নেপালি মাদার তেরেসা

ঢাকা, রবিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১ | ৪ মাঘ ১৪২৭

নেপালি মাদার তেরেসা

ডেস্ক রিপোর্ট ১০:২৯ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২০

print
নেপালি মাদার তেরেসা

মাদার তেরেসার কথাতো সবারই জানা। তবে আজ এমন একজন নারীর কথা জানব যিনি মাদার তেরেসার মতোই অন্যের জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছেন। মহীয়সী সেই নারীর নাম অনুরাধা কৈরালা। ১৯৪৯ সালের ১৪ এপ্রিল তার জন্ম। ভারতের কালিম্পং জেলার একটি হিল স্টেশনে পড়াশোনা করেছেন তিনি। পেশায় ছিলেন একজন শিক্ষক। নব্বইয়ের দশকের দিকের ঘটনা এটি, চারপাশে নারী ও শিশু পাচার, যৌন নির্যাতন এসব তাকে খুব ভাবাতো।

 

১৯৯৩ সালে অনুরাধা ‘মাইতি নেপাল’ নামক একটি অলাভজনক সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন। বিগত ২৬ বছর ধরে নির্যাতিত নারী এবং শিশুদের জন্য এই সংস্থাটি কাজ করে চলেছে। নেপালি ভাষায় ‘মাইতি’ শব্দের অর্থ ‘মায়ের বাড়ি’। ২০ বছর শিক্ষকতা করার পর ১৯৯৩ সাল থেকে নারী-শিশু পাচার এবং মাইতি নেপাল প্রতিষ্ঠার কাজে পুরোপুরি নেমে পড়েন তিনি। তার চেষ্টা বিফলে যায়নি। মাইতি নেপাল এর বর্তমানে ৩টি নিবারণ কেন্দ্র, ১১টি পরিবহন কেন্দ্র, দুটি ধর্মশালা এবং একটি স্কুল রয়েছে। যেসব নারী ও শিশু ধর্ষণের স্বীকার হয় তাদের আশ্রয়ের পাশাপাশি মানসিক সুস্থতা নিশ্চিতে কাজ করে তারা। যারা এইচ আইভি ভাইরাসে আক্রান্ত সংস্থাটি তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থাও করে। অনুরাধা তার সংস্থার সহায়তায় নারী-শিশু পাচার করার জন্য নেপালের বর্ডারে কয়েকটি পরিত্রাণ কেন্দ্র স্থাপন করেছেন। ভারত ও নেপালের বর্ডারে এরকম প্রায় ২৬টি কেন্দ্র আছে। ১৮ হাজারের বেশি নারীকে সংস্থাটি পাচারের হাত থেকে বাঁচিয়েছে।