আয়াক্স-ইন্টারের বিদায়

ঢাকা, রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২ | ১৭ আশ্বিন ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

আয়াক্স-ইন্টারের বিদায়

ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 ১২:১২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯

আয়াক্স-ইন্টারের বিদায়

ম্যাচ জয়ের কোনো চাপ ছিল না। ছিল না গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার তাড়নাও। মঙ্গলবার রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচে ইন্টার মিলানের বিপক্ষে নির্ভার ছিল বার্সেলোনা। স্বভাবতই আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে তারকা খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিয়েছিলেন দলটির প্রধান কোচ এরনেস্তো ভালভার্দে।

 

মেসিদের অনুপস্থিতির পরও সান সিরোতে বিগ ম্যাচে ইন্টার মিলানকে ২-১ গোলে হারিয়ে দিল বার্সেলোনা। জিতে অবশ্য খুব একটা লাভ হয়নি তাদের। তবে সর্বনাশ হয়ে গেল ইন্টার মিলানের। ঘরের মাঠে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিল ইতালিয়ান লিগে শীর্ষে থাকা দলটি। ৬ ম্যাচে সর্বোচ্চ ১৪ পয়েন্ট নিয়ে মৃত্যুকূপ খ্যাত ‘এফ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বার্সেলোনা। শেষ ষোলোতে কাতালানদের সঙ্গী হয়েছে ১০ পয়েন্ট নিয়ে রানার্সআপ নিশ্চিত করা বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। প্রত্যাশিত জয় দিয়েই নক আউট পর্বের টিকিট কেটেছে জার্মান জায়ান্টরা।

পরশু রাতে নিজেদের মাঠ সিগনাল ইদুনা পার্কে স্লাভিয়া প্রাগকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ডর্টমুন্ড। কিন্তু স্বাগতিকদের জয় ও শেষ ষোলোতে ওঠার আনন্দ অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে। কারণ ম্যাচটা তাদের শেষ করতে হয়েছে দশজনের দল নিয়ে। শেষের ১৫ মিনিট একজন  কম প্রতিপক্ষ পেয়েও হার ঠেকাতে পারল না স্লাভিয়া প্রাগ।

ডেথগ্রুপের শেষের সমীকরণের জন্য চোখ ছিল ইন্টার মিলান-বার্সেলোনা মহারণের দিকে। ম্যাচটাও জমে উঠেছিল। প্রথমার্ধেই দুই দল করেছে দুই গোল। ম্যাচটা ড্রয়ের ইঙ্গিত দিয়েছিল। কিন্তু বেঞ্চ ছেড়ে উঠে এসেই লিগের সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে গোল করে বার্সাকে জেতালেন ১৭ বছর ৪০ দিন বয়সী আনসু ফাতি।

নিয়মরক্ষার ম্যাচে কার্লোস পেরেজকে অভিষেক করিয়েছেন বার্সা কোচ। স্প্যানিশ কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন পেরেজ। ২৩ মিনিটে তার গোলের ওপর দাঁড়িয়ে ইন্টার মিলানের বিরুদ্ধে লিড নিয়েছিল বার্সা। বৃথাই গেছে প্রথমার্ধের শেষ দিকে রোমেলু লুকাকুর করা দুর্দান্ত গোলটা।

কিছুটা সংশয় ছিল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলকে নিয়েও। সব শঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। পরশু রাতে রেড বুল সালজবুর্গের মাঠে ২-০ গোলে জিতে ‘ই’ গ্রুপের সেরা দল হিসেবে পরের রাউন্ডে উঠেছে অল রেডরা। গ্রুপের রানার্সআপ হয়েছে ফেভারিট নাপোলি। গেঙ্ককে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে ইতালিয়ান ক্লাবটি।

সালজবুর্গের মাঠে মাঠে প্রথমার্ধেই অগ্নিপরীক্ষা দিতে হয়েছে লিভারপুলকে। বিরতির পর দুই মিনিটের ব্যবধানে সব দুশ্চিন্তা দূর করে দেয় ইংলিশ জায়ান্টরা। ৫৭ মিনিটে নাবি কেইটার গোলে এগিয়ে যায় লিভারপুল। পরের মিনিটে শাপমোচন করেন মোহাম্মদ সালাহ।

লিভারপুল কষ্টে জিতেছে। তবে দাপুটে জয় পেয়েছে নাপোলি। ইতালিয়ান ক্লাবটির বড় জয়ের নায়ক পোলিশ স্ট্রাইকার আর্কাদিউজ মিলিক; করেছেন তিন গোল। নাপোলির যে দুটি গোল পেনাল্টি থেকে এসেছে তার একটি করেছেন মার্টিন্স।

জায়ান্টদের রাতে মাঝারিশক্তির দলগুলো দুর্দান্ত লড়াই করেছে পয়েন্ট টেবিলে। ‘জি’ ও এইচ গ্রুপটা রীতিমতো থ্রিলার উপহার দিয়েছে। যেখানে শেষ হাসি হাসল লাইপজিগ, অলিম্পিক লিওঁ, ভ্যালেন্সিয়া ও চেলসি। প্রথম দুটি দল মঙ্গলবার রাতে ২-২ গোলে ড্র করে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উঠেছে নক আউট পর্বে। অন্য ম্যাচে জেনিতকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েও অশ্রুসিক্ত বিদায় নিল পর্তুগিজ ক্লাব বেনফিকা। ম্যাচটা জিতলে অবশ্য পরের রাউন্ডে রাশান ক্লাবটিই উঠত।

শেষ ষোলোর টিকিটের জন্য তীব্র লড়াই হয়েছে ‘এইচ’ গ্রুপের ম্যাচগুলোতেও। পরশু রাতে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে লিলকে ডেকে এনে চেলসি হারিয়েছে ২-১ গোলে। প্রথমার্ধেই দুই গোল করে জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলে ব্লুজরা। ১১ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হলো পশ্চিম লন্ডনের ক্লাব চেলসি। সমান পয়েন্ট নিয়ে গোলগড়ে এগিয়ে গ্রুপ সেরা হয়েছে স্প্যানিশ ক্লাব ভ্যালেন্সিয়া। মঙ্গলবার রাতে আয়াক্সের মাঠে ন্যূনতম ব্যবধানে জিতেছে তারা।

২৪ মিনিটে রদ্রিগোর একমাত্র গোলেই কপাল পুড়েছে গত আসরের চমকে দেওয়া আয়াক্স। ডাচ ক্লাবটির জন্য আক্ষেপ, তৃতীয় হওয়া দলগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ পয়েন্ট পেয়েও বিদায় নিতে হলো তাদের। অথচ তাদের সমান ও কম পয়েন্ট নিয়েও পরশু রাতে নক আউট পর্বে উঠেছে দুটি দল!

 
Electronic Paper