প্রথম মহামারী

ঢাকা, রবিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১ | ৩ মাঘ ১৪২৭

প্রথম মহামারী

ডেস্ক রিপোর্ট ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২১

print
প্রথম মহামারী

করোনাভাইরাসের আগেও বারবার মানবসভ্যতার ওপরে আঘাত হেনেছে মহামারী। ৫৪১ খ্রিস্টাব্দে প্লেগ ৫ কোটি মানুষের জীবন কেড়েছিল। এর পর আবার ১৬৫ খ্রিস্টাব্দে সেই প্লেগই ৫০ লাখ মানুষের জীবন শেষ করে দিয়েছিল। কিন্তু প্যালিওজিনোমিক্সের গবেষণা বলছে, প্রায় ৫ হাজার বছর আগে, প্রস্তর যুগেই প্রথম মিলেছিল প্লেগের ব্যাকটেরিয়ার অস্তিত্ব। বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া প্রজাতির জীবাশ্ম থেকে ডিএনএ সংগ্রহ করে বিচার-বিশ্লেষণের মাধ্যমে বহু যুগের পুরনো অজানা তথ্য খুঁজে বের করাই বিজ্ঞানের এ শাখার কাজ।

একটা রোগের সংক্রমণ কীভাবে বিশ্বজুড়ে মানবসভ্যতায় বদল আনতে পারে, তা বুঝিয়ে দিয়েছে করোনাভাইরাস। মধ্যযুগের ব্ল্যাক ডেথের কথা সবারই জানা। কিন্তু প্রস্তর যুগের প্রথম মহামারী পলকে বদলে দিয়েছিল মানবসভ্যতার একটা গোটা অধ্যায়। ২০১৫ সাল পর্যন্ত গবেষকদের ধারণা ছিল, প্লেগ খুব বেশি হলে ৩ হাজার বছরের পুরনো একটা রোগ। কিন্তু প্যালিওজিনোমিক্সের গবেষণা বলছে, প্রায় ৫ হাজার বছর আগে, প্রস্তর যুগেই প্রথম মিলেছিল প্লেগের ব্যাকটেরিয়ার অস্তিত্ব। প্রস্তর যুগের একপাটি দাঁতের জীবাশ্মের ডিএনএ বিশ্লেষণে মিলেছে এই ব্যাকটেরিয়ার সন্ধান। ইউরোপজুড়ে ব্ল্যাক ডেথের আতঙ্ক ছড়ানো প্লেগের জীবাণু আর প্রস্তর যুগের প্লেগের জীবাণু চরিত্রগতভাবে কিছুটা আলাদা। প্লেগের জীবাণু খুব সহজে র‌্যাট ফ্লির মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় মহামারীর রূপ নিতে বেশি সময় লাগেনি। কিন্তু প্রস্তর যুগে প্লেগের ব্যাকটেরিয়া পতঙ্গবাহিত ছিল না। মানুষ ও পশুর সহাবস্থানের কারণেই প্রস্তর যুগের প্লেগ সহজে ছড়িয়ে পড়েছিল। আর এটাই সম্ভবত মানবসভ্যতার প্রথম মহামারী।