দুর্ঘটনার বৃত্তে সিলেটের ট্রেন

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬

দুর্ঘটনার বৃত্তে সিলেটের ট্রেন

নিজস্ব প্রতিবেদক ও সিলেট ব্যুরো ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০১৯

print
দুর্ঘটনার বৃত্তে সিলেটের ট্রেন

ঢাকা থেকে সিলেটগামী রেল পথে দুর্ঘটনা যেন পিছু ছাড়ছে না। মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনায় চারজন নিহতের পর থেকে এক মাসে পাঁচবার দুর্ঘটনা ঘটেছে এই পথে। এরমধ্যে তিনবার লাইনচ্যুত হয়েছে ট্রেনের বগি। এসব ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। আর প্রত্যেকবারই কয়েক ঘণ্টা করে বন্ধ থাকে সিলেটের সঙ্গে সব রেল যোগাযোগ। ফলে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে ট্রেনে আটকাপড়া যাত্রীরা। ২০ জুন থেকে ২০ জুলাই পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে।

সর্বশেষ গতকাল শনিবার সকাল ৮টা ৫৫ মিনিটে সিলেট থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর কালনী এক্সপ্রেসের একটি বগি লাইনচ্যুত হয়ে যায়। ট্রেনটি মৌলভীবাজারে কুলাউড়া জংশন রেলস্টেশনে ঢোকার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আতঙ্কিত হয়ে অনেক যাত্রী ট্রেন থেকে লাফ দিয়ে বের হয়। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

কুলাউড়া জংশন রেলস্টেশনের সহকারী মাস্টার মুহিবউদ্দিন আহমদ বলেন, দুই ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ১০টা ৪০ মিনিটের দিকে সিলেটের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের রেল চলাচল আবার শুরু হয়েছে। কী কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে তা খতিয়ে দেখা হবে।

ঠিক একদিন আগে গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় সিলেট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস দুপুর ১২টায় কুলাউড়া রেলওয়ে স্টেশন প্লাটফর্মে প্রবেশের আগ মুহূর্তে লাইনচ্যুত হয়। এ ঘটনায় কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন বলে আহত যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। যদিও কারও আহত গুরুতর ছিল না। দুই ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর দুপুর ২টার দিকে কুলাউড়া রেল স্টেশন ছেড়ে যায় জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস।

এই ক্রসিং পয়েন্টের সমস্যা এলাকাবাসী অনেক আগে থেকেই দেখে আসছে এবং এটি মেরামতের দাবি করে এলেও কর্তৃপক্ষ রেললাইনের এসব ত্রুটি গুরুত্ব দিয়ে দেখেনি। তাই আবারো বড় ধরনের রেল দুর্ঘটনার শিকার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন কুলাউড়াবাসী।

কুলাউড়া স্টেশন মাস্টার মো. মুহিবউদ্দিন বলেন, লাইনচ্যুত বগিটি রেখে প্রায় ২ ঘণ্টা পর আন্তঃনগর কালনি এক্সপ্রেস ট্রেন ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। ঘটনাটি স্টেশনের ভেতরে ঘটায় রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকেনি, তবে বরমচাল স্টেশনে কিছু সময় জয়ন্তিকা অবস্থান করে, কারণ এই সময় আমরা লাইন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করি। এর আগে গত ৭ জুলাই গরুর সঙ্গে ধাক্কা লেগে ঢাকাগামী আন্তঃনগর টেন জয়ন্তিকার ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।

গত ১৭ জুলাই ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর ট্রেন কালনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া আসার পর ছিঁড়ে যায় ব্রেকের তার। প্রায় ১ ঘণ্টা সময় ক্ষেপণ শেষে বেশি করে তার লাগিয়ে জোড়াতালি দিয়ে সিলেটের উদ্দেশে ছেড়ে যায় ট্রেনটি। সর্বশেষ গত শুক্রবার দুপুর ১২টা ১০ মিনিটে কুলাউড়া আউটার সিগন্যালের কাছে জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটির একটি বগি লাইনচ্যুত হয়।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় চট্টগ্রাম মেইল ট্রেনের ত্রুটিজনিত কারণে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রাম-সিলেট রেলপথে ৪ ঘণ্টা ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ ছিল। বৃহস্পতিবার রাতের এ ঘটনায় দুদিক থেকে ট্রেন এসে বিভিন্ন স্টেশনে আটকে পড়ায় যাত্রীরা দুর্ভোগ পোহায়। পরে উদ্ধারকারী ট্রেন এসে ত্রুটিপূর্ণ ইঞ্জিনটি উদ্ধার করলে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী চট্টগ্রাম মেইল ট্রেনের ইঞ্জিনটি কসবা রেলওয়ে স্টেশনের আউটারে এসে বিকল হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে আখাউড়া রেল জংশন থেকে উদ্ধারকারী রিলিফ ট্রেন এসে উদ্ধারকাজ শুরু করে।

এরও আগে গত জুনে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় সিলেট থেকে ঢাকাগামী উপবন এক্সপ্রেসের কয়েকটি বগি লাইনচ্যুত হয়ে এখন পর্যন্ত তিন নারীসহ অন্তত চারজন নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হন আরও দুই শতাধিক মানুষ। ২৪ জুন রাত সাড়ে ১১টায় মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল এলাকায় উপবন এক্সপ্রেসের ১০টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে যায়। এর মধ্যে একটি কালভার্টের ওপর থেকে ছিটকে খালে পড়ে।