রাজত্ব উদ্ধারের মিশন রংপুরের

ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০ আশ্বিন ১৪২৭

রাজত্ব উদ্ধারের মিশন রংপুরের

প্রিন্স রাসেল ৩:২৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৯

print
রাজত্ব উদ্ধারের মিশন রংপুরের

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে বিশেষ ‘বিপিএল’ আয়োজন করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বুধবার শুরু হচ্ছে রোমাঞ্চকর এই আসর। দরজায় কড়ানাড়া ব্যাট-বলের যুদ্ধে অংশ নেওয়া দলগুলোকে নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদনে আজ থাকছে রংপুর রেঞ্জার্স। তাদের লক্ষ্য, সাফল্য, ব্যর্থতা, ইতিহাস তথা সার্বিক বিষয়াদি নিয়ে দল পর্যালোচনা করেছেন প্রিন্স রাসেল

আজ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু বিপিএল। টুর্নামেন্টের সপ্তম আসরটাকে স্মরণীয় করে রাখতে জমকালো উদ্বোধন করার অপেক্ষায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। সুরে সংগীতে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে বিশেষ এই টুর্নামেন্টকে। এই প্রতিযোগিতায় হারানো রাজত্ব উদ্ধারের লড়াইয়ে নতুন নামে নামছে রংপুরের দল। রংপুর রাইডার্স বিলুপ্ত হওয়ার পর দলটার নামকরণ করা হয়েছে রংপুর রেঞ্জার্স নামে। নামে কী আসে যায়! রংপুর যে টুর্নামেন্টের সাবেক চ্যাম্পিয়ন সেটা বলাই বাহুল্য।

টুর্নামেন্টের আসল লড়াই শুরু হচ্ছে দুদিন পর। বাইশ গজের এই যুদ্ধের জন্য কাগজে-কলমে শক্তিশালী দলই গঠন করেছে রংপুর রাইডার্স। যদিও এই দলটার জন্য কোনো পৃষ্ঠপোষক পাননি আয়োজকরা। বিসিবিই তাই এই দলটার পরিচালনায় অর্থায়ন করছে। টিম ডিরেক্টর হিসেবে থাকবেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান। টুর্নামেন্টের সাতটি দলের জন্যই অবশ্য একজন করে পরিচালক নিয়োগ দিয়েছে বোর্ড।

প্লেয়ার ড্রাফটেও তাই রংপুর দল গঠনে ভূমিকা রাখলেন আকরাম। নিলাম থেকে সম্ভাব্য সেরা দল তৈরিই চেষ্টা করেছেন তিনি। ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগেই শিরোপা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার মতো দল গড়েছে রংপুর রেঞ্জার্স। কিন্তু দল নির্বাচনে দেশিদের অগ্রাধিকার দিলেও নেতৃত্বটা চলে বিদেশি এক ক্রিকেটারের হাতে। রংপুরের অধিনায়কের ভূমিকায় মোহাম্মদ নবীকে নির্বাচন করেছে তারা।

গত দুই আসরে রংপুরের নেতৃত্বের জোয়াল ছিল বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার কাঁধে। প্রথমবার রংপুর শিরোপাস্বাদ পেয়েছিল নড়াইল এক্সপ্রেসের মস্তিষ্কের ওপর দাঁড়িয়েই। যদিও গত আসরে শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখতে ব্যর্থ হয়েছিলেন মাশরাফিরা। এবার নবী কি পারবেন ট্রফিটা ছিনিয়ে আনতে? রংপুরের সমর্থকরা আশা দেখতে পারেন নবীর বিপিএল ও আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতায়। ক্যারিয়ারের বড় একটা অংশে আফগানিস্তান জাতীয় দলের অধিনায়ক হিসেবে ছিলেন তিনি। আফগানদের ক্রিকেট উত্থানে নবীর নামটা খোদাই করেই লেখা থাকবে।

অধিনায়কের মতো তাদের প্রধান কোচও বিদেশি। সাত দলের মধ্যে একমাত্র দেশি প্রধান কোচ নিয়োগ দিয়েছে ঢাকা প্লাটুন। কিন্তু মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের আশার কথা ছিল। তবে শেষ মুহূর্তে শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং পরামর্শকের দায়িত্ব পাওয়ার পর নিজেকে সরিয়ে নেন গ্রান্ট ফ্লাওয়ার। জিম্বাবুইয়ান কিংবদন্তির বদলে নিউজিল্যান্ডের অভিজ্ঞ কোচ মার্ক ও’ডনেলকে নিয়োগ দিয়েছে বিসিবি। তবে কিউই কোচ তার সহকারী হিসেবে স্থানীয়দেরই পাচ্ছেন। স্পিন কোচ হিসেবে নবীদেও শিক্ষা দেবেন বাংলাদেশের কিংবদন্তি স্পিনার মোহাম্মদ রফিক।

বুধবার ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা তথা কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষের ম্যাচ দিয়ে স্বপ্নযাত্রা শুরু করবে রংপুর রেঞ্জার্স। টুর্নামেন্টে জয় দিয়ে শুরু করতে চায় তারা। দারুণ শুরুর জন্য রংপুরের সবচেয়ে বড় শক্তি তাদের বোলিং বিভাগ। যেখানে আছেন মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদের মতো তারকা পেসার। তরুণ অলরাউন্ডার নাঈম শেখ, আরাফাত সানিরাও প্রস্তুত আছেন ঘূর্ণিজাদু দেখাতে। সে তুলনায় ব্যাটিং বিভাগটা একটু দুর্বলই হয়েছে তাদের। জহুরুল ইসলাম, নাদিফ চৌধুরী, জাকির হাসানের মতো ঘরোয়া ক্রিকেটাররা দেশিদের মধ্যে রংপুরের ব্যাটিং বিভাগের দায়িত্ব নেবেন। তবে টপ অর্ডারের বিপরীত মিডল অর্ডার। যেখান বিদেশিদের আধিক্য। নবী, ক্যামেরন ডেলপোর্ট ও শাই হোপে আশা দেখছেন তারা। এদের মধ্যে পরের দুজনকে চাইলে টপ অর্ডারে খেলাতে পারে রংপুর রেঞ্জার্সের টিম ম্যানেজমেন্ট।