খেলতে চান মাশরাফি

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০ | ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭

আজ শুরু শেষের রোমাঞ্চ

খেলতে চান মাশরাফি

ক্রীড়া ডেস্ক ২:১৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২০

print
খেলতে চান মাশরাফি

প্লে-অফ পর্বের চার দলের টিকিট নিশ্চিত হয়ে গেছে আগেই। রবিন লিগ রাউন্ডের শেষ দিনটা ছিল যেন শক্তির মহড়া দেওয়ার প্রদর্শনীর মঞ্চ। ফাইনালে ওঠার সুবিধা নেওয়ার। ঢাকা প্লাটুন-খুলনা টাইগার্স লড়াইটা ছিল মূলত কোয়ালিফায়ার ম্যাচে অংশ নেওয়ার। আনুষ্ঠানিকতার সেই লড়াই উপহার দিল রোমাঞ্চ। খুলনা গড়ল বিপিএলে সর্বোচ্চ রান তাড়ার নতুন রেকর্ড। ২০৫ রানের পাহাড়সম পুঁজি নিয়েও খুলনার সামনে দাঁড়াতে পারল না প্রাক্তন চ্যাম্পিয়নরা।

রানের পাহাড় গড়েও হার। ঢাকার দুঃস্মৃতি কয়েক গুণ বাড়িয়ে দিয়েছে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার চোট। পরশু হাতের তালু ফেটে গেছে ঢাকা অধিনায়কের। মাঠ থেকে হাসপাতালে নেওয়া মাশরাফির হাতের তালুতে পড়েছে ১৪টি সেলাই। স্বাভাবিকভাবেই বঙ্গবন্ধু বিপিএলে তার আর খেলা হচ্ছিল না বলেই ধারণা ছিল। কিন্তু কাল মাশরাফি জানিয়ে দিলেন হাতে সেলাই নিয়েই খেলবেন তিনি!

খুলনার ইনিংসে ফিল্ডিং করতে গিয়ে বাঁ হাতের তালুতে মাশরাফির পাওয়া চোটটা অবশ্য আনপ্লেয়েবল নয়। ঢাকা অধিনায়ক খেলতে চাইলে সে ব্যবস্থা করে দেবে বিসিবির মেডিক্যাল বিভাগ। এ প্রসঙ্গে বোর্ডের প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেছেন, ‘ওর হাতে যে চোট তা আনপ্লেয়েবল নয়। ম্যাচের গুরুত্ব বিবেচনা করে উনি যদি খেলতে চান আমরা ব্যবস্থা করে দেব। যেহেতু সেলাই পড়েছে সাধারণত সাত দিন সময় নিতেই হয়। অনেক সময় খেলা যায়, গুরুত্বপূর্ণ খেলা থাকলে আমরা ব্যবস্থা নিই। তবে সেরে উঠতে সাত দিনের বেশি লাগে। অনেক সময় কেউ কেউ ঝুঁকি নেয়। আমরা সেই অনুমতি দিইও। কিন্তু আমরা তো চাইব সে আগামী তিন দিন যেন কিছু না করুক। তারপরও যদি বলে খেলব, খেলার ব্যবস্থা করে দেব।’

মাশরাফি অবশ্য পরশু রাতেই জানিয়ে দিয়েছেন আজকের এলিমিনেটর ম্যাচটা খেলতে চান। দুপুরে স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার এই লড়াইয়ে তার দল ঢাকা প্লাটুনের প্রতিপক্ষ চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ঢাকার ম্যানেজার আহসানউল্লাহ হাসানও কাল জাালেন এই চোট নিয়ে খেলতে চান মাশরাফি তিনি বলেছেন, ‘সে খেলতে ভীষণ ইচ্ছুক। আমরা বুঝতে পারছি না কী করব। দৃঢ় মনোবলে সে বলছে, খেলবে। জানেনই তো মাশরাফি একজন লড়াকু মানুষ। এখন বিষয়টি তার ওপর ছেড়ে দিয়েছি।’

সেরা চার দল কারা সেটি নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল শুক্রবারই। শনিবার ঠিক হয় কারা খেলবে এলিমিনেটরে, কারা কোয়ালিফায়ারে। এবারের আসরে শীর্ষ তিন দলের পয়েন্ট সমান ১৬ করে। রানরেট গড়ে দিয়েছে পার্থক্য। খুলনা টাইগার্স টেবিলের এক নম্বরে। রানরেটে পিছিয়ে দুই ও তিনে যথাক্রমে রাজশাহী রয়্যালস ও চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। প্লে-অফের চতুর্থ দল ঢাকা প্লাটুন। মাশরাফীর দল ১৪ পয়েন্ট নিয়ে চারে। টেবিলে সবচেয়ে বাজে অবস্থা গেছে সিলেট থান্ডারের। ১২ ম্যাচের গ্রুপপর্বে তারা জিততে পেরেছে সবে এক লড়াই। ২ পয়েন্ট নিয়ে সবার আগে টুর্নামেন্ট শেষ হয়ে গেছে থান্ডারদের।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচটা হবে রাজশাহী রয়্যালস ও খুলনা টাইগার্সের। আজ সন্ধ্যায় প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচজয়ী দল সরাসরি চলে যাবে ফাইনালের মঞ্চে। বাকি দলটির যে সুবিধা, হেরেও তাদের ছিটকে যেতে হবে না। তারা আরেকটি পরীক্ষার সুযোগ পাবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে।

কিন্তু ঘুরে ফিরে আলোচনায় শুধুই মাশরাফি। ঢাকা অধিনায়ক চাইলেও চিকিৎসকদের পরামর্শ, এই মুহূর্তে বিশ্রামে থাকাই তার জন্য ভালো। এ ধরনের চোট থেকে সেরে উঠতে সাত দিনের বেশি সময় লাগে। তিন দিন কিছুই না করার পরামর্শ থাকে চিকিৎসকদের। কিন্তু মাশরাফি বারবার জানিয়েছেন হাতে সেলাই নিয়েই খেলতে চান। ঢাকা অধিনায়ক যদি শেষ পর্যন্ত অনড় থাকেন নিজের সিদ্ধান্তে, খেলাটা ঝুঁকির শেষ পর্যন্ত চিকিৎসকদের বিকল্প ব্যবস্থা নিতে হবে।