মেঘ কত প্রকার ও কী কী

ঢাকা, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

মেঘ কত প্রকার ও কী কী

শান্ত জাবালি ১০:২৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৯, ২০১৯

print
মেঘ কত প্রকার ও কী কী

বন্ধুরা তোমরা কী জানো মেঘ কত প্রকার ও কী কী? মেঘ বলতে পৃথিবীর বা অন্য কোনো গ্রহের আবহাওয়াম-লে ভাসমান জলকণার সমষ্টি বোঝানো হয়। জেনে নাও মেঘের প্রকারভেদ...

অলক মেঘ 

এ মেঘ দেখতে বরফ স্ফটিকের পাখনার মতো। মেঘের ওপরে অনেক উঁচুতে এরা গঠিত হয়। এদের কিছু কিছু পৃথিবী পৃষ্ঠ থেকে দশ মাইলের মতো উচ্চতায় তৈরি হয়ে থাকে।

পুঞ্জ মেঘ
এ মেঘ হলো পুঞ্জীভূত মেঘ। এ ধরনের মেঘকে ‘ছায়া মেঘ’ বলা হয়ে থাকে। গ্রীষ্মকালে এদের আকাশে দেখা যায়।

জলধ মেঘ
এগুলো হচ্ছে ঘন ধূসর বর্ণের বর্ষণ মেঘ। বর্ষণ মেঘের নিচের দিকে অর্ধাংশ থাকে জলকণায় ভারী, কখনো কখনো বৃষ্টির ফোঁটায় পরিণত হয়ে নিচে পতিত হয়। বিভিন্ন ধরনের মেঘকে আবার সংযুক্ত আকারেও দেখা যায়।

উচ্চপুঞ্জ মেঘ
এ মেঘ গোলাকার, মহাতরঙ্গময়, সাদা কিংবা ধূসরাভ।
এগুলো ছোট ছোট মেঘপুঞ্জের ঘনসন্নিবিষ্ট রূপ। আট থেকে বিশ হাজার ফুট উচ্চতায় এদের দেখা যায়।

ঘন আনুভূমিক মেঘ
বিশ হাজার ফুট উচ্চতায় অবস্থিত বরফ স্ফটিকে গঠিত এক প্রকার পাতলা সাদা পাতের মতো এ মেঘ।

উচ্চ আনুভূমিক মেঘ
এ মেঘ দেখতে পুরু, ধূসর নীলাভ পাতের মতো মাটি থেকে সাড়ে ছয় হাজার থেকে বিশ হাজার ফুট উচ্চতায় অবস্থান করে।

অলকাপুঞ্জ মেঘ
এ মেঘ হচ্ছে ঘন মেঘমালার ভেতর গঠিত এক টুকরা মেঘ, দেখতে সাগর তীরের বালুকারাশির ঢেউয়ের মতো। বিশ হাজার ফুট উচ্চতায় এ মেঘ গঠিত হয়।

পুঞ্জ বর্ষণ মেঘ
এ মেঘকে ‘বজ্রমস্তক’ বলা হয়। এরা অনেকটা দেখতে ফুলকপির মতো। এ ধরনের মেঘ বায়ুম-লের সবচেয়ে ওপর পর্যন্ত দেখা যায়।

আনুভূমিক পুঞ্জ
এ মেঘ হচ্ছে সেই সব বিন্দু বিন্দু মেঘ যা পৃথিবী পৃষ্ঠের কাছাকাছি থেকে শুরু করে সাড়ে ছয় হাজার ফুট উচ্চতা পর্যন্ত বিস্তার হয়ে থাকে।

আনুভূমিক মেঘ
এ ধরনের মেঘ সাধারণত মাটি থেকে মাত্র কয়েকশ ফুট ওপরে তৈরি হয়। এরা হালকা-পাতলা কুয়াশার মতো। ভোরবেলা কিংবা সন্ধ্যায় যখন বাতাস স্থির থাকে, তখন এ ধরনের মেঘ দেখা যায়।