দলকে ২০১৫ তে ফিরিয়ে নিতে চান তামিম

ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

দলকে ২০১৫ তে ফিরিয়ে নিতে চান তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক ৯:০৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০২০

print
দলকে ২০১৫ তে ফিরিয়ে নিতে চান তামিম

মাঠে খেলা নেই। তবুও খেলোয়াড়দের সামনে মনের অজান্তেরই চলে আসে সেই খেলা নিয়ে নানা কথা। এটা কেমন হলো, ওটা কেমন হলো, অতীত নিয়ে আরও কত কি! যা নিউজ পোর্টাল ক্রিকইনফে’তে তামিমকে নিয়ে প্রকাশ করা হল।

তামিমকে নিয়ে আলোচনা বলতে সেই আফগানিস্তান, ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে নাজুক বাংলাদেশের ব্যাটিং চিত্র। তারও আগে টাইগারদের স্মরণীয় বছর বলতে সেই ২০১৫ সালটি।

ওই বছরেই ঘরের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজে পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ভারতের মতো দলকে পরাজিত করার সুদিনগুলো। সেখান থেকেই বাংলাদেশ এই ফরম্যাটে ধারাবাহিকভাবে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট খেলে আসছে। কিন্তু ২০১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পর থেকে আবারও কিছুটা ছন্দপতন। যদিও টাইগারদের নতুন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের প্রথম লক্ষ্যই এখন দলের হারানো আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনা।

ইতিমধ্যে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তেমনি নিদর্শন দেখতেও পেয়েছেন মুশফিক এবং লিটন কুমার দাসের ব্যাটিং নৈপুন্যে।

নিউজ পোর্টাল ক্রিকইনফোতে তিনি তেমনি কথাই শোনালেন, ‘একটি বড় জয় এই দলকে অনেক সাহস দেবে। আপনি যখন ম্যাচ জিততে শুরু করেন, আপনি তখন আত্মবিশ্বাস খুঁজে পাবেন। ২০১৫ সালে আমরা যখন পাকিস্তানকে ৩-০ ব্যবধানে পরাজিত করেছিলাম, তখন আমরা বিশ্বাস করতে শুরু করেছি, আমরা পারবো। আমরা বিশ্বাস করতে শুরু করি যে, ২৫০ রানের স্কোর ডিফেন্ড করতে পারবো কিংবা তিনশ’র অধিক রানের টার্গেট তাড়া করতে পারবো। পাকিস্তানকে হারানোর পরে আমরা বিশ্বাস করেছিলাম আমরা ভারত এবং তারপরে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারাতে পারি। আমরা যদি এই মানসিকতা গড়ে তুলতে পারি তবে ক্রিকেটাররা আবার আত্মবিশ্বাস খুঁজে পাবে।’

মুশফিককে নিয়ে ওয়ানডে অধিনায়ক বলেন, ‘মুশফিকুর রহিম একটি ভালো উদাহরণ হতে পারে। সে কোনো ফরম্যাটে কখনও সন্তুষ্ট হয় না।

তার যখন খারাপ সময় যায় তখন সে খুব চেষ্টা করে সেটা থেকে বের হয়ে আসতে। তবে যখন সে আবার ভালো করে তখন ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করতে চায়। সবাই যদি এভাবেই চিন্তা করে তবে অধিনায়ক, কোচ এবং সিনিয়র খেলোয়াড়দের পারফর্ম করাটা সহজ হয়ে যায়।’

লিটনকে নিয়ে তামিম বলেন, ‘লিটন দাস যখন ৭০ কিংবা ৮০-তে আউট হয়ে যায়, এরপরে তার প্রতিক্রিয়া এবং আচরণটাই ভিন্ন হয়। সম্প্রতি ১৭০ (১৭৬ হবে) রানের রেকর্ড ব্রেকিং ইনিংস খেলেছে। তবে এটা করার পরেও লিটন আরও ভালো করতে চায়। আমি তার মধ্যে অনেক ক্ষুধা দেখতে পাচ্ছি। আমি আশা করি প্রত্যেকে একই পথ অনুসরণ করবে।’