কুমারগাঁও বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে মেরামত চলছে

ঢাকা, সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১ | ৫ মাঘ ১৪২৭

কুমারগাঁও বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে মেরামত চলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক ১১:৩৮ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০২০

print
কুমারগাঁও বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে মেরামত চলছে

সিলেটের কুমারগাঁও বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে ভয়াবহ আগুন লাগার ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও এখনো বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করতে পারেনি কেন্দ্রটি। ১৮ নভেম্বর, বুধবার বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করতে না পারায় ভোগান্তিতে পড়েছেন গ্রাহকরা। মেরামতের কাজ করছে। ১৭ নভেম্বর, মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে সঞ্চালন লাইনে আগুন লেগে মূল দুটি ট্রান্সফরমার পুড়ে যায়। এতে জাতীয় গ্রিড সঞ্চালন লাইনের নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে বিপর্যয় দেখা দেয়। 

টানা ২৩ ঘণ্টার চেষ্টায় শুধুমাত্র সুনামগঞ্জ জেলায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া সম্ভব হয়েছে। কিন্তু সিলেট মহানগরীসহ আশেপাশের বেশ কয়েকটি উপজেলা এখনো বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে কত সময় লাগবে তাও বলতে পারছেন না কর্তৃপক্ষ।


১৭ নভেম্বর, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কুমারগাঁও ১৩২/৩৩ কেভি সঞ্চালন গ্রিড উপকেন্দ্রে এ আগুন লাগে। এতে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে পুরো সিলেট। উপকেন্দ্রটিতে আগুন লাগার পর প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। ফায়ার সার্ভিস জানায়, মোট ৫টি ইউনিট কাজ করেছে। উপকেন্দ্রে থাকা ট্রান্সফরমারের তেলের কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সময় লাগে বলেও জানানো হয়।

পিডিবির পরিচালক (জনসংযোগ) সাইফুল হাসান চৌধুরী গণমাধ্যমকে জানান, উপকেন্দ্রের মাধ্যমে পিডিবি দুইটি বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। একটি ২২৫ মেগাওয়াট, আরেকটি ২০ মেগাওয়াট। উপকেন্দ্রের আগুন এখন নিয়ন্ত্রণে এলেও ট্রান্সফরমার, সঞ্চালন লাইনসহ উপকেন্দ্রের অনেক কিছু পুড়ে যাওয়ায় সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাচ্ছে না আপাতত।

তিনি বলেন, কুমারগাঁও উপকেন্দ্র থেকে ছাতক, সুনামগঞ্জ এবং বিয়ানীবাজার উপকেন্দ্রে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। ফলে কুমারগাঁও বন্ধ করে দেওয়াতে ছাতক, সুনামগঞ্জ এবং বিয়ানীবাজার এলাকার সাবস্টেশনগুলোতে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সাইফুল হাসান চৌধুরী আরো জানান, কুমারগাঁও উপকেন্দ্রে চারটি ১৩২/৩৩ কেভি একটি ট্রান্সফরমার রয়েছে। এরমধ্যে একটি ট্রান্সফরমার পুড়ে গেলেও বাকি তিনটি ভালো আছে বলে আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে। এখন উপকেন্দ্রের অন্য তিনটি ট্রান্সফরমার পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। সেগুলো ঠিক থাকলে বিকেল নাগাদ বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে পারে।