অ্যাপেই দূর হবে বেকারত্ব, তৈরি হবে উদ্যোক্তাও

ঢাকা, রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ৫ বৈশাখ ১৪২৮

অ্যাপেই দূর হবে বেকারত্ব, তৈরি হবে উদ্যোক্তাও

নিজস্ব প্রতিবেদক ৬:৫৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ০৫, ২০২১

print
অ্যাপেই দূর হবে বেকারত্ব, তৈরি হবে উদ্যোক্তাও

রাইড শেয়ারিং এবং ফুড শেয়ারিং অ্যাপসগুলোর পাশাপাশি এবার আসছে বিজনেস শেয়ারিং অ্যাপস; ডিমা বা ডিজিটাল মা। তরুণদের উদ্যোক্তা হয়ে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখার বিষয়ে উৎসাহিত করার লক্ষ্যেই এই অ্যাপসটি। সেইসাথে এই অ্যাপসের মাধ্যমে একদিকে যেমন দেশে ব্যাপক শিল্পায়ন হবে অপরদিকে সেখানে তৈরি হবে হাজার হাজার তরুণদের কর্মসংস্থানও। এভাবেই দেশের বেকারত্ব ঘোচাবে এই মোবাইল অ্যাপস ডি’মা; এমনটাই বলছিলেন এই অ্যাপসটির উদ্ভাবক ইমতিয়াজ উদ্দীন আজাদ। পেশায় একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার আজাদ প্রায় ২ বছর ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন এর উদ্ভাবনে। বলছিলেন, দেশে লক্ষ লক্ষ তরুণদের কাজের সামর্থ্য থাকলেও সুযোগের অভাব থাকায় বাড়ছে বেকারত্ব। তবে এই অ্যাপসটি এই তরুণদের আশার প্রদীপ হয়ে ওঠবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন প্রকৌশলী আজাদ।

এ মোবাইল অ্যাপটি দেবে বহুমুখী সেবা ও নানা সমস্যার সমাধান। আর ঠিক নামকরণও হয়েছে এ কারণেই ডিমা বা ডিজিটাল মা। যার ভূমিকাও হবে মায়ের মতোই। অন্যান্য অ্যাপসের মতোই সহজেই ব্যবহার করা যাবে এই এ্যাপটি। ডি-মার উদ্দেশ্য ক্ষুদ্র বিনিয়োগের মাধ্যমে সম্মিলিত উদ্যোগে ব্যাপক শিল্প, কল-কারখানা গড়ে তোলার ব্যবস্থা করা এবং বেকারত্ব দূরীকরণে কাজ করা। এমনকি বেকারদের বেকার ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা করা। ব্যবসায়িক লেনদেন ও ধার-দেনা নেওয়া বা দেওয়ার ব্যবস্থাকে ঝুঁকি মুক্ত করা।

যেভাবে কাজ করবে ডি-মা

অ্যাপসটিতে ব্যবহারকারীদের যে কেউ তাদের ভালো একটি বিজনেস আইডিয়া শেয়ার করতে পারবে। যেমন: আপনার এলাকায় একটি কারখানা দিলে খুব ভালো চলবে, এর জন্য খরচ হতে পারে ৫০ লক্ষ টাকা। অথচ আপনার পকেটে আছে মাত্র ১০ হাজার টাকা। আপনার এলাকা এবং এর আশেপাশের সবার কাছে অ্যাপসের মাধ্যমে বিষয়টির একটি নোটিফিকেশন মোবাইলে যাবে। যাদের এই কারখানা তৈরিতে আগ্রহ থাকবে তারা অ্যাপসের মাধ্যমে তাদের আগ্রহ প্রকাশ করবে এবং কত টাকা বিনিয়োগ করতে পারবে, তা উল্লেখ করবে। যেমন; কেউ ১০ হাজার, কেউ ৫০ হাজার, কেউ ১ লক্ষ বা ২ লক্ষ টাকা, এভাবে ৫০ লক্ষ টাকা হয়ে গেলে ডি-মা কর্তৃপক্ষ সবাইকে ডেকে অর্থ সংগ্রহ করে কারখানাটি তৈরি করে দিবে এবং সবাইকে সাথে নিয়ে কারখানাটি পরিচালনা করবে ডিমা কর্তৃপক্ষ। এতে করে যে কেউ সামান্য কিছু টাকার বিনিময়ে একটি কারখানার মালিক হয়ে যেতে পারে! সেই সাথে সুযোগ পাবে নিজের কারখানায় কর্মসংস্থানেরও।

যেভাবে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে ডি-মা

ডি-মা অ্যাপসের মাধ্যমে একদিকে প্রচুর পরিমাণে বিজনেস আইডিয়া আসতে থাকবে আর অন্যদিকে সেগুলো তৈরি হতে থাকবে। এখানে বিজনেস আইডিয়া হিসেবে ক্ষুদ্র মুদির দোকান থেকে শুরু করে বৃহৎ কল-কারখানা ইন্ডাস্ট্রি পর্যন্ত হতে পারে। এভাবে ব্যাপক কলকারখানা প্রতিষ্ঠিত হতে থাকলে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র তৈরি হবে। আর উক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রেও থাকবে বিনিয়োগকারীদের অগ্রাধিকার। এখানে একদিকে একজন বেকারও সামান্য টাকার বিনিময়ে যেমন একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক হচ্ছেন, অন্যদিকে সেখানে তার একটি ভালো কর্মসংস্থানও হচ্ছে। এভাবেই একদিকে বেকারদের একটা অংশ হয়ে উঠবে শিল্পোদ্যোক্তা আবার আরেকটা অংশ পেয়ে যাবে কর্মসংস্থানও।