কাশ্মীর নিয়ে আফ্রিদি গম্ভীরের টুইট যুদ্ধ

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

কাশ্মীর নিয়ে আফ্রিদি গম্ভীরের টুইট যুদ্ধ

ক্রীড়া ডেস্ক ১২:৪২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৭, ২০১৯

print
কাশ্মীর নিয়ে আফ্রিদি গম্ভীরের টুইট যুদ্ধ

ক্রিকেট মাঠেও তাদের মধ্যে সম্পর্কটা ভালো ছিল না। শহীদ আফ্রিদি আর গৌতম গম্ভীরের মধ্যে লেগে যেত মাঝেমধ্যেই। ভারতের সাবেক ওপেনার গৌতম গম্ভীর এখন পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদ, দিল্লির সাংসদও। আফ্রিদিও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছেড়েছেন। তবু তাদের মধ্যে সেই লড়াইটা এখনো রয়ে গেছে।

লড়াইয়ের মাধ্যম হিসেবে এখন তারা বেছে নিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে। সর্বশেষ কাশ্মীর বিভাজন ইস্যুতে যখন উত্তাল দুই দেশ, আবারও কথার যুদ্ধ লেগে গেল সেই পুরনো শত্রু গম্ভীর-আফ্রিদির।

গত সোমবার জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ এবং ৩৫-এ অনুচ্ছেদ বাতিল করেছে ভারত সরকার। এর ফলে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতাবলে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা হারিয়েছে জম্মু ও কাশ্মীর। এই ইস্যুতে এখন পুরো বিশ্বই উদ্বিগ্ন। এই কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে যুদ্ধ হয়েছে দুবার। কারণ এখানে দুই দেশেরই ভাগ রয়েছে। স্বভাবতই ভারতের এই সিদ্ধান্তে পাকিস্তানেও চলছে অস্থিরতার পরিস্থিতি।

দুদেশের এই অস্থির পরিস্থিতিতে শহীদ আফ্রিদি টুইট করেছেন, ‘জাতিসংঘের সনদ অনুযায়ী কাশ্মীরিদের অবশ্যই তাদের প্রাপ্য অধিকার দেওয়া উচিত। আমাদের সবার মতো তাদেরও স্বাধীনতা প্রাপ্য। জাতিসংঘ কেন সৃষ্টি হয়েছিল এবং কেন এটা ঘুমাচ্ছে? বিনা প্ররোচনায় এই আগ্রাসন এবং মানবতার বিরুদ্ধে এই অপরাধ সবাই মনে রাখবে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এখানে মধ্যস্থতা করা উচিত।’

আফ্রিদির এমন টুইটের কড়া জবাব দিয়েছেন গম্ভীর। ভারতের সাবেক এই ওপেনার বেশ কুশলি থেকে খোঁচাটা দিয়েছেন। লিখেছেন, ‘আফ্রিদি ঠিক কথা বলেছে। এখানে বিনা প্ররোচনায় আগ্রাসন হচ্ছে। হচ্ছে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধও। তার অবশ্যই এটা নিয়ে উচ্চস্বরে কথা বলা উচিত। তবে সে শুধু একটা কথা উল্লেখ করতে ভুলে গেছে, এসব কিছুই হচ্ছে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে। চিন্তা করবে না। আমরা এগুলো সমাধান করব বাছা!’

এক সময়ের দুই মাঠ কাঁপানো তারকার আবারও শুরু হলো কথার যুদ্ধ। এবার দেখা যাক, এই যুদ্ধ কোথায় গিয়ে থামে!