আফগান ঘূর্ণিতে ফিরলেন মুমিনুলও, বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

আফগান ঘূর্ণিতে ফিরলেন মুমিনুলও, বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক ৩:৪৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১৯

print
আফগান ঘূর্ণিতে ফিরলেন মুমিনুলও, বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

যে উইকেটে সাবলীলভাবে ব্যাট করেছেন আফগানিস্তানের বেশির ভাই ব্যাটসম্যানরা। সেখানেই কি হচ্ছে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের। নিয়মিত বিরতিতে আসছেন আর যাচ্ছেন তারা। সবশেষ যাওয়া-আসার মিছিলে যোগ দিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। রশিদ খানের বলে যেন খাবি খাচ্ছেন বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা। এতে করে স্বভাবতই মহাবিপর্যয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত টাইগারদের সংগ্রহ ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩০ রান।

রানের খাতা খোলার আগেই বিদায় নেয় সাদমান ইসলাম। এলবিডব্লিউর শিকারই হন সৌম্য সরকার। সাদমানের বিদায়ের পর জুটি বেধে বিপর্যয় কাটানোর চেষ্টা করেছিলেন সৌম্য আর লিটন কুমার দাস। ওয়ানডাউনে লিটনকে মাঠে নামানো ছিল হয়তো একটি বিশেষ পরিকল্পনার অংশ।

৩৮ রানের জুটি গড়ে এ দু’জন অনেকটাই সাবলিল হয়ে ওঠার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু ভুলটা করে বসলেন সৌম্য। মোহাম্মদ নবির সোজা লেন্থ বলে এলবিডব্লিউর শিকার হয়ে গেলেন সৌম্য। ৬৬ বলে ১৭ রান করে বিদায় তিনি।

সৌম্য বিদায় নেয়ার পর মুমিনুল হকের সঙ্গে জুটি বাধার চেষ্টা করছিলেন লিটন দাস। কিন্তু দলীয় ৫৪ রানের মাথায় রশিদ খানের ঘূর্ণি বলে পুল করতে চেয়েছিলেন লিটন। কিন্তু বল উঠলো না এবং সোজা গিয়ে আঘাত হানলো স্ট্যাম্পে। বোল্ড হয়ে গেলেন তিনি ব্যক্তিগত ৩৩ রানে। এরপর এক এক করে ফিরে গেছেন মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুমিনুল হক।

এর আগে সিরিজের একমাত্র টেস্টের প্রথম দিন ৫ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান করেছিল আফগানরা।

প্রথম দিন রহমত শাহ’র সেঞ্চুরিতে (১০২) বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রতিরোধ গড়ে আফগানরা। আর ৮৮ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন আসগর আফগান। ৩৫ রানের হার না মানা ইনিংস খেলেন আফসার জাজাই।

প্রথম দিন বাংলাদেশ বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট নেন তাইজুল ইসলাম ও নাঈম হাসান। একটি উইকেট পান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সাকিব আল হাসানকে হটিয়ে টেস্টে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম ১০০ উইকেটের মালিক হন তাইজুল।

কোনো পেসার না নিয়েই মাঠে নামছেন টাইগাররা। একাদশে নেই কোনো বিশেষজ্ঞ ফাস্ট বোলার। কাজ চালানোর পেসার আছেন কেবল সৌম্য সরকার।

সাকিব আল হাসানসহ একাদশে আছেন চারজন স্পিনার। পাশাপাশি স্পিন করার মতো আছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন ও মুমিনুল হক।

বিশ্বকাপের শেষটা ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলের। শ্রীলঙ্কা সিরিজ গেছে দুঃস্বপ্নের মতো। বাংলাদেশ ‘এ’ দল আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে ভালো করেনি। সব মিলিয়ে কিছুদিন বাংলাদেশ ক্রিকেট অঙ্গনে তেমন ভালো খবর নেই। আফগানিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রামের টেস্টটা তাই জেতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আজ মুখোমুখি হবে দুদল।

বাংলাদেশ একাদশ: সাদমান ইসলাম, লিটন দাস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম ও নাঈম হাসান।

আফগানিস্তান একাদশ: ইহসানউল্লাহ, ইব্রাহিম জাদরান, রহমত শাহ, হাশমতউল্লাহ শাহীদি, আসগর আফগান, মোহাম্মদ নবি, আফসার জাজাই (উইকেটরক্ষক), রশিদ খান (অধিনায়ক), ইয়ামিন আহমদজাই, কায়েস আহমেদ ও জহির খান।