নতুন জীবনের সন্ধান

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

নতুন জীবনের সন্ধান

বাতিঘর ডেস্ক ১:১৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০২, ২০১৯

print
নতুন জীবনের সন্ধান

সোমা, রিতা, স্বর্ণা ও রাজিবরা এখন ধ্রুবতারার বাসিন্দা। সুন্দর একটি নিশ্চিত আগামী এখন ওদের হাতের মুঠোয়। ইতিমধ্যে ওদের পূর্বসূরিদের অনেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক ডিঙ্গিয়ে দেশের সর্বোচ্চ উচ্চশিক্ষা সম্পন্ন করার পথে।

পড়ালেখা শেষ করে অনেকে আবার চাকরি করছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে। বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েও সুখে-শান্তিতেও ঘর করছেন ধ্রুবতারার বাসিন্দারা। অথচ সবাই টাঙ্গাইলের নিষিদ্ধ যৌনপল্লীর অবহেলিত শিশু। অন্ধকার জগতে অনাদরে অবহেলায় বেড়ে ওঠা এসব শিশুকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার যেন গুরু দায়িত্ব পালন করছে ধ্রুবতারা।

টাঙ্গাইল শহর থেকে প্রায় আট কিলোমিটার দূরে সদর উপজেলার মগড়া ইউনিয়নের কুইজবাড়ি গ্রামে প্রায় নয় একর জমির ওপর সোনার বাংলা চিলড্রেন হোম প্রতিষ্ঠা করে সোসাইটি ফর সোসাল সার্ভিস (এসএসএস) নামের টাঙ্গাইলের একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা।

এ হোমের অভ্যন্তরে দোতলা বিশাল ভবনের নাম হচ্ছে ধ্রুবতারা। আবাসিক এই ভবনেই যৌনপল্লীর অবহেলিত শিশুরা বেড়ে উঠছে পরম যত্ন আর আদরের মধ্যদিয়ে।
পড়ালেখার পাশাপাশি ধর্মীয় শিক্ষা, সাংস্কৃতিক চর্চা যেমন- নাচ, গান, অভিনয় ও মার্শাল আটসহ নানা ক্ষেত্রে পারদর্শী হয়ে উঠছে শিশুরা। দেশ ও দেশের বাইরে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রতি বছরই পুরস্কার ছিনিয়ে আনছে সোনার বাংলা চিলড্রেন হোমের শিশুরা।