয়ে বড় ভয় হলো ড্রাগন। প্রায়ই ওই গ্রামে খাবারের সন্ধানে হামলা করে শত শত ড্রাগন। তাই গ্রামটির বেশির ভাগ মানুষই ভাইকিংস হতে চায়।

যারা ভাইকিংস, তারা ড্রাগন শিকারে পারদর্শী হয়। আর বার্ক গ্রামে অন্যদের কাছে তাদের কদরও বেশি। তাই গ্রামের তরুণদের মধ্যে ভাইকিংস পেশা হিসেবে বিশাল জনপ্রিয়। তবে বললেই কিন্তু ভাইকিংস হওয়া যায় না; ভাইকিংস হতে হলে পাস করতে হয় ড্রাগন মারার পরীক্ষায়। গ্রামের ভাইকিংস সর্দার স্টোয়িকের ছেলে হিকাপ। গ্রামের আর পাঁচজন সমবয়সীদের থেকে হিকাপ পুরোই ভিন্ন।

সে ভিতু আর ভাইকিংস হওয়ার জন্য অন্য যেসব গুণ প্রয়োজন তার কিছুই ছিল না তার। কিন্তু হিকাপের বাবা স্টোয়িক চাইতেন, ছেলেও যেন তার মতোই ভাইকিংস হতে পারে। সেই অসম্ভবকে সম্ভব করে হিকাপ। কিন্তু কীভাবে সেটা সম্ভব! এই সব জানতেই দেখতে হবে ‘ড্রিম ওয়ার্কস’ প্রোডাকশনের ‘হাও টু ট্রেইন ইওর ড্রাগন’ অ্যানিমেশন সিনেমাটি।