জাম্বুওয়াশ হলেই দুঃসংবাদ অপেক্ষা করছে টিম টাইগাদের জন্য

ঢাকা, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১০ আশ্বিন ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

জাম্বুওয়াশ হলেই দুঃসংবাদ অপেক্ষা করছে টিম টাইগাদের জন্য

ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২২

জাম্বুওয়াশ হলেই দুঃসংবাদ অপেক্ষা করছে টিম টাইগাদের জন্য

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে আজ টাইগারদের জাম্বুওয়াশ এড়ানোর মিশন। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ হেরে ইতোমধ্যে সিরিজ হেরে বসেছে বাংলাদেশ। তাই এই ম্যাচে জয় নিয়ে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে চাইবে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত যদি হোয়াইটওয়াশ না এড়াতে পারে তাহলে ২১ বছর পর জিম্বাবুয়ের কাছে এমন কিছুর সাক্ষী হবে টিম টাইগার্স। এ ফরম্যাটে সবশেষ ২০০১ সালে টাইগারদে হোয়াইটওয়াশ করেছিল জিম্বাবুয়ে। সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হলে আরেকটি দুঃসংবাদও পেতে হবে বাংলাদেশকে। তার হলো এ হারের ফলে আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে ১ ধাপ নেমে অষ্টম স্থানে চলে যাবে তারা।

বাংলাদেশের এ প্রজন্মের ক্রিকেটাররা কখনো এমন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়নি। জিম্বাবুয়ের কাছে হোয়াইটওয়াশ! এ যেনো এক দু:স্বপ্ন। তবে ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস যাদের হেসেখেলে এতোদিন হারিয়ে এসেছে টাইগাররা ২১ বছর পর তাদের কাছে হোয়াইটওয়াশের লজ্জার সামনে দাঁড়িয়ে।

হারারেতে প্রথমে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারের পর ৯ বছরের ব্যবধানে হাতছাড়া হয়েছে ওয়ানডে সিরিজটাও। তৃতীয় ম্যাচের আগে তো রীতিমতো চোখ রাঙানি দিচ্ছে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা।

গত কয়েক বছরে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট ফরম্যাটে নিজেদের সামর্থের জানান দিতে না পারলেও ওয়ানডেকে নিজেদের প্রিয় ফরম্যাটে রূপ দিয়েছিল। ২০১৩ সালের পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টানা ১৯ ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছিল বাংলাদেশ। চলতি সফরে সে জয়যাত্রার সমাপ্তি ঘটে।

বাংলাদেশ সবশেষ ২০০১ সালে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের কাছে ওয়ানডেতে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল। খালেদ মাসুদ পাইলটের অধিনায়কত্বে তিন ম্যাচের তিনটিতেই হারের মুখ দেখে। সেই সিরিজের কোনও ক্রিকেটারই নেই বর্তমান টাইগার স্কোয়াডে। এরপর কেটে গেছে ২১ বছর। এ সময়ে দুই দল হেঁটেছে দুই মেরুতে। দিনে দিনে বাংলাদেশের উন্নতির বিপরীতে জিম্বাবুয়ে হাতড়ে বেড়িয়েছে নিজেদের। তবে চলতি সিরিজে সব হিসাব-নিকাশ বদলে দিয়েছে এক সিকান্দার রাজা।

আজ বাংলাদেশ তাদের ক্রিকেট ইতিহাসে ৪০০তম ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে মাঠে নামবে। ১৯৮৬ সালে এই ফরম্যাটে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে যাত্রা করে টিম টাইগার্স। ৩৬ বছরে ১৮টি দেশের বিপক্ষে খেলেছে বাংলাদেশ। সবচেয়ে বেশি জিম্বাবুয়ের সঙ্গেই। ৮০ ম্যাচ খেলেছে। অর্ধশতাধিক ম্যাচ খেলা আরেক প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। সেই প্রিয় প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আজ হোয়াইটওয়াশ হলে কেবল দুই দশক আগের স্মৃতিতে ফিরে যাওয়া নয়, প্রভাব ফেলবে বর্তমান র‌্যাঙ্কিংয়েও। এ ম্যাচে হারলে বাংলাদেশ এক ধাপ নিচে নেমে অবস্থান করবে অষ্টম স্থানে। সেক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কা একধাপ উপরে উঠে সপ্তম স্থানে অবস্থান করবে।

ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে ৯৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ সপ্তম স্থানে অবস্থান করছিল। তবে টানা দুই হারে বড় প্রভাব পড়েছে র‌্যাঙ্কিংয়ে। তৃতীয় ম্যাচেও যদি হার দেখতে হয় তামিমদের তাহলে ৭ রেটিং পয়েন্ট হারাবে তারা। সেক্ষেত্রে ৯৮ থেকে রেটিং পয়েন্ট কমে হবে ৯১। এতে করে ৯২ রেটিং নিয়ে আটে থাকা শ্রীলঙ্কা সহজেই টপকে যাবে টাইগারদের। তাই সপ্তম স্থান ধরে রাখতে হলেও হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর বিকল্প নেই সফরকারীদের সামনে।

 
Electronic Paper