বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অপেক্ষা বাড়ছেই

ঢাকা, সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১ | ৬ বৈশাখ ১৪২৮

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অপেক্ষা বাড়ছেই

ক্রীড়া ডেস্ক ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ০৩, ২০২১

print
বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অপেক্ষা বাড়ছেই

প্রথমবারের মতো অনূর্ধ্ব ১৯ নারী বিশ্বকাপ, তার স্বাগতিক হওয়ার কথা বাংলাদেশের। তবে তাতে বাঁধ সেধেছে করোনা মহামারী। এ কারণে আরও একদফা পিছিয়ে গেছে নারী ক্রিকেটের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই আসর।

নতুন সূচি অনুসারে ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টটি। চলতি বছরের জানুয়ারিতে হওয়ার কথা ছিল অনূর্ধ্ব ১৯ নারী বিশ্বকাপ। কিন্তু করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে পিছিয়ে চলতি বছরের শেষে নিয়ে যাওয়া হয়। সম্প্রতি আইসিসির এক বৈঠকে আরও একবার পিছিয়েছে টুর্নামেন্টটি। ফলে বাংলাদেশের নারী বিশ্বকাপ আয়োজনের অপেক্ষা বাড়ল আরও এক বছরের জন্য।

অনিল কুম্বলের নেতৃত্বে সম্প্রতি আইসিসি ক্রিকেট কমিটির এক বৈঠকে নেওয়া হয়েছে এ সিদ্ধান্ত। বৈঠকটি শেষে এক বিবৃতিতে বিষয়টি জানিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটি। সঙ্গে পিছিয়ে গেছে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বও। বিবৃতিতে বলে হয়, ‘২০২১ সালে নারীদের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। এ বছর ডিসেম্বরে যেটা হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশে। কিন্তু করোনা অনেক বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে এখানে।’

কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে প্রস্তুতির অভাবকে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘অনেক দেশই পুরোদমে প্রস্তুতি নিতে পারেনি। এসব কিছু বিবেচনা করে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি টুর্নামেন্টটিকে পিছিয়ে দেয়ার। নতুন সূচিতে টুর্নামেন্টটি আয়োজন করা হবে ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে।’

নারী যুব বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ায় চলতি বছরে একটা ফাঁকা সময় সৃষ্টি হয়েছে। এ শূন্যস্থানটা আইসিসি পূরণ করছে নারী বিশ্বকাপ দিয়ে। ২০২২ সালের নারী বিশ্বকাপকে এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে।

এদিকে কিছু পরিবর্তনও আসছে নারী ওয়ানডে ক্রিকেটের নিয়মে। আগে নারী ক্রিকেটে পাঁচ ওভারের বাধ্যতামূলক পাওয়ার-প্লের নিয়ম ছিল, সর্বশেষ বৈঠকে শিথিল করা হয়েছে যা। আর নারী ক্রিকেটে কোনো ম্যাচ টাই হলে ফলাফল নির্ধারিত হবে সুপার ওভারে।