হার দিয়ে বাংলাদেশের আসর শুরু

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬

হার দিয়ে বাংলাদেশের আসর শুরু

ক্রীড়া প্রতিবেদক ৯:৫৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২০

print
হার দিয়ে বাংলাদেশের আসর শুরু

সাদামাঠা উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। গ্যালারিও জমল না। সাদউদ্দিন-মামুনুলদের পারফরম্যান্স শুরুতে কিছুটা মুগ্ধতা ছড়ালেও পরে হয়ে গেল বিবর্ণ। ফিলিস্তিনের কাছে হেরে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ষষ্ঠ আসর শুরু করল বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গতকাল বুধবার ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে প্রতিযোগিতার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিনের কাছে ২-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ। গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে আগামী রোববার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলবে জেমি ডের দল। প্রতিশোধ নেওয়ার বদলে শুরুতেই হারের হতাশায় ডুবল বাংলাদেশ। গত আসরে ফিলিস্তিনের কাছে একই ব্যবধানে হেরে সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে গিয়েছিল দল।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে সর্বশেষ ওমান ম্যাচের দলে তিন পরিবর্তন এনে ফিলিস্তিন ম্যাচের একাদশ সাজান বাংলাদেশ কোচ। রিয়াদুল ইসলাম, বিপলু আহমেদ ও নাবীব নেওয়াজ জীবনের বদলে তপু বর্মণ, মামুনুল ইসলাম ও মতিন মিয়াকে খেলান তিনি। প্রতিপক্ষের রক্ষণে কাঁপন ধরাতে না পারলেও শুরু থেকে গোছালো ফুটবল খেলতে থাকে বাংলাদেশ। অষ্টম মিনিটে ডি বক্সের একটু বাইরে সাদউদ্দিন ফাউলের শিকার হলে ফ্রি-কিক পায় বাংলাদেশ। মামুনুলের ফ্রি-কিক বিপদমুক্ত করেন ডিফেন্ডাররা।

খেলার ধারার বিপরীতে ২৮তম মিনিটে প্রতি আক্রমণে গোল আদায় করে নেয় শারীরিক গঠনে ও গতিতে এগিয়ে থাকা ফিলিস্তিন। মাঝমাঠের একটু উপর থেকে মোহামেদ দারিয়াসের ডিফেন্সচেরা পাস ধরে গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানাকে একা পেয়ে ডান পায়ের নিখুঁত শটে জাল খুঁজে নেন খালেদ সালেম। একটু পর মামুনুলের বাঁকানো কর্নার ফিস্ট করে ফেরান ফিলিস্তিনের গোলরক্ষক। ৩২তম মিনিটে আরেকটি সুযোগ নষ্ট হয় বাংলাদেশের। রায়হান হাসানের লম্বা থ্রো ইনে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড় হেডের পর দূরের পোস্টে থাকা তপুও হেডে চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু চোট কাটিয়ে ফেরা এই ডিফেন্ডারের প্রচেষ্টা অল্পের জন্য বাইরে যায়। শেষ দিকে ফিলিস্তিনের মাহমুদ আবুরাদার শট ফিরিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ হতে দেননি রানা।

৫৭তম মিনিটে আরও পিছিয়ে পড়ে বাংলাদেশ। রাদোয়ান আবুকারাসের ক্রস লাফিয়ে উঠেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি ইয়াসিন খান। বল পেয়ে যান পেছনে থাকা লেথ খারৌব। ঠাণ্ডা মাথায় জাল খুঁজে নেন ফিলিস্তিনের এই ফরোয়ার্ড। দ্বিতীয়ার্ধের ১০ মিনিট বাকি থাকতে মিডফিল্ডার মামুনুলকে তুলে নিয়ে ফরোয়ার্ড মাহবুবুর রহমান সুফিলকে নামান কোচ। কিন্তু গোল অধরাই থেকে যায়।