ঘরের মাঠে জয়ে মরিয়া বাফুফে

ঢাকা, শুক্রবার, ৭ আগস্ট ২০২০ | ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭

বাড়িয়েছে ফুটবলারদের কোচিং প্যানেল

ঘরের মাঠে জয়ে মরিয়া বাফুফে

ক্রীড়া প্রতিবেদক ১২:৩০ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০২০

print
ঘরের মাঠে জয়ে মরিয়া বাফুফে

গত বারো বছর ফুটবলের সর্বোচ্চ গদিতে বসে দেশের ফুটবলের খুব একটা উন্নতি দেখাতে পারেননি কাজী সালাউদ্দিন। আর তাই মেয়াদোত্তীর্ণ সময়ে অর্থাৎ নির্বাচনের আগে ফুটবলারদের দিয়ে কিছু একটা করাতে মরিয়া তিনি। আর সেটি হচ্ছে হোমে আসন্ন বিশ^কাপ বাছাই পর্ব ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে ম্যাচ জয়ের মতো কিছু চমক দেখানো। তাতেই অন্তত দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া সালাউদ্দিনে মুখ কিছুটা রক্ষা। এজন্য তিনি ফুটবলারসহ কোচিং স্টাফদের ওপর কড়া নজরদারি করছেন। ফুটবলারদের বলেছেন, ‘ঐ ম্যাচগুলোর দিকে তাকিয়ে দেশের মানুষ। কী করতে হবে সেটা তোমরা ভালো করেই জানো।’

আর এদিকে দলের জন্য কোচিং লাইন মজবুত করতে বাড়ালেন তিনি কোচিং স্টাফ। প্রধান কোচ জেমি ডে’র সঙ্গে রাখা হচ্ছে আরও ৪ ভিনদেশি কোচ। এতে অন্তত যদি ম্যাচের জয় মিলে। বিশ্বকাপে বাছাইয়ের খেলার সম্ভাবনা উড়ে গেলেও এখনো সম্ভাবনা জিইয়ে রয়েছে এশিয়ান কাপে পরের রাউন্ডে উঠার সম্ভাবনা। সে ক্ষেত্রে দুই ম্যাচের জয় হলেই চলে।

বাংলাদেশের সঙ্গে খেলা আছে ভারত ও আফগানিস্তান। ঘরের মাঠে হারাতে হবে এ দুটি দলকে। তবেই ২০২৩ সালে চীনে অনুষ্ঠিতব্য এশিয়ান কাপে খেলার সুযোগ মিলবে বাংলাদেশের। বাছাইপর্ব থেকে ২৩টি দেশ এশিয়ান কাপের জন্য কোয়ালিফাই করবে। বাংলাদেশের সামনে বাকি চার ম্যাচের তিনটি ঘরের মাঠে বলে বাফুফেও জাতীয় দলকে সর্বোচ্চ সাপোর্ট দিয়ে ভালো ফলাফল বের করার চেষ্টা করছে।

আর তাই ভিনদেশি ফিটনেস কোচ, একজন ফিজিও, একজন গোলরক্ষক কোচ এবং একজন ম্যাচ বিশ্লেষকও পাচ্ছেন জামাল ভূঁইয়ারা। আগষ্টের মাঝামাঝি সময়ে কোচ জেমি ডে ও তার সহকারী স্টুয়ার্ট আসছেন। ইংল্যান্ড থেকে আসবেন বাকি চারজনের তিনজন। ম্যাচ বিশ্লেষক কাজ করবে ইংল্যান্ডে বসেই।

কোচ জেমি ডে ইংল্যান্ড থেকে বলছিলেন, ‘আমি আসার আগেই ক্যাম্প শুরু হচ্ছে। ঐ কয়দিন স্থানীয় কোচ তাদের অনুশীলন করাবেন। আশা করছি, আমি দায়িত্ব নেওয়ার সময় আরও কয়েকজন কোচিং স্টাফে যোগ হবেন। তাদের মধ্যে ফিটনেস কোচ তো থাকবেনই। সেই সঙ্গে ফিজিও, গোলরক্ষক কোচ এবং ম্যাচ বিশ্লেষক। ফ্লাইট পাওয়া সাপেক্ষে তাদের তিনজন ঢাকায় যাবেন। একজন কাজ করবেন ইংল্যান্ড থেকেই।’

এদিকে বিষয়টি নিয়ে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক মো. আবু নাইম সোহাগ বলেছেন, ‘আমরা ঈদের ছুটির মধ্যে সব চূড়ান্ত করে ফেলব। চেষ্টা থাকবে জেমি ও স্টুয়ার্টের সঙ্গেই নতুন চারজনের তিনজনকে ঢাকায় নিয়ে আসতে। আমাদের কয়েকজনের সঙ্গে কথাবার্তা চলছে। সবাই ইংল্যান্ডের। তাদের মধ্য থেকে বাছাই করে ৪ জনের সঙ্গে ৩ মাসের জন্য চুক্তি করব।’

উল্লেখ্য আগামী ৫ আগষ্ট থেকে প্রাথমিক তালিকায় থাকা ৩৬ ফুটবলার ক্যাম্পে ওঠা শুরু করবেন। তিন দিনে ১২ জন করে তিনদিনে উঠবেন গাজীপুরের সারা রিসোর্টে। দুই প্রবাসী ফুটবলার জামাল ভূঁইয়া ও তারিক রায়হান কাজীকে শেষ দিন অর্থাৎ ৭ আগষ্ট ক্যাম্পে যোগ দিতে বলা হয়েছে।