পরিত্যক্ত নগরী

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১ | ৫ মাঘ ১৪২৭

পরিত্যক্ত নগরী

ডেস্ক রিপোর্ট ১০:০২ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০১, ২০২০

print
পরিত্যক্ত নগরী

বিশ্বের অনেক দেশেই রয়েছে পরিত্যক্ত শহর। যা একসময় ছিল জাঁকজমক নগরী। যে শহরের রাস্তা সারাদিন মানুষের পদচারণায় মুখর থাকত। কালের বিবর্তনে তা আজ শুধুই স্মৃতি। তেমনই একটি নগরী হেগ্রা। সৌদি আরবের আল-উলা শহরের উত্তরে খোদাইকৃত পাথর ও প্রাসাদের জন্য বিখ্যাত প্রত্নতাত্ত্বিক শহর হেগ্রা। এ অঞ্চলকে মাদা’য়েন সালেহ এবং আল-হিজর নামেও ডাকা হয়। প্রায় দুই হাজার বছর জনমানবহীন থাকার পর প্রথম বারের মতো পর্যটকদের জন্য প্রাচীন এই শহরটি উন্মুক্ত করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব।

এ শহর একসময় জমজমাট বাণিজ্য কেন্দ্র ছিল। খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতক থেকে ১০৬ খ্রিস্টাব্দ বছর পর্যন্ত টিকে থাকা নবতায়িয়ান সভ্যতার দ্বিতীয় রাজধানী ছিল হেগ্রা। প্রায় দুই হাজার বছর ধরে পরিত্যক্ত এ অঞ্চল ছিল অন্য আর দশটা নগরীর মতোই ব্যস্ত নগরী। নবতায়িয়ান শাসকরা বর্তমান জর্ডানের পেত্রা নগরী থেকে শাসনকার্য পরিচালনা করতেন। এ অঞ্চলের স্থাপত্যগুলো মেসোপটেমীয় ও গ্রিক সভ্যতা থেকে অনুপ্রাণিত। নবতায়িয়ান সভ্যতা পাথরের খোদাই করা কাজ ও স্মৃতিস্তম্ভের জন্য বিখ্যাত। হেগ্রাই সৌদি আরবের প্রথম ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী অঞ্চল।