করোনায় স্থগিত হওয়া টেস্ট সিরিজ নিয়ে ভিন্ন চিন্তা আইসিসির

ঢাকা, শনিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২০ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

করোনায় স্থগিত হওয়া টেস্ট সিরিজ নিয়ে ভিন্ন চিন্তা আইসিসির

ক্রীড়া প্রতিবেদক ৭:৩৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০২০

print
করোনায় স্থগিত হওয়া টেস্ট সিরিজ নিয়ে ভিন্ন চিন্তা আইসিসির

গেল মার্চ থেকে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গন থমকে যায়। থমকে যায় ক্রিকেট লড়াই। গেল ৮ জুলাই দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ দিয়ে ক্রিকেটকে মাঠে ফেরায় ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। তবে ক্রিকেটের পুর্নজন্মের আগে বেশক’টি টেস্ট সিরিজ স্থগিত হয়েছে।

টেস্ট সিরিজগুলো আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের অংশ। যা ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) নিয়ন্ত্রন করছে। আইসিসি পরিকল্পনা ছিলো আগামী বছরের জুনে এই আসর শেষ করবে। কিন্তু এখন বিপাকে পড়েছে আইসিসি। হাতে সময় না থাকায়, স্থগিত হওয়া সিরিজগুলো নিয়ে ভিন্ন চিন্তা শুরু করছে আইসিসি। আর তাহল- স্থগিত ম্যাচ বা সিরিজগুলোতে পয়েন্ট ভাগাভাগির কথা ভাবছে আইসিসি।

আগামী মাসে দুবাইয়ে হবে আইসিসির ক্রিকেট কমিটির সভা। ঐ সভায় বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করবে আইসিসি। সেখানে স্থগিত হওয়া সিরিজ নিয়েও আলোচনা হবে। একটি সূত্র বলছে, টেস্ট সিরিজ নিয়ে বিকল্প ভাবনা রয়েছে আইসিসি ক্রিকেট কমিটির।

পয়েন্ট ভাগাভাগি ছাড়া আরো একটি বিকল্প উপায় ভাবছে আইসিসি। ২০২১ সালের মার্চের শেষ পর্যন্ত যেসব ম্যাচ বা সিরিজ হবে সেইসব ম্যাচের বা সিরিজের পয়েন্টের উপর ভিত্তি করে টেবিলের চূড়ান্ত অবস্থান নির্ধারন করা হবে। যতগুলো ম্যাচ খেলে কোন দল জিতবে, তার পয়েন্টের শতাংশ হিসেব করেই টেবিলে তাদের অবস্থান চূড়ান্ত করা হবে।

আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের নিয়মনুযায়ী প্রতিটি সিরিজেই পয়েন্ট ১২০। সেটি যতটি ম্যাচের সিরিজই হোক না কেন, জয়-ড্র-হারের জন্য পয়েন্ট বন্টন করা হয়।

দুই ম্যাচের সিরিজে প্রতি ম্যাচে জয়ের জন্য ৬০ পয়েন্ট। ড্র’র জন্য ৩০ পয়েন্ট।

তিন ম্যাচের সিরিজে জয়ের জন্য ৪০ ও ড্র’র জন্য ২০ করে পয়েন্ট দেয়া হয়।

চার ম্যাচের সিরিজে জয়ের জন্য ৩০ ও ড্র’র জন্য ১৫ করে পয়েন্ট বন্টন হয়। সর্বোচ্চ পাঁচ ম্যাচের সিরিজ হতে পারে। সেক্ষেত্রে প্রতি ম্যাচে জয়ের জন্য ২৪ ও ড্র’র জন্য ১২ পয়েন্ট পায় দলগুলো।