মৃত জনপদ

ঢাকা, শুক্রবার, ৫ মার্চ ২০২১ | ২১ ফাল্গুন ১৪২৭

মৃত জনপদ

ডেস্ক রিপোর্ট ১২:৪১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২১

print
মৃত জনপদ

পম্পেই নগরীর নামটি অনেকেরই জানা! এটি এমন এক নগরী যেটি ধ্বংস হওয়ার সময় সেখানকার মানুষ চোখের পলক ফেলার সময়টুকু পায়নি। মুহূর্তেই মানুষগুলো ভস্মে পরিণত হয়েছিল। কিন্তু কেন এমন হলো? এ নগরী নিয়ে ইসলাম ধর্মের পবিত্র কোরআনে আয়াত নাজিল হয়েছে।

ইতালির কাম্পানিয়া অঞ্চলের নেপলসের (নাপোলি) কাছে যে আগ্নেয়গিরি রয়েছে তার পাদদেশে ‘পম্পেই’ নামক ছোট্ট নগরীটি অবস্থিত। হাজার বছরের পুরনো একটি শহর এটি। আজ থেকে প্রায় দুই হাজার আশি বছর আগে পম্পেই নামক নগরটি রোমানদের দ্বারা অধিকৃত হয়। সেই থেকে রোমানরা সেখানে বসবাস শুরু করে। অভাব নামক শব্দটি হয়তো তাদের কাছে ছিল একদমই অপরিচিত।

প্রাকৃতিক সম্পদ ও সৌন্দর্যের এক অপার লীলাভূমি ছিল এ নগরটি। সে সময়কার পৃথিবীর সব থেকে সুখী নগরী ছিল এটি। কিন্তু পম্পেই নগরীর মানুষগুলো ছিল অত্যন্ত বর্বর, অসভ্য ও নির্মম। তারা যে আগ্নেয়গিরির পাদদেশে বসবাস করত সেই আগ্নেয়গিরির আগুন ও ছাই এক মুহূর্তে ধ্বংস করে দেয় নগরীটি। সেখানকার প্রতিটি মানুষ, পশুপাখিসহ সব জীবন্ত প্রাণের স্পন্দন চোখের পলকে ভস্মীভূত হয়ে যায়।
তবে শুধু পম্পেই নয়, এমন অভিশাপের কবলে পড়েছিল বিশে^র আরও কিছু শহর। যার দুঃসহ স্মৃতি নিয়ে ধ্বংসাবশেষের মধ্যে আজো দাঁড়িয়ে আছে সেই নগরী। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দেখা দিয়েছে সবুজ প্রাণ। তেমনই নিউজিল্যান্ডের ওয়াইরোয়া’ নগরী। একে বলা হয় নিউজিল্যান্ডের ‘পম্পেই’। কারণ পম্পেই-এর মতো এই জনপদও নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছিলে অগ্ন্যুৎপাতে। ১৮৮৬ খ্রিস্টাব্দের ১০ জুন মাউন্ট তারাওয়েরার অগ্ন্যুৎপাতের গ্রাসে চলে গিয়েছিল এই জনপদ।

ধ্বংসলীলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন অন্তত ১২০ জন। অতীতের এই জনপদ আজ দাঁড়িয়ে আছে পরিত্যক্ত, ভৌতিক শহর হয়ে।