মাশরাফিকে আনুষ্ঠানিক বিদায় দিতে চায় বিসিবি

ঢাকা, শুক্রবার, ৭ আগস্ট ২০২০ | ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭

মাশরাফিকে আনুষ্ঠানিক বিদায় দিতে চায় বিসিবি

ক্রীড়া ডেস্ক ১১:৪১ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২০

print
মাশরাফিকে আনুষ্ঠানিক বিদায় দিতে চায় বিসিবি

দিন কয়েক আগেই মাশরাফি বিন মর্তুজা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, মাঠ থেকে বিদায় নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে এখনো ভাবেননি কিছু। তবে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান আবারও জানিয়ে রাখলেন, মাশরাফি চাইলে তাকে আড়ম্বরপূর্ণ আয়োজনে বিদায় জানাবে বোর্ড।

 

মাশরাফির বিদায় দেশের ক্রিকেটের অন্যতম আলোচিত ইস্যু হয়ে উঠেছে গত বিশ্বকাপের শেষ পর্যায় থেকেই। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট নিয়ে বিশ্বকাপ খেলে ধুঁকতে হয়েছিল বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ককে। ৮ ম্যাচে নিতে পেরেছিলেন কেবল একটি উইকেট। দেশের সফলতম ওয়ানডে বোলারের পারফরম্যান্সে দলকেও ভুগতে হয়।

বিশ্বকাপে দলের শেষ ম্যাচের আগে থেকে নানা জল্পনা চলছিল তার অবসর নিয়ে। তিনি সেসব পাত্তা না দিয়ে প্রস্তুত ছিলেন বিশ্বকাপের পরপর শ্রীলঙ্কা সফরে যেতে। সেই সফরের আগের দিন আবার চোট পেয়ে ছিটকে যান মাঠের বাইরে। এরপর লম্বা সময় তিনি ছিলেন মাঠের বাইরে। ফিরেছেন এই বিপিএল দিয়ে। মাঝের সময়টায় তার অবসর আলোচনা দেশের ক্রিকেটে ছিল নিয়মিত।

নতুন বছরে সেই আলোচনার পালে জোর হাওয়া লেগেছে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি নিয়ে। এই বছর বাংলাদেশের খুব বেশি ওয়ানডে নেই। মাশরাফি এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলছেন কেবল ওয়ানডেই। তাকে তাই চুক্তিতে রাখা উচিত কিনা, এই নিয়ে চলছিল বিতর্ক। রোববারের বিসিবি সভায় হওয়ার কথা ছিল চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। এবার থেকে টেস্ট ও সীমিত ওভারের জন্য ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাদা চুক্তি করতে যাচ্ছে বোর্ড। মাশরাফির তাই চুক্তিতে থাকার সম্ভাবনা ছিল যথেষ্টই। তবে সভার আগেই বোর্ড সভাপতিকে ফোন করে মাশরাফি অনুরোধ করেন, তাকে যেন চুক্তিতে রাখা না হয়।

সভার পরে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফির ভবিষ্যৎ প্রশ্নে বোর্ডের ভাবনা জানিয়ে রাখলেন বিসিবি প্রধান, ‘ওকে একবার প্রস্তাব দিয়েছিলাম। বিশ্বকাপের পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একটি ওয়ানডে খেলে শেষ করার কথা ছিল, এমনই কথা হয়েছিল ওর সঙ্গে আমার লন্ডনে। পরে তো বলল এই বিপিএল পর্যন্ত দেখতে চায়। তারপর সিদ্ধান্ত নেবে। এখন পত্রপত্রিকার মাধ্যমে যা জেনেছি, তার ঘটা করে অবসরের ইচ্ছেই নেই। সেটিই মনে হচ্ছে পত্রপত্রিকা দেখে।’

নাজমুল ওয়ানডে অধিনায়ককে ভালোভাবেই বিদায় দিতে চান। বলেছেন, ‘আমরা তো চাইব তাকে ভালোভাবে, খুব ভালোভাবে বিদায় দিতে, যেটা বাংলাদেশে আর কেউ পায়নি। এটা আমাদের ইচ্ছা। ও যদি এটা চায় তো ভালো কথা, না চাইলে কিছু করার নেই।’

গেল শুক্রবার বিপিএলের ম্যাচ শেষে মাশরাফি অবশ্য পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, আপাতত বিদায় নিয়ে ভাবনাই নেই তার, ‘আমি নিজে যে জায়গায় অবস্থান করছি, সেটা উপভোগ করছি। মাঠ থেকে অবসর নেব কি নেব না, এখনও সিদ্ধান্ত নেইনি। যদি সেরকম অবস্থা তৈরি হয়, ক্রিকেট বোর্ড যদি মনে করে, তাহলে হয়তোবা চিন্তা-ভাবনা করব। নিজেকে আমার এত প্রাধান্য দেওয়ার দরকার আছে, এটা মনে করি না। নিজেকে আমি এত প্রাধান্য দেই না যে আমাকে মাঠ থেকে বিদায় দেবেন সবাই, ফুলের তোড়া নিয়ে আসবেন। এটা প্রয়োজনীয় নয়। আমি যেমন আছি, ভালো আছি। উপভোগ করছি খেলা।’