রানী ভিক্টোরিয়ার সুগন্ধির নবজন্ম

ঢাকা, বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১ | ৪ কার্তিক ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

রানী ভিক্টোরিয়ার সুগন্ধির নবজন্ম

ডেস্ক রিপোর্ট
🕐 ১১:০২ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২১

রানী ভিক্টোরিয়ার সুগন্ধির নবজন্ম

বর্তমানে সুগন্ধি ব্যবহার ফ্যাশনের একটি বড় স্থান দখল করে আছে। বিভিন্ন নামিদামি ব্র্যান্ডের সুগন্ধি বা পারফিউম ব্যবহারে অভ্যস্ত অনেকেই। তবে আজ আমরা যে সুগন্ধি নিয়ে আলোচনা করব, তা নাকি রানী ভিক্টোরিয়া ব্যবহার করতেন। সমুদ্রের তলায় জাহাজের ধ্বংসাবশেষ থেকে উদ্ধার হওয়া ১৪৭ বছরের পুরনো ওই সুগন্ধির পুনর্জন্ম হয় ২০১৪ সালে। আজও বিক্রি হচ্ছে সেই সুগন্ধি। এই সুগন্ধির সন্ধান পাওয়া এবং তার পর তা থেকে নতুন করে ফের সেই একই সুগন্ধি প্রস্তুত করা সহজ ছিল না। সুগন্ধি বিশেষজ্ঞ ইসাবেল রামসে ব্রাকস্টোনের সেই যাত্রা সত্যিই একটি কাহিনি।

২০১১ সালে বারমুডা দ্বীপ একটি বড় ঝড়ের প্রকোপে পড়েছিল। ঝড় থেমে যাওয়ার পর ওই দ্বীপের তদারকির দায়িত্বে থাকা বাহিনী দ্বীপের চারপাশ ঘুরে দেখার সময়ই ডুবুরির একটি দল সমুদ্রের তলায় একটি জাহাজের ভাঙা অংশের খোঁজ পায়। ম্যারি সেলেস্টিয়া। জাহাজের ধ্বংসস্তূপের গায়ে এই নামটাই লেখা ছিল। জানা যায়, ১৮৬৪ সালে উত্তর ক্যারোলিনা যাওয়ার সময় ডুবে গিয়েছিল জাহাজটি। এই জাহাজের ভেতর থেকে বেশ কিছু পুরনো জিনিস উদ্ধার হয়।

প্রায় এক সপ্তাহ ধরে খোঁজ চালানোর পর জাহাজের ভেতর থেকে জুআ, মদের বোতল, এবং দুটি সুগন্ধির ছোট বোতলও পাওয়া যায়। জিনিসগুলো একসঙ্গে একটি বাক্সের মধ্যে রাখা ছিল। সুগন্ধির দু’টি বোতলের গায়েই ‘পিসে অ্যান্ড লুবিন লন্ডন’ লেখা ছিল। সুগন্ধি বিশেষজ্ঞ এবং প্রস্তুতকারক ইসাবেল রামসে ব্রাকস্টোন বোতল দুটি দেখে চমকে ওঠেন। সেগুলো যে দুর্মূল্য তা তিনি এক ঝলকেই বুঝে গিয়েছিলেন।

 
Electronic Paper