ঈসা খাঁর পানামনগর

ঢাকা, বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

ঘুরে আসি

ঈসা খাঁর পানামনগর

ইচ্ছেডানা ডেস্ক ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০১, ২০১৮

print
ঈসা খাঁর পানামনগর

বন্ধুরা, তোমাদের বার্ষিক পরীক্ষার পর ছুটিতে ঘুরে আসতে পার ঈসা খাঁর পানামনগরে। ৪০০ বছর আগে তিনি এ শহর গড়ে তুলেছিলেন এবং বাংলার রাজধানী করেছিলেন

এ শহরে একটি মাত্রই রাস্তা। রাস্তার দুপাশে ৫২টি ভবন আছে। এগুলো নাম্বারিং করা আছে। রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় উত্তর পাশে ৩১টি ভবন আর দক্ষিণ পাশে ২১টি দেখা যাবে। পানামসিটির মধ্য দিয়ে ৬০০ মিটার বয়ে যাওয়া রাস্তাটি চওড়া ৫ মিটার। নগরটি প্রায় ২০ বর্গকিলোমিটারের।

২০০৬ সালে ‘ওয়ার্ল্ড মনুমেন্ট ফান্ড’ বিশ্বের ১০০টি ধ্বংসপ্রায় ঐতিহাসিক স্থাপনার তালিকা প্রকাশ করে তার মধ্যে পানাম নগরীর নাম আছে। এটা আমাদের গর্বের কথাই বলে। নির্মাণশৈলীর নান্দনিকতা উপভোগ করার মতো। একতলা বা দোতলা কোনো ক্ষেত্রে তিনতলাবিশিষ্ট ৫২টি ভবন মন ছুঁয়ে যায়। এখানে দেখা যাবে বড় বড় অট্টালিকা, সরাইখানা, মসজিদ, মন্দির, বিনোদনের জন্য নাচের ঘর, গোসলখানা, পাকঘর, টাঁকশাল, দরবার হল ইত্যাদি। এগুলোর নির্মাণশৈলী অসাধারণ! বুধ ও বৃহস্পতিবার বন্ধ থাকে। বাংলাদেশিদের জন্য প্রবেশ ফি ৩০ টাকা হলেও বিদেশিদের জন্য ১০০ টাকা।

যেভাবে যাবে
ঢাকা থেকে পানাম নগরের দূরত্ব ২৭ কিমি। গুলিস্তান থেকে স্বদেশ, বোরাক ও সোনারগাঁ নামক বাসে উঠে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁ মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় নামতে হবে। মোগরাপাড়া থেকে মাত্র ২ কিমি দূরে এই নগর। চাইলে রিকশা অথবা সিএনজিতে যাওয়া যাবে।