অনড় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড

ঢাকা, বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০ | ১২ কার্তিক ১৪২৭

অনড় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড

ক্রীড়া প্রতিবেদক ২:২৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০

print
অনড় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড

শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে তুলকালাম কাণ্ড বিসিবিতে। সাতদিনের কোয়ারেন্টিনে থাকার সুযোগ না দিলে শ্রীলঙ্কায় সফর সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপন। বিসিবি বসের এমন হুঙ্কারে বিস্ময় প্রকাশ করেছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। তারা নাকি সাতদিনের কোয়ারেন্টিন নিয়ে কোনো কিছুই জানেন না। শ্রীলঙ্কা বোর্ড সভাপতি শাম্মী সিলভার দাবি করেছেন, তারা বিসিবির সাতদিনের কোয়ারেন্টিন সম্পর্কে অবগত নন।

শ্রীলঙ্কার এক সংবাদ মাধ্যমকে শাম্মী সিলভা বলেন, ‘তারা যদি এটা বলে থাকে তাহলে তা সত্যি নয়। তারা কেন এক সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা বলছে আমি জানি না। স্বাস্থ্য বিভাগের নীতির বাইরে যাওয়ার সুযোগই আমাদের নেই। তাই বাংলাদেশ দলকে শ্রীলঙ্কা এসে ১৪ দিনই কোয়ারেন্টিন পালন করতে হবে।’

শুধু তাই নয়, শ্রীলঙ্কা যাওয়ার আগে থেকেই অর্থাৎ বাংলাদেশে থাকা অবস্থায়ই টাইগারদের কোয়ারেন্টিন পালন করতে হবে বলে জানিয়েছেন এসএলসি প্রধান। এ সময় ক্রিকেটারদের মোট তিনবার করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। সব পরীক্ষায় নেগেটিভ এলে তবেই মিলবে শ্রীলঙ্কার বিমানে চড়ার। শাম্মী সিলভা বলেন, বাংলাদেশে থাকা অবস্থায়ও তাদের কোয়ারেন্টিন পালন করতে হবে। কলম্বোয় পা রাখার সঙ্গে সঙ্গেই ১৪ দিন কোয়ারেন্টিন পর্ব শুরু হবে।’

শাম্মী সিলভা আরও জানিয়েছেন, শ্রীলঙ্কায় কোয়ারেন্টিন পর্বসহ বাংলাদেশ দলের যাবতীয় খরচ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটই বহন করবে।

এদিকে শ্রীলঙ্কা সফরকে ঘিরে আরেক ধাপ করোনা পরীক্ষা হবে আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর সেপ্টেম্বর। এরপরই আগামী ২১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়ার কথা জাতীয় দলের অনুশীলন। কিন্তু শ্রীলঙ্কা অনড় অবস্থানের পর টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর অনিশ্চিত হয়ে উঠেছে। শ্রীলঙ্কা অনড় অবস্থানের পর এখন বিসিবির সিদ্ধান্ত তারা দীপ রাষ্ট্রের সফর করবে কিনা। তবে এ নিয়ে সংশয় জাতীয় দলের চিকিৎসক দেবাশীষ।

তিনি বলেন, ‘আমরা তাকিয়ে আছি ক্রিকেট অপারেশন্সের দিকে। তারা দল ঘোষণা করলে আমরা সেই তালিকা অনুযায়ী ক্রিকেটারদের বাসার ঠিকানা ও লোকেশন দিয়ে দিতাম। বারডেম এক্সপার্টরা সবার করোনা টেস্ট করানোর কাজ করে আসবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত তো দলই ঘোষণা হয়নি।’

দেবাশীষ চৌধুরীর অনুমান, দল ঘোষণায় এ বিলম্বের কারণে তারা যে শ্রীলঙ্কা যাওয়ার আগে ১৮, ২১ আর ২৪ সেপ্টেম্বর তিন দফা করোনা টেস্ট করানোর পরিকল্পনা করে রেখেছিলেন, সেটা নাও হতে পারে।

বিসিবির প্রধান চিকিৎসকের ভাষায়, ‘কথা ছিল ১৮ সেপ্টেম্বর টেস্ট হবে সবার। ১৯ তারিখ রিপোর্ট মিলবে। যারা নেগেটিভ হবে তারা সবাই ২০ সেপ্টেম্বর হোটেলে উঠবে। যেহেতু আজ (বুধবার) পর্যন্ত দল ঘোষণা হয়নি বা আমরাও খেলোয়াড় তালিকা পাইনি, তাই এখন মনে হচ্ছে ১৮ সেপ্টেম্বর প্রথম করোনা টেস্ট নাও হতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘১৮ সেপ্টম্বর টেস্ট না হলে শ্রীলঙ্কা সফরের আগে যে আরও দুই দফা টেস্ট করানোর পরিকল্পনা করে রেখেছিলাম, সেটা নিয়েও জটিলতা দেখা দিতে পারে। কারণ আমরা আগে ঠিক করে রেখেছিলাম, ১৮’র পর দ্বিতীয় টেস্ট হবে ২১ আর তৃতীয় ও সর্বশেষ টেস্ট করানো হবে ২৪ সেপ্টেম্বর। কিন্তু খেলোয়াড় তালিকা না পেলে প্রথম টেস্ট যদি যথাসময়ে না হয়, তাহলে বাকি টেস্টের মাঝখানের সময়টা কমে যাবে। এখন ২০ তারিখে করোনা টেস্ট করলে রিপোর্ট আসবে ২১ সেপ্টেম্বর। সেদিন তো আর পরের ধাপের টেস্ট করানো সম্ভব না।’

আসলে ওই তিন ধাপ করোনা টেস্টও কিন্তু শ্রীলঙ্কা যাওয়ার আগে ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফ ও সাপোর্টিং স্টাফদের কোনো ঝুঁকি আছে কি না, তা জানার জন্যই করার কথা ছিল। এখন যেখানে সফরই অনিশ্চিত, শেষ পর্যন্ত কি হয় সেটাই দেখার।