সবচেয়ে দামি দশ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সবচেয়ে দামি দশ

খেলাধুলা ডেস্ক ১২:৩৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৭, ২০১৯

print
সবচেয়ে দামি দশ

চলছে দলবদল। ইউরোপের প্রত্যেকটি দলই নিজেদের দল গোছাতে খরচ করছে কাঁড়ি কাঁড়ি অর্থ। তবে শেষ দুই মৌসুমে এই অর্থ ব্যয়ের পরিমাণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে অকল্পনীয় এক জায়গায়। বিশ্ব রেকর্ড পরিমাণ অর্থের বিনিময়ে ইংলিশ ডিফেন্ডার হ্যারি ম্যাগুয়ের যোগ দিয়েছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। দেখা যাক নতুন জার্সি গায়ে কে কেমন দাম পেলেন।

কিলিয়ান এমবাপে
সব থেকে দামি একাদশের মধ্যে সব থেকে কম বয়সী ফুটবলার হলেন ফ্রান্সের হয়ে বিশ্বকাপ জয়ী কিলিয়ান এমবাপে। মোনাকো থেকে ১৮০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে পিএসজিতে যোগ দেন তিনি

কেপা আরিজাবালাগা
স্প্যানিশ এই গোলকিপারকে ২০১৮ সালে বিশ্ব রেকর্ড পরিমাণ অর্থ দিয়ে দলে ভেড়ায় চেলসি। প্রায় ৮০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে অ্যাথলেটিক ক্লাব বিলবাও থেকে চেলসিতে যোগ দেন তিনি।

লুকাস হার্নান্দেজ
ফ্রান্সের হয়ে বিশ্বকাপ জয়ী এবং অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের হয়ে দারুণ পারফরম্যান্স করা লুকাস হার্নান্দেজকে দলে ভিড়িয়েছে জার্মান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ। স্প্যানিশ ক্লাব অ্যাথলেটিকোকে প্রায় ৮০ মিলিয়ন ইউরো প্রদান করতে হয়েছে বায়ার্নকে।

রদ্রি
এই ডিফেন্সিভ মিড ফিল্ডার অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের হতে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন। আর এই পারফম্যান্স চোখ এড়ায়নি ম্যানচেস্টার সিটির কোচ পেপ গার্দিওয়ালার। দলের গভীরতা আরও বৃদ্ধির জন্য অ্যাথলেটিকো থেকে ৭০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে রদ্রির সঙ্গে চুক্তি করে ম্যানচেস্টার সিটি।

ভ্যান ডাইক
২০১৭ সালের গ্রীষ্মকালীন দলবদলে বিশ্ব রেকর্ড পরিমাণ অর্থে পাড়ি জমান ম্যানচেস্টার সিটিতে আর পরের বছর শীতকালীন দল বদলের মৌসুমে সাউদাম্পটন থেকে ৮৫ মিলিয়ন ইউরোরতে লিভারপুলে যোগ দেন ভ্যান ডাইক।

পল পগবা
২০১৬ সালে জুভেন্টাস থেকে ১০৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ভেড়ানো হয় তাকে। আর এখন পর্যন্ত তিনিই মিড ফিল্ডার হিসেবে সর্বোচ্চ দামধারী ফুটবলার হয়ে আছেন।

ফিলিপ কুতিনহো
২০১৭ সালে নেইমার বার্সেলোনা ছাড়লে তার শূন্যস্থান পূর্ণ করতে দলে ভেড়ানো হয় লিভারপুল ফরোয়ার্ড ফিলিপ কুতিনহোকে। আর এই ট্রান্সফারটি সম্ভব করতে বার্সেলোনাকে গুনতে হয়েছে ১২০ মিলিয়ন ইউরো।

কাইল ওয়াকার
টটেনহ্যাম থেকে ২০১৭ সালে তৎকালীন রেকর্ড পরিমাণ অর্থের বিনিময়ে ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগদান করেন এই ফুলব্যাক। সে সময় ওয়াকারের জন্য ৫৬.৭ মিলিয়ন ইউরো গুনতে হয়েছিল সিটিজেনদের। আর এতেই বনে যান সে সময়কার সবচেয়ে দামি রক্ষণভাগের ফুটবলারও।

ফ্র্যাঙ্ক ডি জং
ডাচ ক্লাব অ্যায়াক্স এই মৌসুমে ইউরোপিয়ান ফুটবলে রূপকথার সৃষ্টি করেছে। আর এই রূপকথার পেছেন মধ্যমাঠের কাজ করেছেন ফ্র্যাঙ্ক ডি জং। আর তাই তো বার্সেলোনা তাদের মধ্যমাঠের জন্য বেছে নিয়েছে তাকেই। তাই তো অ্যায়াক্স থেকে উড়িয়ে ন্যু ক্যাম্পে আনা হয়েছে ডি ইয়ংকে। আর এর জন্য বার্সাকে খরচ করতে হয়েছে ৭৫ মিলিয়ন ইউরো। এবং সেই সঙ্গে আরও যোগ হতে পারে ১১ মিলিয়ন ইউরো।

নেইমার
২০১৭ সালে ফুটবল বিশ্বের সব থেকে বড় ট্রান্সফারটি ঘটে। বার্সেলোনা থেকে বিশ্ব রেকর্ড পরিমাণ ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইনে পাড়ি জমান এই ব্রাজিলিয়ান তারকা। আর এখন পর্যন্ত তিনিই সব থেকে বেশি দামি ফুটবলার হয়ে আছেন।