নিউজল্যান্ডে তৃতীয় টেস্ট বাতিল

ঢাকা, শনিবার, ২৫ মে ২০১৯ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

ক্রাইস্টচার্চ হামলা

নিউজল্যান্ডে তৃতীয় টেস্ট বাতিল

খেলাধুলা ডেস্ক ১০:৪৫ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৫, ২০১৯

print
নিউজল্যান্ডে তৃতীয় টেস্ট বাতিল

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চলতি টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশ দল এখন অবস্থান করছে ক্রাইস্টচার্চে। শনিবার বাংলাদেশ সময় ভোরে হাগলি ওভালে স্বাগতকদের বিপক্ষে খেলতে নামার কথা ছিলো তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদদের। এরই মধ্যে চলতি সিরিজের তৃতীয় টেস্ট ম্যাচটি সমঝোতার ভিত্তিতে বাতিল ঘোষণা করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। আজ (শুক্রবার) স্থানীয় সময় দুপুরে ক্রাইস্টচার্চে মসজিদ আল নুরে হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ক্রাইস্টচার্চে দুটি কেন্দ্রীয় মসজিদে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৭ জন। এই ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে পুলিশ বলছে এই হামলার পেছনে আরও অপরাধীরা জড়িত থাকতে পারে।

হামলার সময় মসজিদটির খুব কাছেই ছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। জুমার নামাজ আদায় করতে মসজিদে ঢোকার মুখে অজ্ঞাত এক নারীর কাছ থেকে হামলার সতর্কবার্তা পেয়ে কোনোরকমে বেঁচে ফিরেছেন তামিম, মিরাজ, তাইজুলরা।

পরে শুরুতে ঘটনাস্থল থেকে অদূরবর্তী হাগলি ওভাল স্টেডিয়ামের ড্রেসিংরুমে এবং পরে নিজেদের টিম হোটেলে ফিরে যান বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। তারা শুরুতেই জানিয়ে দেন যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফেরার ইচ্ছা। কেননা এমন এক ঘটনার সাক্ষী হওয়ার পর ক্রিকেট খেলার মানসিক অবস্থায় নেই কেউই।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, এ সময় তামিমরা ওই অজ্ঞাত নারীর সতর্কবার্তা শুনে তড়িঘড়ি করে টিম বাসের মধ্যে ঢুকে যায় বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা এবং শুয়ে পড়ে মেঝেতে। খানিক পরেই ঘটনাস্থলে থাকা নিরাপদ হবে না ভেবে তামিম-মিরাজরা বাস থেকে বেরিয়ে হাগলি পার্ক দিয়ে চলে গিয়েছে ক্রাইস্টচার্চের হাগলি ওভাল স্টেডিয়ামের ড্রেসিংরুমে।

ঘটনার প্রায় ঘণ্টাদুয়েক পর দুই দেশের বোর্ডের আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে তিন ম্যাচের সিরিজ অসমাপ্তই থেকে যাবে। শনিবার ক্রাইস্টচার্চে খেলবে না দুই দল।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট এ খবর নিশ্চিত করে বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা। আমরা শনিবারের ম্যাচটি বাতিল করেছি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা করেই এমন সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছি আমরা। কারণ এমতাবস্থায় ক্রিকেট খেলার কোনো পরিবেশ নেই।’

তিনি আরও বলেন, 'দুই দলের খেলোয়াড়রাই এ ঘটনায় মর্মাহত এবং ভীতশ্রদ্ধ। জাতি হিসেবে আমাদের দেশে সফরকারী দলগুলোর নিরাপত্তার ব্যাপারে আরও সজাগ হতে হবে আমাদের। নিউজিল্যান্ডকে সবসময়ই নিরাপদ মনে হয়। আমি নিশ্চিত নিউজিল্যান্ড সরকার নতুন কোনো পদক্ষেপ নেবে।'

ম্যাচ বাতিল হওয়ায় বাংলাদেশ দলের সদস্যরা কবে দেশে ফিরবেন সে ব্যাপারে খুব শিগগিরই সিদ্ধান্ত নেবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।