ডাইনোসরের উষ্ণ রক্ত

ঢাকা, সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০ | ২৮ আষাঢ় ১৪২৭

ডাইনোসরের উষ্ণ রক্ত

ডেস্ক রিপোর্ট ১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০

print
ডাইনোসরের উষ্ণ রক্ত

ডাইনোসরের ডিমের জীবাশ্ম পরীক্ষা করে ইয়েল বিশ^বিদ্যালয়ের এক গবেষকদল জানিয়েছে, বিলুপ্ত এই প্রাণী সম্পর্কে জনগণের প্রচলিত ধারণাগুলো অনেকাংশে ভুল। গবেষকরা বলেছেন, রীতিমতো উষ্ণ রক্ত বইত ডাইনোসরদের শরীরে।

তারা বলেছেন, সাধারণ মানুষের ধারণা ডাইনোসরের ঠাণ্ডা রক্ত, খসখসে চামড়ার ভয়ঙ্কর প্রাণী। তবে তাদের ঠাণ্ডা রক্ত নয়। মেটাবলিজমের মাধ্যমে পরিবেশের নিরিখে দেহের উষ্ণতা বাড়ানোর বৈশিষ্ট্যটি ডাইনোসরদের ছিল। বিশ^বিদ্যালয়টির প্রধান গবেষক রবিন ডসন এমনটি বলেছেন।

গবেষণাপত্রটি সম্প্রতি ‘জার্নাল অব সায়েন্স অ্যাডভান্সেস’ এ প্রকাশিত হয়েছে। গবেষণার জন্য তিন গোত্রের ডাইনোসরের ডিমের খোলসের জীবাশ্ম পরীক্ষা করেছেন গবেষকরা। গোত্র তিনটি হলো- মাংসাশী ট্রুডন, দুই নিরামিশাষী মাইয়াসরাস ও দৈত্যাকার মেগালুলিথাস।

তাদের ডিমের খোলসের জীবাশ্ম বিশ্লেষণ করে ওই গবেষকদল এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন, ঠাণ্ডা রক্তের তত্ত্বকে সত্য ধরে নেওয়ার কোনো কারণ নেই। রবিন ডসনের মতে, বিবর্তনের দিক থেকে দেখলে উষ্ণ রক্তের পক্ষীকুল ও শীতল রক্তের সরীসৃপের মাঝামাঝি পর্যায়ে রয়েছে ডাইনোসররা। গবেষণা অনুযায়ী, তাদের প্রধান গোষ্ঠীগুলোর সবারই শরীরের তাপমাত্রা পারিপাশ্বিকের তুলনায় উষ্ণতর ছিল।