সুনামগঞ্জে বন্যায় ক্ষতি হাজার কোটি টাকা

ঢাকা, রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০ | ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

সুনামগঞ্জে বন্যায় ক্ষতি হাজার কোটি টাকা

তানজেরুল ইসলাম ও শহীদনূর আহমেদ ১২:১২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০২০

print
সুনামগঞ্জে বন্যায় ক্ষতি হাজার কোটি টাকা

সুনামগঞ্জ জেলাজুড়ে বন্যা-পরবর্তী ক্ষয়ক্ষতির চিহ্ন। রাস্তা ভেঙেচুরে একাকার। পাড় খসে পড়েছে পুকুরের। ফসলের ক্ষেত এখন স্যাঁতসেঁতে কাদায় ভরা। কিছু কিছু জমি পরিণত হয়েছে ডোবায়। তিন দফা বন্যায় সড়ক, কৃষি, মৎস্যই নয়, সেতু, কালভার্ট, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন ধরনের অবকাঠামোর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

সরকারি প্রতিষ্ঠানের তথ্যমতে, এই ক্ষতির পরিমাণ এক হাজার কোটি টাকা। যদিও এর পরিমাণ আরও বেশি, দাবি এলাকাবাসীর। তারা বলছেন, ব্যবসায়িক খাত ছাড়াও ব্যক্তিগত পর্যায়ে অগণিত মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। 

সুনামগঞ্জ এলজিইডি দফতর সূত্রে জানা গেছে, তিন দফা বন্যায় জেলার মোট ৯০০ কিলোমিটারের বেশি গ্রামীণ ও আঞ্চলিক সড়কের ক্ষতি হয়েছে। বন্যার পানির প্রবল স্রোতে ৪০টি ব্রিজ ও কালভার্টের ক্ষতি হয়েছে। এতে ক্ষতির পরিমাণ ৪০০ কোটি টাকা।

প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাহবুব আলম জানান, বন্যা-পরবর্তী জরুরি রক্ষণাবেক্ষণের আওতায় ক্ষতিগ্রস্ত কিছু কিছু স্থানে সংস্কার হয়েছে। তবে যে পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা একসাথে মেরামত করা সম্ভব নয়।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বন্যায় বিভিন্ন সড়কের ৩৫ কিলোমিটার অংশ ভেঙে গেছে। এতে ক্ষতির পরিমাণ ৪০ কোটি টাকা।

নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জহিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, সুনামগঞ্জ-বিশ্বম্ভরপুর, সুনামগঞ্জ-সাচনাসহ কয়েকটি সড়কের বিভিন্ন স্থানে তাৎক্ষণিকভাবে সংস্কার করা হয়েছে। পর্যাক্রমে ক্ষতিগ্রস্ত সব সড়ক মেরামত করা হবে।

কৃষি বিভাগ বলছে, এ খাতে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৯ কোটি টাকা। বন্যা-পরবর্তী সময়ে কৃষকদের পুনর্বাসনে প্রতি উপজেলায় ২০০টি বীজতলার শেড তৈরি ও বিনামূল্য সার এবং বীজ বিতরণ করা হয়েছে বলে জেলার কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক মোস্তফা ইকবাল আজাদ জানান।

এ ছাড়া বন্যায় জেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোর ক্ষতি হয়েছে অন্তত ৩ কোটি এবং প্রাণিসম্পদ খাতে ক্ষতির পরিমাণ কমপক্ষে ২ কোটি টাকা বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সরকারি দফতরগুলো।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, জেলার ১১ উপজেলায় ৮ হাজার ৬৬৫টি পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। এতে ভেসে গেছে ২ হাজার ৯০০ টনের বেশি মাছ এবং ৪ লাখ ৬৫ হাজার পোনা। এতে সর্বমোট ক্ষতির পরিমাণ ৫২ কোটি ৯২ লাখ ৮৮ হাজার টাকা।

জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ বলেন, পর পর তিনদফা বন্যায় সুনামগঞ্জের সড়ক অবকাঠামো, মৎস্য, প্রাণিসম্পদ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোর ক্ষতি হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনাও করা হয়েছে।