আক্রান্ত দিবালা-মালদিনি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৯ আশ্বিন ১৪২৭

করোনা ভাইরাস

আক্রান্ত দিবালা-মালদিনি

ক্রীড়া ডেস্ক ১২:৪৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০২০

print
আক্রান্ত দিবালা-মালদিনি

ইতালি ও এসি মিলানের কিংবদন্তি ফুটবলার পাওলো মালদিনির দেহে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে আক্রান্ত হয়েছেন তার ১৮ বছর বয়সী সন্তান দানিয়েলও। বর্তমানে এসি মিলানের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালনরত মালদিনি ও তার সন্তান দুজনেই কোয়ারেন্টাইনে আছেন। এসি মিলানের পক্ষ থেকে এ তথ্য ঘোষণা করা হয়েছে। গত দুই সপ্তাহ ধরেই কিংবদন্তি ডিফেন্ডার ও তার সন্তান দুজনেই আইসোলেশনে ছিলেন। কিন্তু চলতি সপ্তাহে তাদের করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়। আপাতত ভাইরাস থেকে মুক্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত তাদের কোয়ারেন্টাইনেই থাকতে হবে।

মিলানের অনূর্ধ্ব-১৯ দলে রাইট উইঙ্গার হিসেবে খেলেন দানিয়েল এবং এই মৌসুমের শুরুর দিকে মূল দলের হয়েও অভিষেক হয়েছে তার। এদিকে এর আগে জুভেন্টাসের তৃতীয় খেলোয়াড় হিসেবে কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছেন পাওলো দিবালা। সেই সঙ্গে কদিন আগে ‘গুজব’ ছড়ালেও এবার সত্যি সত্যি আর্জেন্টিনার ফুটবল তারকা পাওলো দিবালা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত হয়েছেন তার বান্ধবী ওরিয়ানা সাবাতিনিও। গত শনিবার রাতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দিবালা এ কথা জানান। ইতালিয়ান ফুটবল লিগ সিরিআ’য় জুভেন্টাসের স্ট্রাইকার হিসেবে আক্রমণভাগের নেতৃত্বে রয়েছেন ২৬ বছর বয়সী এ আর্জেন্টাইন।

ফেসবুক পোস্টে দিবালা বলেন, সবাইকে জানাতে চাই যে আমরা কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফলাফল হাতে পেয়েছি এবং ওরিয়ানা ও আমার ফল পজিটিভ এসেছে।

সৌভাগ্যবশত দুজনেই ঠিকঠাক আছি। মেসেজ পাঠিয়ে আমাদের খোঁজখবর নেয়ায় ধন্যবাদ সবাইকে। ২৩ বছর বয়সী ওরিয়ানা আর্জেন্টিনার নন্দিত অভিনেত্রী, মডেল ও সংগীতশিল্পী। দিবালা এবার নিজেই তার এবং ওরিয়ানার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার তথ্য জানালেও সপ্তাহখানেক আগেই ছড়িয়েছিল এ খবর। তখন জুভেন্টাসের পক্ষ থেকে খবরটি ‘সত্য নয়’ বলে দাবি করা হয়। দিবালার ফেসবুক পোস্টে বিস্তারিত জানানো না হলেও সপ্তাহখানেক আগের খবরে ভেনিজুয়েলার সংবাদমাধ্যম ‘এল ন্যাশিওনাল’ দাবি করে, জুভেন্টাসের ডিফেন্ডার ড্যানিয়েল রুগানি করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর দিবালার শরীরেও এ ভাইরাস ধরা পড়েছে। ইন্টার মিলানের বিপক্ষে একটি খেলার সময় একই ড্রেসিংরুমে ছিলেন রুগানি-দিবালারা। তাদের সঙ্গে ছিলেন পর্তুগিজ মহাতারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোও। করোনার কারণে ইতালিয়ান লিগ বন্ধ করে দেয়া হলে রোনালদো পর্তুগালে ফিরে যান। শেষ খবর পর্যন্ত ইউরো কাপজয়ী এ তারকাও আছেন কোয়ারেন্টাইনে।

গত ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহানে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনা ভাইরাস এখন বৈশ্বিক মহামারী। চীন পরিস্থিতি কিছুটা সামাল দিয়ে উঠলেও অবস্থা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে ইতালিতেই। শনিবার পর্যন্ত দেশটিতে ৪ হাজার ৮২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায়ই প্রাণ গেছে ৭৯৩ জনের। সব মিলিয়ে বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস প্রাণ কেড়ে নিয়েছে প্রায় ১২ হাজার ৭৭৭ জনের। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা এখন ২ লাখ ৯৭ হাজার ৫৩৮।